• বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫
ads
ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ‘শিগগিরই’

লোগো বাংলাদেশ ছাত্রলীগ

রাজনীতি

ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ‘শিগগিরই’

  • হাসান শান্তনু
  • প্রকাশিত ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি শিগগিরই ঘোষণা করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে টার্গেট করে কমিটিতে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে জনপ্রিয়, পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি ও সাংগঠনিক দক্ষতাসম্পন্ন নেতাদের। তরুণ ও শিক্ষার্থীদের ভোট টানতে ঢাকাসহ সারা দেশের সংসদীয় আসনে বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে নতুন নেতারা কমিটি ঘোষণার পরই যেন মাঠে নামতে পারেন, এমন প্রস্তুতিও নেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কয়েকটি সূত্র জানায়, চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে না হলে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে।

গত ১১ ও ১২ মে ছাত্রলীগের ২৯তম জাতীয় সম্মেলন হয়। সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনে নতুন কমিটি ঘোষণার দায়িত্ব আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন সারা দেশ থেকে আসা কাউন্সিলররা। এর আড়াই মাস পর ৩১ জুলাই রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে সভাপতি ও গোলাম রাব্বানীকে সাধারণ সম্পাদক করে কেন্দ্রীয় কমিটি আর সঞ্জিত চন্দ্র দাসকে সভাপতি ও সাদ্দাম হোসাইনকে সাধারণ সম্পাদক করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।

জানা যায়, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে দ্রুত কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে কয়েক দিনের মধ্যে আগ্রহীদের জীবনবৃত্তান্ত জমা দিতে বলা হবে। চলতি মাসের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। বিষয়টি ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। একটি সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্র যাবেন। তিনি ফেরার পর ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল শাখার কমিটি সংসদ নির্বাচনের আগে নাও ঘোষণা করা হতে পারে।

আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্র ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক কয়েক নেতা বাংলাদেশের খবরকে জানান, সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়ক দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে তরুণ সমাজে আওয়ামী লীগের বিষয়ে কিছুটা নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছে। এসব আন্দোলনে স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা জড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগ সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা দূর করতে এবং তরুণ ভোট টানতে ছাত্রলীগের নতুন কমিটি আগামী মাসের শুরুতে মাঠে নামতে পারে। পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পরই সহায়ক কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামবেন নেতারা। জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারে তরুণদের উৎসাহিত করার বিষয়টি জোর দেওয়া হবে। ইশতেহারের প্রতিশ্রুতি তরুণদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কাজটি ছাত্রলীগের নতুন ও পুরনো কমিটির নেতারাও করবেন। এ লক্ষ্যে প্রতিটি সংসদীয় আসনে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা ও স্থানীয় কমিটির নেতাকর্মীদের নিয়ে আলাদা কমিটি গঠনের কথা ভাবা হচ্ছে।

গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ৩০১ সদস্যের আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটি ১০১ সদস্যের। জানা গেছে, নতুন কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পেতে দৌড়ঝাঁপ চলছে অনেকের। সারা দেশের ১০৯টি সাংগঠনিক কমিটি থেকে যোগ্যদের প্রাধান্য দিয়ে আর নানা কর্মকাণ্ডে বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি করার কথা ভাবছে ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব। অনুপ্রবেশকারী ও বিশৃঙ্খলাকারীদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে আছেন তারা। আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়েরও এ বিষয়ে অবস্থান কঠোর।

ছাত্রলীগের সম্মেলনের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বেশ কয়েকবার জানান, পদপ্রত্যাশীদের তালিকা পুঙ্খানুপুঙ্খ যাচাই-বাছাই করে আগামী জাতীয় নির্বাচন বিবেচনায় রেখে নেতৃত্ব বেছে নেওয়া হবে। পরিশ্রমী, ত্যাগী, মেধাবী, নিয়মিত ছাত্র, সাহসী, শিক্ষার্থীদের মধ্যে জনপ্রিয়, পরিচ্ছন্ন ইমেজ ও সাংগঠনিক দক্ষতাসম্পন্ন এবং যারা অতীতে আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন- তাদেরই প্রাধান্য দেওয়া হবে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads