• মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

ফুটবল

ম্যানইউর লজ্জার হার

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০৬ মে ২০১৮

প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা আগেই নিশ্চিত করে ফেলেছে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটি। তাই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে ইংলিশ লিগ ম্যাচের তেমন কোনো গুরুত্ব নেই। কিন্তু তারা হয়তো ভুলে গেছে সামনে এফএ কাপের ফাইনাল। প্রতিপক্ষ আবার শক্তিশালী চেলসি। এই মুহূর্তে জয়ের ধারায় থাকাটা এখন খুবই জরুরি। কিন্তু মাঠের পারফরম্যান্স দেখে তা বোঝার উপায় নেই। ওয়েম্বলির ফাইনালের আগে রেড ডেভিল শিবির যেন আছে অনেকটা ছুটির আমেজে। এই সুযোগেই দুর্বল দল ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিয়ন ১-০ গোলে জিতে ম্যানইউর সম্মানের ১২টা বাজিয়ে ছেড়েছে। এখন চাইলেই ব্রাইটনের সমুদ্রসৈকতে বেরিয়ে আসতে পারে ম্যানইউ শিবির। নিশ্চিতভাবেই বলা যায়, সেখানে বেশ ভালো সমাদর পাবে তারা।

ক্লাবের ভালো চেয়েছিলেন কোচ মরিনহো। এফএ কাপের ফাইনালকে সামনে রেখে দলে ছয় পরিবর্তন এনে অ্যামেক্স স্টেডিয়ামের আতিথ্য নিয়ে ছিল ওল্ড ট্রাফোর্ড শিবির। এজন্য অতিথি ইউনাইটেডকে চড়া মূল্য দিতে হয়েছে লজ্জাজনক হারের তেতো স্বাদ হজম করে। প্রিমিয়ার লিগ জায়ান্টের এই সর্বনাশ ব্রাইটনের জন্য পৌষ মাসে রূপ নিয়েছে। এই জয়ের সুবাদে আগামী মৌসুমেও প্রিমিয়ার লিগে খেলার টিকেট নিশ্চিত করে ফেলেছে দ্য সিগালস শিবির। প্যাসকেল গ্রসের হেডের সুবাদে ১৯৮২ সালের পর এই প্রথম রেড ডেভিলদের বিপক্ষে জয় ছিনিয়ে নিল ব্রাইটন। অসাধারণ এই জয় দিয়ে পয়েন্ট তালিকার ১১তম স্থান উঠেছে ব্রাইটন। পয়েন্ট তালিকার তলানির তিন দলের চেয়ে পরিষ্কার আট পয়েন্টে এগিয়ে এখন তারা।

ম্যাচের পুরোটা সময়ই ব্রাইটনের ভক্ত সমর্থকরা একটা গানই গেয়ে গেছে। আর তা হলো ‘আমরা থেকে যাচ্ছি’। প্রিমিয়ার লিগে আগামী মৌসুমেও খেলে যাওয়ার প্রত্যয়ের কথাই সুর হয়ে বেরিয়েছে দর্শকদের কণ্ঠে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধভিত্তিক নির্মিত ‘দ্য গ্রেট এসক্যাপ’ সিনেমার থিম টিউন বেজেছে অ্যামেক্স স্টেডিয়ামে। আর ম্যাচ শেষে তো স্বাগতিকদের আনন্দের সীমা-পরিসীমা ছিল না। রীতিমতো ভেসেছে বাঁধ ভাঙা উচ্ছ্বাসে।

ইনজুরির কারণে ম্যাচে খেলতে পারেননি রোমেলু লুকাকু ও অ্যালেক্সিস সানচেজ।  অ্যান্থনি মার্শাল ও মার্কাস রাশফোর্ড মাঠেও থেকে কিছু করতে পারেননি। তবে কাজের কাজটি ঠিকই করে ফেলেছে ব্রাটন। হোসে ইজগুইয়েরদোর ক্রসে প্যাসকেল গ্রস মাথা স্পর্শ করতেই বল চলে যায় গোল মুখে। মার্কো রোহো বলটি ক্লিয়ার করেন ঠিকই। কিন্তু ততক্ষণে বল অতিক্রম করে ফেলেছে গোললাইন। ৫৭ মিনিটে গোললাইন প্রযুক্তি ম্যাচের একমাত্র জয়সূচকটি উপহার দিলে স্বাগতিক শিবিরে আনন্দের বন্যা বইয়ে যায়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads