• শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৫
ads
তারা আসলে কী চায় : কাদের

ছবি : সংগৃহীত

রাজনীতি

তারা আসলে কী চায় : কাদের

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৯ জুন ২০১৯

বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের শরিক এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদের নতুন প্ল্যাটফর্ম ‘জাতীয় মুক্তি মঞ্চ’-কে স্বাগত জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গণতান্ত্রিক ধারায় নতুন রাজনৈতিক দল নতুন প্ল্যাটফর্মকে আমরা অবশ্যই স্বাগত জানাই। আমরা এর বিরুদ্ধে নই। নতুন প্ল্যাটফর্মে রাজনীতি করছে তারা, তারপর দেখা যাবে তারা আসলে কী চায়।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও দুর্যোগ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আব্দুস সবুর, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক আফজাল হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় সদস্য মারুফা আক্তার পপি, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ওই প্ল্যাটফর্মের ঘোষণা দেন অলি আহমদ। ‘জাতীয় মুক্তি মঞ্চ’-এ এলডিপি ছাড়াও আছে ২০-দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা, খেলাফত মজলিস এবং ন্যাশনাল ওলামা মুভমেন্ট।

এই মঞ্চের বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, নতুন ফুল ফুটুক এ ব্যাপারে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতির মধ্যে আসুক। গণতান্ত্রিক ধারায় নতুন রাজনৈতিক দল নতুন প্ল্যাটফর্মকে আমরা অবশ্যই স্বাগত জানাই। আমরা এর বিরুদ্ধে নই। নতুন প্ল্যাটফর্মে রাজনীতি করছে তারা, তারপর দেখা যাবে তারা আসলে কী চায়।

১৯৭১-এর জামায়াত আর ২০১৯-এর জামায়াত এক নয়, জামায়াত এখন দেশপ্রেমিক-অলি আহমদের এমন মন্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, সেটা দেখতে হবে সরেজমিন। তারা কী পরিবর্তিত রূপ নিয়ে এসেছে তা কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে প্রমাণ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় কতটা বিশ্বাস করে, এটা কার্যক্রমের মধ্যদিয়ে প্রমাণ হবে।

‘বিচারহীনতার কারণে বরগুনার ঘটনা ঘটেছে’-বিএনপি নেতাদের এমন মন্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, বিচারহীনতার সংস্কৃতি দিয়ে বিশ্বরেকর্ড করেছিল বিএনপি, তাদের মুখে বিচারহীনতার কথা মানায় না। আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহের জন্য জেলা-উপজেলায় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা সদস্য সংগ্রহ শুরু করে দিয়েছি। নতুন সদস্য সংগ্রহ করা হবে, আর যারা আগে থেকেই আছেন তাদের নবায়ন করতে হবে। এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, নতুন সদস্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে যাকে সদস্য করা হবে তার ব্যাপারটাকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে। তার ব্যাকগ্রাউন্ড দেখা হবে। তার কোনো ক্রিমিনাল রেকর্ড আছে কি না, সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে জড়িত কি না, এই বিষয়গুলোকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে। এ ছাড়া বাবা-মা এমনকি একেবারে নিকটাত্মীয়দের বিষয়টাও দেখা হবে।

 

 

 

 

 

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads