• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

ফুটবল

শেষ আটেই আফ্রিকানদের বিদায়

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২১ এপ্রিল ২০১৮

বিশ্বের ফুটবল পরাশক্তিগুলোর তুলনায় আফ্রিকান প্রতিনিধিরা অনেকটাই পিছিয়ে। বিশ্বের ফেভারিট ফুটবল জার্মানি, আর্জেন্টিনা, স্পেন বা ব্রাজিলের  পেছনে দ্বিতীয় স্থানে পড়ে রয়েছে আফ্রিকান দেশগুলো। শুধু তাই নয়, রাশিয়া বিশ্বকাপে আফ্রিকার কোনো দলই কোয়ার্টার ফাইনালের বৈতরণী পেরুতে পারবে না। নিজের মহাদেশ নিয়ে এমন কাঠখোট্টা ভবিষ্যদ্বাণীই করেছেন ক্যামেরুনের সাবেক ডিফেন্ডার লরেন। তার এমন বিতর্কিত মন্তব্যে সারা ফুটবল দুনিয়ায় হইচই পড়ে গেছে রীতিমতো।

২০১৮ বিশ্বকাপে আফ্রিকা মহাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে নাইজেরিয়া, তিউনিশিয়া, সেনেগাল, মরক্কো ও মিসর। শুধু সুযোগ পেয়েছে বলেই বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ আসরে অংশ নিতে যাচ্ছে না তারা। সম্মানজনক ফিফা ট্রফিটা জেতার লড়াইয়ে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়ার স্বপ্নও বুনছে আফ্রিকান দলগুলো। ১৯৩৪ সালে আফ্রিকা প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার পর এ পর্যন্ত আসরের সেমিফাইনালে উঠেছে তিনটি দল। ১৯৯০ সালে ক্যামেরুন, ২০০২ সালে সেনেগাল ও ২০১০ সালে ঘানা। কিন্তু তার পরও ইনডোমিটাবল লায়নস দলের এই কিংবদন্তির বিশ্বাস, আফ্রিকার পাঁচ পতাকাবাহী সদস্য বিশ্বের শীর্ষ ফুটবল শক্তির বিপক্ষে কিছুতেই চ্যালেঞ্জ গড়তে পারবে না। কারণ হিসেবে সাবেক এই ডিফেন্ডার মনে করেন, ফুটবলের মানের দিক থেকে আফ্রিকার দলগুলো এখনো বিশ্বের বড় দলগুলোর পেছনেই পড়ে রয়েছে, ‘আমি বলতে পারি আফ্রিকা সেমিফাইনালে উঠবে। আমরা শিরোপা জিততে যাচ্ছি। এটা কিন্তু বাস্তবতা নয়।’

সেমিফাইনালে খেলা তো দূরে থাক। শেষ আটের লড়াইয়ে আফ্রিকানদের জয় নিয়ে সংশয় রয়েছে লরেনের, ‘কোয়ার্টার ফাইনালের ওপারে আফ্রিকার কোনো দলকেই দেখতে পারছি না। এটাই আমার মতামত। টপ ফুটবল দলগুলোর চেয়ে আমরা এখনো এক ধাপ নিচে পড়ে আছি। জার্মানি, আর্জেন্টিনা, স্পেন বা ব্রাজিলের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারবে তারা। আফ্রিকার দলগুলো তাদের সমকক্ষ নয়। লোকজনকে মিথ্যা বলা পছন্দ করি না। খুবই সৎ আমি। যাই বলি মন থেকে বলি। কারণ সঠিক পথে আমরা পরাশক্তিগুলোর মোকাবেলায় জয় ছিনিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads