• মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নেই : মির্জা ফখরুল

ছবি : সংগৃহীত‍

রাজনীতি

মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নেই : মির্জা ফখরুল

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৭ জুলাই ২০১৯

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, ক্ষমতাসীনরা দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে। সারা দেশে আজকে তারা (ক্ষমতাসীন) একটা নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে। আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা চরমভাবে ভেঙে পড়েছে। আপনারা দেখছেন, দিনে-দুপুরে মানুষকে কুপিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, কয়েকদিন আগে পত্রিকায় বেরিয়েছে, প্রতি ঘণ্টায় ১২ জন লোক মারা যাচ্ছে, নিহত হচ্ছে। হয় সড়ক দুর্ঘটনায় অথবা হত্যা করার মধ্য দিয়ে। দেশে ধর্ষণ বেড়েছে, ডাকাতি বেড়েছে, লুটপাট বেড়েছে। মানুষের জীবনের এখন আর কোনো নিরাপত্তা নেই।

গতকাল শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দক্ষিণের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে সারা দেশ একটা কারাগারে পরিণত হয়েছে। এখানে একটি বিচার বিভাগ আছে, এ বিচার বিভাগের কাছে আমরা কোনো বিচার পাই না। এই বিচার বিভাগ সম্পূর্ণভাবে আওয়ামী লীগের অবৈধ সরকারের করায়ত্ত। আপনারা দেখেছেন, পাবনাকে কয়েকদিন আগে ১৯৯৪ সালে একটি ট্রেনে হামলার বিষয় নিয়ে যে রায় হয়েছে, এটা আমার মনে হয় না যে, কোনো সভ্য সমাজে, আইনের শাসনের দেশে এ ধরনের একটা ন্যক্কারজনক রায় হতে পারে। তিনি বলেন, আজকে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নেই বললেই চলে। একেবারে শূন্যের কোঠায় এসে গেছে। উন্নয়নের কথা বলা হচ্ছে। মেগা প্রজেক্ট, মেগা দুর্নীতি। আজকে পত্রপত্রিকা খুলে দেখবেন, ব্যাংকগুলো থেকে কীভাবে টাকা চলে যাচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করার একমাত্র কারণ হচ্ছে, তারা এলএনজি আমদানি করতে চায়। এই এলএনজি আমদানি করে সেখানে যে ভর্তুকি দেবে, সেই টাকা জনগণের পকেট থেকে নিতে চায়। এ নিয়ে বাম দলগুলোর রোববারের (আজকের) হরতালে সমর্থন দেওয়ার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, কারণ এটা জনগণের দাবি, জনগণের দাবিকে অবশ্যই আমরা সব সময় সমর্থন করব।

খালেদা জিয়ার মুক্তির প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটক রেখে এই সরকার এটা প্রমাণ করেছে, তারা গণতন্ত্রকে আটক রাখতে চায়। কারণ দেশনেত্রী গণতন্ত্রের প্রতীক। যে নেত্রী তার রাজনৈতিক জীবনের পুরোটাই গণতন্ত্রের উন্নয়ন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করার জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তাকে তারা অন্যায়ভাবে তাকে কারারুদ্ধ করে রেখেছে। ঠিক একই ধরনের মামলা আপনাদের নেতা-নেত্রী, আপনাদের অনুসারী, তাদেরকে জামিন দিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু আমাদের দেশনেত্রীকে আপনারা জামিন দিচ্ছেন না। এটা সম্পূর্ণভাবে বেআইনি। আওয়ামী লীগ দেশে একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চায় বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি মহাসচিব।

মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, মহানগর দক্ষিণের সহ-সভাপতি শামসুল হুদা, নবী উল্লাহ নবী, মোশাররফ হোসেন খোকন, মীর হোসেন মীরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিব প্রমুখ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads