• বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তথ্যচিত্র প্রত্যাহার দাবি বিএনপির

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তথ্যচিত্র

সংগৃহীত ছবি

রাজনীতি

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তথ্যচিত্র প্রত্যাহার দাবি বিএনপির

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৮ নভেম্বর ২০১৮

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর নির্মিত ডকুমেন্টারি ফিল্ম (তথ্যচিত্র) রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সসহ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে, যা সুস্পষ্টভাবে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন। অথচ নির্বাচন কমিশন (ইসি) এ বিষয়ে নীরব। অবিলম্বে হল থেকে এ ছবি প্রত্যাহার করতে হবে। ইসিকে এ বিষয়ে উদ্যোগ নিতে হবে। গতকাল নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। 

রুহুল কবির রিজভী বলেন, শুধু ডকুমেন্টারি ফিল্ম নয়, বিভিন্ন টেলিভিশন ও রাজধানীর বিভিন্ন মোড়ে সিটি করপোরেশনের স্থাপিত টিভি স্ক্রিনে শেখ হাসিনার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড প্রচার করা হচ্ছে। এ বিষয়টি নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। ইসি এ বিষয়েও নীরব।

বিএনপির এই সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, প্রশাসনের বিভিন্ন জায়গায় দলবাজ কর্মকর্তারা বহাল রয়েছেন। এখন পর্যন্ত তাদের সরিয়ে দিয়ে প্রশাসন নিরপেক্ষভাবে সাজানো হয়নি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নিরপেক্ষভাবে সাজানো হয়নি। সুষ্ঠু নির্বাচনের ন্যূনতম কোনো পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি ইসি। এতে করে মানুষের মন থেকে ভীতি দূর হয়নি। এভাবে চলতে থাকলে ভোট দেওয়া দূরে থাক, মানুষ নির্ভয়ে মুখ খুলে কথাও বলতে পারবে না।

রিজভী বলেন, সরকার ভেঙে দিয়ে নির্বাচনকালীন সরকারের দাবি জানিয়েছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। কিন্তু এখনো বর্তমান সরকার বহাল আছে। নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণা করার পরও আওয়ামী লীগ নির্বাচনী প্রচার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, উপদেষ্টা, সংসদ সদস্যরা উন্নয়ন কার্যক্রম উদ্বোধনসহ নানা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। স্কুল, কলেজসহ বিভিন্ন লাভজনক পদে তারা এখনো দায়িত্ব পালন করছেন।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, বিএনপি থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী ও চকবাজার থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম রাসেল গত শুক্রবার বিকালে নয়াপল্টনস্থ বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এরপর থেকে তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। এই নিয়ে তার পরিবার-পরিজন ও দলের নেতাকর্মীরা গভীরভাবে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় আছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য জয়নাল আবদিন ফারুক, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন শওকত, সহ-প্রচার সম্পাদক আসাদুল করীম শাহীন, সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, মুনির হোসেন প্রমুখ।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads