• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
সংসদ ‘অবৈধ’ বললেও প্লট চান রুমিন ফারহানা!

ছবি : সঙগৃহীত

রাজনীতি

সংসদ ‘অবৈধ’ বললেও প্লট চান রুমিন ফারহানা!

  • সাইদ আরমান
  • প্রকাশিত ২৫ আগস্ট ২০১৯

একাদশ জাতীয় সংসদ ‘অবৈধ’— এমন মন্তব্য করলেও বিএনপির সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা সংসদকে ব্যবহার করছেন ব্যক্তিগত হিসাব-নিকাশে। বিএনপির এই নারী সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদে যোগ দিতে না দিতেই সংসদ সদস্য হিসেবে ১০ কাঠার প্লট চেয়েছেন। জাতীয় সংসদের প্যাড ব্যবহার করে তিনি গৃহায়ন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। তার এই চিঠিতে সরকার, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিভিন্ন স্তরে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

সরকারদলীয় নেতারা বলছেন, মুখে বড় বড় কথা বলেন প্রয়াত রাজনীতিক অলি আহাদের এই মেয়ে। সরকারের কঠোর সমালোচনায় ব্যস্ত থাকেন তিনি। সরকার ও বর্তমান সংসদকে অবৈধ বলে অপপ্রচার চালান। কিন্তু ভেতরে ভেতরে প্লট চেয়ে আবেদন করেছেন সরকারের কাছে।

অপরদিকে, বিএনপির বেশ কয়েকজন নেতার মন্তব্য, অনেক বিচার-বিশ্লেষণ করে আমরা মনোনয়ন দিয়ে রুমিন ফারহানাকে সংসদে পাঠিয়েছি। বিএনপি সংসদের বাইরে কথা বলতে পারছে না। কোনো সমাবেশ করতে পারছে না। তাই সংসদে যাতে বিএনপি দেশ ও দলের কথা বলতে পারে সেটি নিশ্চিত করতে তাকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়। তিনি শপথ নিয়ে সংসদে যাওয়ার দুই মাস পেরিয়েছে মাত্র। কিন্তু সংসদে যোগ দিতে না দিতেই ব্যক্তিগত প্লট চেয়ে সরকারকে চিঠি দেওয়া ঠিক হয়নি। এটা দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে।

প্লট পেতে আবেদন করেছেন কি না জানতে চাইলে রুমিন ফারহানা বাংলাদেশের খবরকে বলেন, এটা একদম নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। আমি কেবল চিঠি দিয়ে রাখলাম। পেলে পেলাম, না পেলেও কোনো দুঃখ নেই। সব সংসদ সদস্য দিচ্ছেন। তারা সবাই বলেছেন, দিয়ে রাখো।

সব সংসদ সদস্য বলতে বিএনপির অন্যদের বুঝিয়েছেন কি না— এমন প্রশ্নে বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব থাকা এই আইনজীবী বলেন, সংসদে সব দলের এমপির সঙ্গেই আমাদের কথা হয়। বিএনপির কেবল নয়।

বিএনপির নির্বাচিত অন্য সংসদ সদস্যরা আবেদন করেছেন কি না জানতে চাইলে বলেন, আমি বলতে পারব না।

কিন্তু নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির অন্য কোনো সংসদ সদস্য এখনো গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে এ ধরনের কোনো চিঠি দেননি।

রুমিন ফারহানা সংসদের প্যাড ব্যবহার করে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমকে চিঠি দিয়েছেন। গত ৩ আগস্ট নিজের সই ও সিল দেওয়া চিঠিতে মন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি লেখেন— ‘আপনার সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে জানানো যাচ্ছে যে, ঢাকাস্থ পূর্বাচল আবাসিক এলাকায় দশ কাঠা প্লট দরকার আমার। ঢাকা শহরে আমার কোনো জায়গা, ফ্ল্যাট কিংবা জমি নেই। ওকালতি ছাড়া আমার অন্য কোনো ব্যবসা নেই। আমার নামে দশ কাঠা প্লট বরাদ্দের জন্য সুব্যবস্থা করে করে দিতে আপনার মর্জি হয়। আমার নামে দশ কাঠা প্লট বরাদ্দ করলে আমি আপনার নিকট চির কৃতজ্ঞ থাকব।’ 

ভাষাসৈনিক অলি আহাদের মেয়ে রুমিন ফারহানা গত কয়েক বছর ধরেই বিএনপির কর্মকাণ্ডে বেশ সক্রিয়। পাশাপাশি টেলিভিশনে বিভিন্ন টক শোতেও তাকে নিয়মিত দেখা যায়।  গত ৯ জুন তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন। জাতীয় সংসদের বৈঠকে যোগ দিয়ে প্রথম দিনেই উত্তাপ ছড়িয়েছেন বিএনপির সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে।  একাদশ সংসদ নির্বাচন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জেল ও তারেক রহমানকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বারবার সরকারি দলের সদস্যদের প্রতিবাদ, চিৎকার চেঁচামেচির মুখে পড়েন রুমিন। পরে সরকারি দলের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে রুমিনের বক্তব্যের কিছু অংশ কার্যবিবরণী থেকে বাদ (এক্সপাঞ্জ) দেওয়া হয়।

রুমিন ফারহানা বলেন, প্লট পেতে কোনো তদবির করিনি। আর আমার দায়িত্ব থেকে সরে আসিনি। আমি সংসদ সদস্য হিসেবে অ্যাপার্টমেন্ট পেয়েছি। তবে আমি ছোটটি নিয়েছি। সংসদ সদস্য হিসেবে কিছু সুবিধা এমনিতেই চলে আসে। আমার বাবার কিছু নেই। কোনো জায়গা নেই। আমার বাবা সারা জীবন শ্বশুরবাড়িতে ছিলেন। কিন্তু বাবার যে অবস্থান ছিল, উনি একরের পর একর জমি ঢাকা শহরে করতে পারতেন। তাই এটুকু যদি না নিই তবে আমরা খাব কী। আমি আবেদন করার হকদার। এটি সরকারের প্লট নয়। এটি রাষ্ট্রীয়।

জাতীয় সংসদের বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে রুমিন ফারহানাসহ বিএনপির সংসদ সদস্যরা জাতীয় সংসদকে ‘অবৈধ’ বলেন। এর বিরুদ্ধে স্পিকারের রুলিং চান জাতীয় পার্টির নেতা আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads