• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
বিশ্বকাপ ফাইনালে মাঠে থাকবে না ওরা ১৩ জন

বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচের ভেন্যু মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়াম

ছবি সংগৃহীত

ফুটবল

বিশ্বকাপ ফাইনালে মাঠে থাকবে না ওরা ১৩ জন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১০ জুলাই ২০১৮

থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহায় আটকা কিশোরদের সময়মতো গুহা থেকে বের করে আনা গেলে তাদের বিশ্বকাপ ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন ফিফা সভাপতি। তবে উদ্ধার পাওয়ার পর ওই কিশোরদের এক সপ্তাহ হাসপাতালে রাখতে চান চিকিৎসকরা। মঙ্গলবার পর্যন্ত গুহায় আটকা ওই কিশোর ফুটবল দলের আট সদস্যকে উদ্ধার করে এনেছেন উদ্ধারকারীরা। উদ্ধার করে আনার পর থেকে তাদের হাসপাতালে রাখা হয়েছে। বেশ কয়েকদিন না খেয়ে থাকার কারণে তারা শারীরিকভাবে কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে। পাশাপাশি গুহায় থাকা বাদুর ও ইঁদুরের কারণে ওই বালকদের সংক্রামক রোগ হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর এ কারণেই তাদের হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও তাদের দেখা করতে দেওয়া হয়নি।

এদিকে ১৫ জুলাই মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়ামে চলতি রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে। তাই ধারণা করা হচ্ছে ফিফার ওই আমন্ত্রণ গ্রহণ করতে পারবে না ওই কিশোর ফুটবলাররা।

ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলছিলেন যে, মস্কোয় রাশিয়া ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালে থাই ওই দলের কোচসহ ১৩ জনের জন্য আসন বরাদ্দ থাকবে। তারা সময়মত উদ্ধার পেলে খেলা দেখতে পারবে মাঠে বসে।

কিন্তু সেটা হবার সম্ভাবনা যেহেতু কম তাই প্রশ্ন থাকছে, যে আসনগুলো বরাদ্দ দেওয়ার ঘোষণা ফিফা সভাপতি দিয়ে ছিলেন সেগুলো কি খালিই থাকবে? নাকি সেই আসনগুলোর বিশেষ মূল্য ধরে বিক্রি করে সেই অর্থ কিশোরদের ফুটবল উন্নয়নে অনুদান হিসেবে দেবে ফিফা?

ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনালে এভাবে কারো সম্মানে আসন খালি রেখে দেওয়ার নজির নেই। তবে ফিফা চাইলে ওই আসনগুলো বিভিন্ন সেক্টরের তারকাদের বরাদ্দ দিতে পারে। আর সেই অর্থ পাঠাতে পারে থাই কিশোরদের ফুটবল উন্নয়নে।

প্রসঙ্গত, ১২ জন কিশোর ফুটবলার তাদের টিমের কোচসহ গুহার ভেতরে গিয়েছিল শনিবার, ২৩শে জুন। ফুটবল প্র্যাকটিস করতে সকাল দশটার দিকে ন্যাশনাল পার্কে গিয়েছিল।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হচ্ছে, প্র্যাকটিস শেষ হয়ে যাওয়ার পর ফুটবলের দলের একজন সদস্যের জন্যে সারপ্রাইজ পার্টির আয়োজন করতে তারা গুহার ভেতরে ঢুকেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কিন্তু সেই সারপ্রাইজ পার্টিই নিজেদের জীবনের জন্য বড় সারপ্রাইজ তা হয়তো জানা ছিল না তাদের। তবে আশার কথা আজ অবধি আটকে পড়া ওই কিশোরদের মধ্যে আটজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, ওরা ভালো আছে।

গুহায় থাকা বাকি চার কিশোর ও তাদের পূণবয়স্ক ফুটবল কোচকে বের করে আনতে আজ ফের অভিযান শুরু করা হয়েছে। এই পাঁচ জনকে একসঙ্গে বের করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads