• মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮, ২ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
ক্রোয়েশিয়ার প্রথম, না ইংল্যান্ডের দ্বিতীয়

মস্কোর লঝনিকি স্টেডিয়াম। সেমিতে এখানেই লড়বে ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া। ফাইনালের ভেন্যুও এটি

ছবি : ইন্টারনেট

ফুটবল

ক্রোয়েশিয়ার প্রথম, না ইংল্যান্ডের দ্বিতীয়

  • মাহমুদুন্নবী চঞ্চল
  • প্রকাশিত ১১ জুলাই ২০১৮

অপেক্ষার প্রহর দীর্ঘই, অর্ধ শতাব্দী। গুনে গুনে ৫২ বছরের আকুতি। হয়নি সেমিফাইনালের চৌকাঠ পেরোনো। ফাইনালের মঞ্চ অধরাই থেকেছে। বার বার থমকে গেছে স্বপ্ন, বেড়েছে হা-হুতাশ। জিওফ হার্স্ট থেকে এবার হ্যারি কেন; ইংল্যান্ডের দুই প্রজন্মের মেলবন্ধনে কি ফুটবে হাসি?

ইংল্যান্ডের চেয়ে ক্রোয়েশিয়ার আকুতি আরো বেশি। ইংলিশরা অপেক্ষায় দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলতে। সেখানে ক্রোয়েশিয়ার চোখে প্রথমবারের মতো ফাইনালে খেলার রঙিন স্বপ্ন। বিশ্বকাপ মঞ্চে ক্রোয়েটদের সর্বোচ্চ দৌড় সেমিফাইনাল। প্রথম সাফল্যে জড়িয়ে আছে ডেভর সুকারের নাম। ১৯৯৮ বিশ্বকাপে গোল্ডেন বুট জয়ী এ স্ট্রাইকার জাদুতে শেষ চারে নাম লিখিয়েছিল ক্রোয়েশিয়া। তবে ফাইনালে ওঠা হয়নি, ফ্রান্সের কাছে হেরে।

২০ বছর পর বিশ্বকাপের সেমিতে আবার ক্রোয়েশিয়া। সেই ডেভর সুকার এখন ক্রোয়েশিয়া ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি। তবে মাঠে সাফল্যের রেণু ছড়ানোর নায়ক মডরিচ, মানজুকিচ, রাকিটিচরা। সুকার থেকে মডরিচ, দুই প্রজন্মের চোখে স্বপ্ন একটাই, খেলতে হবে ফাইনাল।

মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে আজ রাত ১২টায় রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া। এ মাঠেই হবে বিশ্বকাপ ফাইনাল। ১৫ জুন সেই ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া না ইংল্যান্ড খেলবে, তা ফুটবল বিধাতা হয়তো লিখে রেখেছেন। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে কেউ কাউকে ছাড় দেবে না বিন্দুমাত্র, তা অনুমেয়। ধুন্ধুমার একটি ম্যাচের জন্যই যেন অপেক্ষায় গোটা বিশ্ব।

ইউরোপের দুটি দল আজ মুখোমুখি। পরিসংখ্যানের বিচারে দুই দল প্রায়ই সমান। তবে মিডিয়ার কারণে বেশি আলোচিত ইংল্যান্ড। আবার তাদের নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে একটি বিশ্বকাপও। ১৯৬৬ বিশ্বকাপে স্বাগতিক ছিল ইংল্যান্ড, শিরোপায় চুমুও খেয়েছিল তারা। এরপর শিরোপা দূরে থাক, ফাইনালই খেলা হয়নি। ২৪ বছর পর ১৯৯০ বিশ্বকাপে সেমিতে উঠলেও আর্জেন্টিনার কাছে হার। এরপর ২৮ বছরের অপেক্ষার পর রাশিয়া বিশ্বকাপের সেমিতে ইংল্যান্ড।

এবার ইংল্যান্ড ফাইনালে উঠতে না পারলে তা হবে অঘটন। এমন কথা ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলার জিওফ হার্স্টের। নিজেদের ছেষট্টির দলটির সঙ্গে অনেক মিলও খুঁজে পাচ্ছেন তিনি। তার মতে, এ দলে হয়তো ববি মুর কিংবা ববি চার্লটনের মতো তারকা নেই, কিন্তু চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো রসদ আছে। হ্যারি কেনের ভক্ত হার্স্ট বলেছেন, ‘হ্যারি খেলোয়াড় হিসেবে অসাধারণ। আবার বিনয়ীও। ইংল্যান্ডের সব রেকর্ড ভেঙে দেওয়ার ক্ষমতা তার আছে।’ হার্স্টের মতে, এ দলটির বিশ্বকাপ না জেতার কোনো কারণ নেই। ফাইনালে না ওঠাটা হবে ইংল্যান্ডের জন্য বড় অঘটন।

কিন্তু প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়াকে হালকা দেখলে বিপদ বাড়বে ইংল্যান্ডের। সেমিতে উঠে আসা ক্রোয়েটদের জন্য ফ্লুক ছিল না। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন, তিন ম্যাচেই জয়। শেষ ষোলো ও কোয়ার্টার ফাইনালের বৈতরণী পার হয়েছে ক্রোয়েশিয়া টাইব্রেকার-ভাগ্যে। মানে এখন পর্যন্ত ক্রোয়েশিয়া হারের মুখ দেখেনি। কিন্তু ইংল্যান্ড হেরেছে গ্রুপ পর্বেই বেলজিয়ামের কাছে। শেষ ষোলোতে কলম্বিয়ার সঙ্গে ইংলিশদের টাইব্রেকারে জয়। কোয়ার্টার ফাইনালে ২-০ গোলের জয় আসে সুইডেনের বিরুদ্ধে।

পরিসংখ্যানে কিছুটা এগিয়ে থাকছে ইংল্যান্ড। সাতবারের মোকাবেলায় চারটি জয় ইংল্যান্ডের, দুটি ক্রোয়েশিয়ার। এক ম্যাচ ড্র। বিশ্বকাপে এটাই তাদের প্রথম সাক্ষাৎ হতে যাচ্ছে। তবে আন্তর্জাতিক কোনো টুর্নামেন্টে দুই দলের একমাত্র দেখাটা হয়েছিল ২০০৪ সালের ইউরোয়। স্মৃতিটা মধুর ক্রোয়েশিয়ার জন্য। সেবার ৪-২ গোলে হেরেছিল ইংল্যান্ড।

চোট ইস্যুতে স্বস্তিতে ইংল্যান্ড। কোনো ইনজুরি নেই। সুইডেনের বিরুদ্ধে জয়ী একাদশই খেলবে ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে। সেদিক থেকে অস্বস্তিতে ক্রোয়েশিয়া। ইনজুরির কারণে শতভাগ ফিট নন রাইট ব্যাক সিমে ভ্রাসালিজকো। শঙ্কা বাড়াচ্ছে গোলরক্ষক ড্যানিজেল সুবাসিচের উরুর চোট। তবে অধিনায়ক লুকা মডরিচ, ইভান রাকিটিচ, মারিও মানজুকিচদের ফর্ম আশার পালে হাওয়া দিচ্ছে জোর তালে।

ইংল্যান্ডের বড় ভরসার নাম তো হ্যারি কেন। নাম হ্যারি কেন হলেও দ্যুতির বিচ্ছুরণে চকিত সবাই। ৬ গোল করে গোল্ডেন বুটের জোর দাবিদার। কোয়ার্টার ফাইনালে গোলের দেখা না পাওয়া হ্যারি কেন আজ ক্রোয়েশিয়ার জন্য মাথা ব্যথার কারণ হতে পারেন। এ ছাড়া আছেন রাহিম স্টারলিং, দেলে আলি, রাশফোর্ডরা। গোলপোস্টের নিচে অতন্দ্র প্রহরী পিকফোর্ড তো বিশ্বস্ততার প্রতীক।

সব মিলিয়ে ফাইনালে ওঠার আগে লুঝনিকিতে বাজছে যুদ্ধের দামামা। শুরুর অপেক্ষায় ময়দানি লড়াই। শেষ পর্যন্ত ফাইনালের টিকেট মিলবে কোন দলের হাতে? প্রথমবারের মতো ক্রোয়েশিয়া নাকি দ্বিতীয়বারের মতো ইংল্যান্ড- সময়ই বলে দেবে সব। অপেক্ষা কয়েক ঘণ্টার।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads