• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

রাজনীতি

রুমিনের প্রশ্ন

আবেদন কেন ফাঁস হলো

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৬ আগস্ট ২০১৯

প্লট চেয়ে গৃহায়নমন্ত্রীর কাছে করা আবেদন সংবাদমাধ্যমের কাছে কীভাবে গেছে সেই প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা। তিনি বলেন, আমি স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, আমি এই সরকারের কাছ থেকে এক সুতা জমিও আশা করি না, আমি চিন্তাও করি না। এটা একটা প্রসিডিউর, একটা ফরমালিটিজ যেটা সব এমপি করেছেন, আমিও করেছি।

প্লটের আবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে রুমিন ফারহানা বলেন, আমার ফেসবুক হ্যাক হয়ে আছে এক মাস ধরে; সে জন্য আমি বিষয়টি দেখিনি। তবে বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে সেটা না অবৈধ না অনৈতিক। কোনোটাই না। এই কারণেই নয়, এই সুবিধাটা রাষ্ট্রীয় সুযোগ বা অধিকার। একজন সংসদ সদস্য রাষ্ট্র থেকে জায়গার জন্য আবেদন করতে পারেন। সেই সুযোগ তার আছে। তিনি একটি ট্যাক্স ফ্রি গাড়ি আনতে পারেন সেই সুযোগ তার আছে, তিনি বেতন-ভাতা পান এবং তিনি পাঁচ বছরের জন্য একটা অ্যাপার্টমেন্ট পান-এই চারটি জিনিস হচ্ছে রাষ্ট্রীয়। এই রাষ্ট্রীয় সুযোগ যেই সংসদ সদস্য হবেন সেই রাষ্ট্র থেকে পাবেন। সেই সুবাদে আমি একটি আবেদনপত্র দিয়েছি। শুধু আমি একা নই, অন্তত তিনশ থেকে সাড়ে তিনশ এমপি আবেদন দিয়েছেন। আমার প্রশ্ন হলো, আমার চিঠিটা মন্ত্রণালয় থেকে বেরুলো কী করে? যেখানে আমার ব্যক্তিগত টেলিফোন নম্বর দেওয়া আছে।

রুমিন ফারহানা বলেন, এই চিঠি আমি ড্রাফটও করি নাই, আমার পিএস ড্রাফট করেছেন। সব পিএসরা যখন তাদের এমপিদের চিঠি ড্রাফট করেছেন, আমার পিএসও ড্রাফট করেছেন। কিন্তু আমার চিঠিটা কেন বেরিয়ে গেল? এটা ভাইরাল কেন হলো-তার উত্তর আমি নিজেই দিচ্ছি।

তিনি বলেন, গত দুদিন আগে আবুল মাল আবদুল মুহিত (সাবেক অর্থমন্ত্রী) কোনো পদে না থাকা অবস্থায় শুল্কমুক্ত গাড়ি এনেছিলেন। সরকার তার সেই নোংরামি ও অসততাকে চাপা দেওয়ার জন্য আমার যে বৈধ আবেদন সেটাকে তারা নোংরাভাবে পাবলিক করেছে। একটা সরকারি নথি কখন পাবলিক হয় যখন সেখানে সরকারের মদদ থাকে।

এই নারী সংসদ সদস্য বলেন, এই সরকার আমাদের ফোনে আড়িপাতে। এই সরকার আমাদের ফেসবুক হ্যাক করে, এই সরকার আমাদের সব গোপন নথি ইচ্ছা করে প্রকাশ করে। যারাই সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলবে, যারাই সরকারের কাজের সমালোচনা করবে, যারাই সরকারকে সঠিক পথে আনবার জন্য যা যা পদক্ষেপ নেওয়া দরকার সে বিষয়ে কথা বলবে এবং সরকারের মনমতো কথা না বলবে তাদের ব্যাপারে সরকারের এক ধরনের চেষ্টা থাকে তাদের হিউমিলেটেড করা বা তাদের কোনো না কোনোভাবে ম্যালাইন করা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads