• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
চাই বিশ্বসেরার মুকুট

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

সংরক্ষিত ছবি

ফুটবল

বিশেষ সাক্ষাৎকারে রোনালদো

চাই বিশ্বসেরার মুকুট

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০৬ জুন ২০১৮

ক্লাব ফুটবলে তার দল বিশ্বের অন্যতম সেরা। ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা জিতেছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু বিশ্বকাপে রোনালদোর দল পর্তুগাল কতটা নাম কুড়াবে, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। তবে রোনালদো বিশ্বকাপে অনেক ভালো করার আশা করছেন দল ও নিজেকে নিয়ে। তার এক সাক্ষাৎকারের বিশেষ বিশেষ অংশ তুলে ধরা হলো-

প্রশ্ন : চতুর্থ বিশ্বকাপ খেলতে চলেছেন। রাশিয়ায় আপনার থেকে কী প্রত্যাশা করব?

রোনালদো : আমরা প্রত্যেকে সেরা পারফরম্যান্স মেলে ধরার চেষ্টা করব। তবে এটা বিশ্বকাপ। স্পেন, ইরান ও মরক্কোর মতো কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছে গ্রুপে। তাই নকআউট পর্বে পৌঁছানোই পর্তুগালের প্রথম লক্ষ্য। তারপর অনেক কিছুই ঘটতে পারে।

প্রশ্ন : রাশিয়ায় কি নির্দিষ্ট স্বপ্ন ছাড়াই মাঠে নামবেন?

রোনালদো : দেখুন, প্রত্যেক ফুটবলারেরই লক্ষ্য থাকে বিশ্বকাপে খেলা। আর এটা আমার চতুর্থ বিশ্বকাপ হতে চলেছে। ক্যারিয়ার শুরু করার সময় এতদূর আসতে পারব বলে স্বপ্নও দেখিনি। সত্যি বলছি, ক্যারিয়ার এত ঝলমলে হবে তা কোনোদিন ভাবতে পারিনি। বিশ্বের সেরা দুটি ক্লাবে খেলার সুযোগ পেয়ে এবং একাধিক ট্রফি জিততে পেরে আমি ভাগ্যবান। ম্যানইউ এবং রিয়াল মাদ্রিদ আমায় পরিণত করেছে। জাতীয় দলের হয়েও ইউরো চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। বিশ্বকাপ জেতাও আমার স্বপ্ন। পরতে চাই বিশ্বসেরার মুকুট। আর তা পেলে দারুণ খুশি হব।

প্রশ্ন : ইউরো চ্যাম্পিয়ন বলে কি আসন্ন বিশ্বকাপে পর্তুগাল অন্যতম ফেভারিট?

রোনালদো : সত্যি কথা বলতে কি, আমরা ফেভারিটদের তালিকায় নেই। রাশিয়ায় সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়নদের মধ্যে থাকবে গতবারের বিজয়ী জার্মানি, ব্রাজিল, স্পেন ও আর্জেন্টিনা। প্রত্যেকটি দেশেরই যথেষ্ট ওজন রয়েছে। তবে ফুটবলে ভবিষ্যদ্বাণী করা সম্ভব নয়। দিনের পারফরম্যান্সের উপরেই সবকিছু নির্ভর করে। আর আমরা সেরাটা দেওয়ার জন্য তৈরি।

প্রশ্ন : রাশিয়ায় আপনাদের প্রথম ম্যাচ স্পেনের বিরুদ্ধে। প্রতিদ্বন্দ্বী দলে থাকবেন রিয়াল মাদ্রিদের আপনার একাধিক সহ-ফুটবলার। বিশেষত রামোসের বিরুদ্ধে খেলা কতটা চ্যালেঞ্জিং?

রোনালদো : ওই ৯০ মিনিট আমার মতো রামোসও ভুলে যাবে রিয়াল মাদ্রিদে আমাদের সম্পর্কের কথা। ম্যাচের পরে আমরা অবশ্যই বন্ধু। কিন্তু জাতীয় দলের জার্সিতে তা প্রভাব ফেলবে না।

প্রশ্ন : বিশ্বকাপের শুরুতেই আইবেরিয়ান ডার্বি সমর্থকদের কাছেও বিরাট বড় ব্যাপার। এই প্রসঙ্গে আপনি কী বলবেন?

রোনালদো : ফুটবল মাঠে পর্তুগাল এবং স্পেনের দ্বৈরথ বহুদিন ধরেই। দুটি দেশের সমর্থকরাই এই ম্যাচ দেখার জন্য উন্মুখ হয়ে থাকেন। বর্তমানে ফিফা র্যাঙ্কিংয়ে স্পেনের থেকে আমরা এগিয়ে। তবে তার মানে আমরাই জিতব, এটা ধরে নেওয়া উচিত নয়। মনে রাখবেন, একাধিক গ্রেট ফুটবলার রয়েছে বলেই স্পেন এবার অন্যতম ফেভারিট।

প্রশ্ন : চার বছর আগে ব্রাজিলে আপনারা প্রথম ম্যাচে জার্মানির কাছে হেরেছিলেন। সেবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল জোয়াকিম লো’র দলই। কী প্রতিক্রিয়া?

রোনালদো : এবারো আমাদের হারিয়ে স্পেন শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন হলে তা হবে কাকতালীয়। তবে সেটা এখনই বলার বা ভাবার সময় আসেনি। ব্রাজিল বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে জার্মানির বিরুদ্ধে আমরা পরিকল্পনামাফিক খেলতেই পারিনি। তবে রাশিয়ায় সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না। ইউরো জয়ের পর পর্তুগালের আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বেড়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads