• বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
ads

রাজনীতি

খালেদার মুক্তিতে কারও ‘অনুকম্পা’ প্রয়োজন নেই: ফখরুল

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৩ অক্টোবর ২০১৯

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মুক্ত করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, তার মুক্তির জন্য কারও অনুকম্পার প্রয়োজন নেই।

খালেদাকে কারামুক্ত করতে নিজ দলের সংসদ সদস্যরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানানোর একদিন পরেই বৃহস্পতিবার রাজধানীতে এক মানববন্ধনে এ কথা বলেলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘কারও অনুকম্পায় খালেদা জিয়া মুক্ত হতে চান না। তার জামিন পাওয়ার ন্যায্য অধিকার রয়েছে এবং তিনি নিশ্চিতভাবেই জামিনে বেড়িয়ে আসবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকার দীর্ঘ সময় খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখতে পারবে না। জনগণ আন্দোলনের মাধ্যমে তাকে মুক্ত করে আনবে।’

এ সময় দেশে ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার’ ও খালেদা জিয়াকে কারামুক্তি দিতে সরকারকে বাধ্য করতে সকল স্তরের জনগণ ও গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলগুলোকে একত্র হয়ে আন্দোলনে নামার আহ্বান জানান তিনি।

কারাবন্দী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপিপন্থী সংগঠন সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ এ মানবন্ধনের আয়োজন করে।

এর আগে বুধবার বিএনপির অসুস্থ চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে তার জামিনে মুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পদক্ষেপ নিতে বুধবার অনুরোধ জানান দলটির সংসদ সদস্যরা।

বঙ্গবন্ধু শেষ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদাকে দেখে আসার পর বিএনপির সংসদ সদস্য জি এম সিরাজ, মোশাররফ হোসেন, জাহিদুর রহমান জাহিদ ও রুমিন ফারহানা সাংবাদিকদের বলেন, জামিন আদালতের এখতিয়ার হলেও ‘রাজনৈতিক বন্দি’ হওয়ায় তার মুক্তির প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান তারা। 

বিএনপির সংসদ সদস্য জিএম সিরাজ বলেন, ‘আমরা সাতজন এমপি সংসদ নেতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানাচ্ছি, আপনি নিজে একবার এসে খালেদা জিয়াকে দেখে যান। আমাদের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে দেখে আপনার মানবিকতাবোধ জাগ্রত হবে, আপনার তার জন্য মায়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, আমাদের নেত্রী (খালেদা) একজন ‘রাজনৈতিক বন্দি’ এবং তার মুক্তির জন্য রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের অনুরোধ, আপনি আমাদের নেত্রীর জামিনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করুন। আপনি আমলাতান্ত্রিক পরামর্শ না নিয়ে দয়া করে রাজনৈতিক দূরদর্শিতায় আমাদের নেত্রীকে ছেড়ে দিন, জামিনের ব্যবস্থা করে দিন।

দুর্নীতির দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দী রয়েছেন। গত ১ এপ্রিল থেকে তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।


আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads