• সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬
ads
বন্দি খালেদার চারপাশে ‘বিস্ফোরকের ডিপো’

ছবি : সংগৃহীত

রাজনীতি

বন্দি খালেদার চারপাশে ‘বিস্ফোরকের ডিপো’

বিএনপির উৎকণ্ঠা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কেন্দ্র্রীয় কারাগারে বন্দি খালেদা জিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেছে বিএনপি। চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থলের কাছেই কারাগার অবস্থিত হওয়ায় দলটির পক্ষ থেকে এই উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

গতকাল রোববার দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আমি গভীর উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ও আতঙ্কের সঙ্গে বলছি- আমাদের প্রাণপ্রিয় দেশনেত্রী বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা খালেদা জিয়াকে যে পরিত্যক্ত কারাগারে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে তার চারপাশে রাসায়নিক বিস্ফোরকের ডিপো।

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করে তিনি বলেন, শুধু প্রতিহিংসার লেলিহান অনলে দগ্ধ শেখ হাসিনা অবৈধ ক্ষমতার জোরে এমন একটি কেমিক্যাল বিস্ফোরক বেষ্টিত ভয়ঙ্কর বারুদের ডিপোর মাঝখানে আতঙ্কজনক পরিবেশে দেশনেত্রীকে এক বছর বন্দি রেখেছেন।

তিনি বলেন, তাকে (খালেদা) এক অশুভ উদ্দেশে ভয়াবহ বিপজ্জনক পরিবেশে বন্দি করে রেখেছে অবৈধ শাসকগোষ্ঠী। আমাদের বক্তব্য এই মুহূর্ত দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। তিনি নির্দোষ, তার মুক্তি চাই।

রিজভী বলেন, অগ্নিকাণ্ডের দিন সারারাত চারদিকে বিকট শব্দ, মানুষের আর্তচিৎকার, রাসায়নিক বিস্ফোরণের ভয়ঙ্কর ও বিকট শব্দ গ্রাস করেছিল আশপাশের সব এলাকা। তাকে (খালেদা জিয়া) ভয়ঙ্কর রকমের একটি পরিবেশের মধ্যে রাখা হয়েছে। অল্প দূরত্বে নির্ঘুম উৎকণ্ঠায় কেটেছে চরম অসুস্থ খালেদা জিয়ার।

প্রসঙ্গত, দুর্নীতির দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া এক বছর ধরে নাজিমউদ্দন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দিজীবন কাটাচ্ছেন। সেখানে তিনিই একমাত্র বন্দি। গত বুধবার রাতের অগ্নিকাণ্ডে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত যে ভবন, চকবাজারের চুড়িহাট্টার সেই ওয়াহেদ ম্যানশন থেকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারের দূরত্ব খুব বেশি নয়। ৬৭ জনের প্রাণ কেড়ে নেওয়া ওইদিনের অগ্নিকারে সূত্রপাত সিলিন্ডার বিস্ফোরণে বলেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। তবে স্থানীয় বাসিন্দাদের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিসকর্মীরাও বলেছেন, আশপাশের দোকান আর ভবনে থাকা রাসায়নিক আর প্লাস্টিক-পারফিউমের গুদাম চুড়িহাট্টার আগুনকে দিয়েছে ভয়াবহ মাত্রা। অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া পাঁচটি ভবনের প্রায় প্রতিটিতে ছিল প্লাস্টিক দ্রব্য, রাসায়নিক কিংবা প্রসাধন সামগ্রীর গুদাম। সেখানকার বিভিন্ন ভবনে পারফিউমের বোতল রিফিল করা হতো, যেগুলো সেদিন বোমার মতো ফেটেছে। এমন পরিবেশে প্রতিনিয়ত আতঙ্কের মধ্যে থাকার কথা স্থানীয়রাও জানিয়েছেন।

বিএনপির গতকালের সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খান, শওকত মাহমুদ, কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম মোশাররফ হোসেন, আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, মীর আলী নেওয়াজ, আমিরুল ইসলাম খান আলিম প্রমুখ নেতা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads