• বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
রাজশাহীতে সমাবেশ করবে ঐক্যফ্রন্ট

ঐক্যফ্রন্ট নেতারা

সংরক্ষিত ছবি

রাজনীতি

রোডমার্চ কর্মসূচি স্থগিত

রাজশাহীতে সমাবেশ করবে ঐক্যফ্রন্ট

  • নিজস্ব প্রতিবেদক ও রাজশাহী ব্যুরো
  • প্রকাশিত ০৮ নভেম্বর ২০১৮

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে সাত দফা দাবির বিষয়ে সুরাহা না হওয়ায় রোডমার্চ করে রাজশাহীতে সমাবেশে যাওয়ার কর্মসূচি ঘোষণা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তা স্থগিত করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তবে আগামীকাল শুক্রবার রাজশাহীতে পূর্বনির্ধারিত সমাবেশের কর্মসূচি পালন করবে ফ্রন্ট। গতকাল সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে রোডমার্চ কর্মসূচি স্থগিতের কথা জানান বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এদিকে নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন স্থানীয় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নগরীর গণকপাড়া মোড়ে সমাবেশের জন্য পুলিশ তাদের অনুমতি দিয়েছে।

গতকাল বিকালে দ্বিতীয় দফা সংলাপ শেষে বেইলি রোডে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সাত দফা আদায়ের জন্য ফ্রন্ট আন্দোলনে আছে। আগামীকাল (আজ) পদযাত্রা হবে। পরশু শুক্রবার রাজশাহীতে সমাবেশ করবেন তারা।

পরে সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে রিজভী বাংলাদেশের খবরকে বলেন, ঐক্যফ্রন্টের রোডমার্চ কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। তবে রাজশাহীতে সমাবেশ হবে।

তবে কি কারণে রোডমার্চ কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানাননি রিজভী। তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সংলাপ নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করবেন। এ ছাড়া সন্ধ্যায় সিইসি ভাষণ দেবেন। সেগুলো পর্যবেক্ষণ করে সিদ্ধান্ত নিতে রোড মার্চ স্থগিত করা হয়েছে।

সমাবেশের অনুমতি পেল ফ্রন্ট : গতকাল দুপুরে রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন দেখা করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তারের সঙ্গে। এরপর বিকালে তাদের মৌখিকভাবে সমাবেশের অনুমতির কথা জানানো হয়। তবে তারা রাজশাহী মাদরাসা মাঠে সমাবেশ করতে চাইলেও তাদের নগরীর গনকপাড়া মোড়ে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে। 

সমাবেশ করতে পুলিশের অনুমতির জন্য গত ২২ অক্টোবর জাতীয় ঐক্যের বড় শরিক দল বিএনপির রাজশাহী মহানগরের সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন পুলিশের কাছে অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। আরএমপির মুখপাত্র ও সিনিয়র সহকারী কমিশনার ইফতেখায়ের আলম স্থানীয় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সমাবেশের জন্য ঐক্যফ্রন্টের প্রথম পছন্দ ছিল মাদরাসা ময়দান। বিকল্প হিসেবে তারা সাহেববাজার, গণকপাড়া ও মনিচত্বর এলাকার নাম লিখেছিলেন। কিছু শর্তে গণকপাড়া মোড়ে তাদের সমাবেশের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন জানিয়েছেন, বিকাল পর্যন্ত লিখিত কোনো কাগজ তারা পাননি। তবে অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে তারা শুনেছেন। তাই তারা প্রস্তুতিও শুরু করেছেন। শুরু হয়েছে পোস্টার ছাপার কাজ। নগরজুড়ে চলছে মাইকিং। ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় এবং বিভাগীয় নেতাকর্মীরা সমাবেশে যোগ দেবেন।

এর আগে গতকাল সকালে ‘যেকোনো মূল্যে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ সফল করা হবে’ বলে ঘোষণা দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিনু।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads