• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

খেলা

ভাগ্য ফেরাতে ভারতে আবাহনী

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১০ এপ্রিল ২০১৮

এএফপি কাপ ফুটবলের শুরুটা ভালো হয়নি ঢাকা আবাহনীর। প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপের ক্লাব নিউ রেডিয়েন্টের বিপক্ষে ১-০ গোলে হেরে যায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়নরা। এরপর ভারতে গিয়ে বেঙ্গালুরুর দ্বিতীয় সারির দলের বিপক্ষেও সেই একই ব্যবধানে হার। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে আবারো ভারত গেল ঢাকা আবাহনী। এবার প্রতিপক্ষ পয়েন্ট টেবিলের নিচের দল আইজল। আর হার নয় এবার জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে চায় আকাশি-নীল জার্সিধারীরা।

এএফসি কাপ ফুটবলের ‘ই’ গ্রুপের তৃতীয় ম্যাচ খেলত গতকাল ঢাকা ত্যাগ করে আবাহনী। প্রথম দুই ম্যাচে এই দলটিও এ টুর্নামেন্টে বড় ব্যবধানে হেরেছে। নিউ রেডিয়েন্ট ও বেঙ্গালুরু দু্ই দলের বিপক্ষে ৩-১ গোলে হেরেছে আইজল।

তাই এ ম্যাচে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী আবাহনীর কোচ সাইফুল বারী টিটু। তবে পুরনো শঙ্কায় ভর করে আছে নীল শিবিরে। ম্যাচে গোল না করতে পারা। তবে, গত ম্যাচে বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে দর্শক হয়ে থাকা সানডে সিজোবা এ ম্যাচ খেলতে পারছে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায়। প্রথম দুই ম্যাচে দলের বাইরে থাকা ইমন বাবু ফিরছেন চোট কাটিয়ে। তবে সোহেল রানাকে পাচ্ছেন না তিনি।

সোহেল রানাকে ছাড়াই পুরো দল নিয়েই নিজেদের প্রস্তুতি সেরেছে আবাহনী। ফিরেছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দেওয়া ফুটবলাররা। থাইল্যান্ড, লাওসে খেলে এসে আবার আবাহনীর খেলোয়াড়রা যোগ দেন কোচ সাইফুল বারী টিটুর ক্যাম্পে।

কোচ টিটু চেষ্টা করে যাচ্ছে হাতে যে কটি ম্যাচ আছে তা ভালোভাবে শেষ করতে। পয়েন্ট না থাকলেও এখন সুযোগ আছে পয়েন্ট যোগ করার। পয়েন্ট পেলেও হয়তো কোনো লাভ হবে না। এরপরও চেষ্টার কোনো ত্রুটি রাখতে চান না আবাহনীর এই কোচ। যেভাবেই হোক অন্তত একটা জয় পেলেও তো ভালো।

এ লক্ষ্য নিয়ে গতকাল সকালে ঢাকা ছাড়ে আবাহনী। আগামী ১১ এপ্রিল বুধবার আইজন ফুটবল ক্লাবের বিপক্ষে মাঠে নামবে তারা। আইজল, মিজোরামের দল হলেও তাদের আন্তর্জাতিক ম্যাচের ভেন্যু গৌহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক স্টেডিয়াম। গতবারের আই লিগ চ্যাম্পিয়ন আইজল এফসি এবার লিগের ৫ নম্বর দল।

এএফসি কাপে খেলতে নেমে তারাও এখনো পয়েন্ট পায়নি। তারপরও শক্তির বিচারে আবাহনীর চেয়ে কোনো অংশে কম না ভারতের এই দলটি। রোমানিয়া, লাইবেরিয়া, মালয়েশিয়া ও আফগানিস্তানের খেলোয়াড় আছে আইজলে।

ইমন বাবু ফেরাতে কোচ টিটু খুশি। তবে একাদশে নামতে পারবেন কিনা তা নিশ্চিত না। তিনি বলেন, ‘ইমন বাবু নিয়ে ভাবছি। কীভাবে নামানো যায় তা নিয়ে একটা চিন্তা আছে।’ একদিকে চিন্তামুক্ত হলেও আরেক দিকে দুশ্চিন্তা আছে কোচের। কারণ টিটু তার ফরোয়ার্ড সোহেল রানাকে পাচ্ছেন না। পায়ে অস্ত্রোপচার হয়েছে। দুই-তিন মাস লেগে যাবে মাঠে ফিরতে।

স্ট্রাইকার নিয়ে দুর্ভাবনা আছে কোচের। গণমাধম্যকে আবাহনীর কোচ জানান, ‘ম্যাচ জিততে হলে গোল পেতে হবে। কিন্তু গোল করার মতো স্ট্রাইকার দেখছেন না। দেশি স্ট্রাইকারের কাছে প্রত্যাশা বেশি হলেও তারা সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারছে না। অন্যদিকে স্ট্রাইকার নাবীব নেওয়াজ জীবনের মতো দেশি স্ট্রাইকার ঘরোয়া লিগে খেলছে বদলি হিসেবে। বিদেশিদের জায়গা বেশি। দেশি স্ট্রাইকাররা নিয়মিত একাদশে খেললে আন্তর্জাতিক ম্যাচে দক্ষতা দেখানোর সুযোগ থাকে।’

পরপর দুই ম্যাচ হেরে এখন একটা জয়ের জন্য মুখিয়ে আছে ঢাকা আবাহনী। সেই জয়টা আইজলের বিপক্ষেই চান দলের কোচ সাইফুল বারী টিটু।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads