• বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
হিটেই বাদ খাদিজা

বাছাই পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হলো সাঁতারু খাদিজা আক্তার বৃষ্টিকে

সংগৃহীত ছবি

খেলা

হিটেই বাদ খাদিজা

পুলে নামেননি সাগর

  • প্রকাশিত ২০ আগস্ট ২০১৮

ইন্দোনেশিয়া থেকে প্রতিনিধি

প্রত্যাশা ছিল হিট উতরে মূল পর্বে খেলার। কিন্তু সেটা আর হয়ে ওঠেনি। বাছাই পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হলো সাঁতারু খাদিজা আক্তার বৃষ্টিকে। গতকাল জিবিকে অ্যাকুয়াটিক সেন্টারে নিজের প্রিয় ইভেন্ট ১০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোকে ২৬ জনের মধ্যে ২৪তম (!) হয়েই পুল থেকে উঠে আসতে হলো মাত্র ১৬ বছর বয়সী এই সাঁতারুকে। তাও আবার নিজের ব্যক্তিগত সেরা টাইমিংয়ের চেয়েও অনেক বেশি সময় নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার ৫০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোক ও শুক্রবার ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে আবারো পুলে নামবেন বৃষ্টি। আরেক সাঁতারু মাহফিজুর রহমান সাগর পুলেই নামেননি। ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে লড়াইয়ের কথা ছিল তার। কিন্তু অনুশীলনের অপর্যাপ্ততার কারণে পুলে নামতে রাজি হননি পাবনার এ সাঁতারু।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর আগে লড়াইয়ের কোনো অভিজ্ঞতাই ছিল না বৃষ্টির। প্রথম মঞ্চ হিসেবে পেয়ে গেলেন এশিয়ান গেমসের মতো বড় আসরকে। তাই হয়তো চাপটা সামলাতে পারেননি এ সাঁতারু। জিবিকে অ্যাকুয়াটিক সেন্টারের পুলে নেমে দুই নম্বর হিটে খাদিজা ছিলেন এক নম্বর লেনে। হিটে ফিনিশিং লাইন টাচ করলেন ১ মিনিট ২৭ দশমিক ২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে। অথচ তার ব্যক্তিগত সেরা টাইমিং  ছিল ১ মিনিট ২২ দশমিক ৭২ সেকেন্ড। বিকেএসপির এ সাঁতারু যে কতটা চাপের মধ্যে ছিলেন সেটা ফুটে ওঠে পুলে। হিটে বাদ পড়ে হতাশায় নিমজ্জিত বৃষ্টি বলেন, পর্যাপ্ত অনুশীলনের অভাব আর সঙ্গে কোচ না আসায় তার পারফরম্যান্স খারাপ হয়েছে। তিনি বলেন, ‘সুযোগ-সুবিধার অভাবে ঢাকায় আমি খুব একটা ভালো অনুশীলন করতে পারিনি। সুইমিং পুল প্রস্তুত ছিল না, এমনকি সেখানে পানির সমস্যাও ছিল। তাছাড়া এখানে কোচ সঙ্গে না আসায় ভালো দিকনির্দেশনা পাইনি।’

এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ থেকে দুজন সাঁতারু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মাহফিজুর রহমান সাগর আর খাদিজা। গতকাল সাগর ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইলের হিটেই নামেননি অনুশীলনের অভাবের অভিযোগ তুলে। সাগর বলেন, ‘ঢাকা থেকে ফ্লাইট বিলম্বিত হয়েছিল। তাই জাকার্তায় এসে অনুশীলনের জন্য পর্যাপ্ত সময় পাইনি। সেজন্যই ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিই।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads