• বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
ads

ফুটবল

রিয়ালের সেভিয়া জয়

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গুনে গুনে চারটি বছর। সেভিয়ার মাটি যেন ছিল দুর্ভেদ্য। একটি জয়ও পায়নি রিয়াল মাদ্রিদ। কখনো হার, কখনো বা ড্রয়ের সান্ত্বনা নিয়ে ফিরতে হয়েছে লস ব্ল্যাংকসদের। সেই অপেক্ষা এবার ফুরোল। চার বছর পর সেভিয়ার মাঠ থেকে জয় নিয়ে ফিরেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো থাকাকালীনও এস্তাদিও রামোন সানচেজ থেকে জয় নিয়ে ফেরাটা দুঃস্বপ্ন ছিল রিয়ালের কাছে। গেল মৌসুমেও এই মাঠেই ৩-০ গোলে পরাজিত হয়ে ফিরতে হয়েছিল স্প্যানিশ জায়ান্টদের। তবে এবার করিম বেনজেমার একমাত্র গোলে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই সেভিয়ার মাঠ থেকে ফিরেছে মাদ্রিদের দলটি।

রামোন সানচেজ স্টেডিয়ামে লা লিগায় এই ম্যাচে প্রথম শুরুর একাদশে ছিলেন এডেন হ্যাজার্ড। আর সেই সঙ্গে দলে ফিরেছেন অধিনায়ক সার্জিও রামোস। রিয়ালের বিপক্ষে শুরু থেকেই দারুণ খেলতে থাকে রিয়ালেরই সাবেক কোচ হুলেন লোপেতেগুইর শিষ্যরা। তবে প্রথমার্ধে কোনো দলই সুযোগ তৈরি করতে পারেনি।

রিয়ালের মধ্যমাঠ ঠিক আগের মতোই ছন্নছাড়া, তবে রামোস ফেরায় রক্ষণভাগ ছিল দৃঢ়। আর রক্ষণের দৃঢ়তার কারণেই সেভিয়া সুবিধা করে উঠতে পারেনি। প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্যতেই। বিরতি শেষে রিয়াল ফেরে আরো ভয়ংকর হয়ে। দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ১৫ মিনিট যেন এক অনন্য রিয়াল মাদ্রিদকে দেখেছে সমর্থকরা। একের পর এক আক্রমণ করেও অবশ্য গোলের দেখা পায়নি তখনো।

এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলদাতা করিম বেনজেমা। রিয়ালের হয়ে পাঁচ ম্যাচে করেছেন পাঁচ গোল। আর সেভিয়ার বিপক্ষেও দলের একমাত্র গোলটি তার। ম্যাচের ৬৩ মিনিটে গ্যারেথ বেলের বাড়ানো বল পেয়ে যান ওভারল্যাপ করা ড্যানিয়েল কারভাহাল। সেভিয়ার ডি বক্সে ঢুকে মাপা ক্রস বেনজেমার উদ্দেশে। আর সেভিয়ার দুই ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে বল জালে জড়াতে একদমই ভুল করেননি এই স্ট্রাইকার। হেডে গোল করে দলকে লিড এনে দেন।

চলতি মৌসুমে রিয়ালের হয়ে এটি ছিল কারভাহালের তৃতীয় অ্যাসিস্ট। রিয়ালের হয়ে সর্বোচ্চ তো বটেই, লা লিগায় চলতি মৌসুমে সর্বোচ্চ অ্যাসিস্টও এই স্প্যানিশ ফুলব্যাকের। তবে এর আগে বেশ কয়েকটি সুযোগ এলেও কাজে লাগাতে পারেনি রিয়াল। বেনজেমার থ্রু পাস থেকে দারুণ এক বল পান এডেন হ্যাজার্ড। তবে ড্রিবল করে বল নিয়ে শট করলে তা পরাস্থ করেন সেভিয়ার গোলরক্ষক টমাস ভ্যাক্লিক।

এরপর আরো সুযোগ আসে লস ব্ল্যাঙ্কোসদের। হামেস রদ্রিগেজের দারুণ এক পাসে বল পেয়ে যান কারভাহাল। সেভিয়ার রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের ফাঁকি দিয়ে ঢুকে পড়েন ডি বক্সেও, তবে বাজে এক শটে গোল বঞ্চিত হন তিনি। আর তাই তো তখনো লিড থেকে যায় ১-০। ম্যাচে ফিরতে মরিয়া সেভিয়া তখন বদলি খেলোয়াড় হিসেবে আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ই নামিয়ে চলেছে। আর আক্রমণভাগ কাজও করে ফেলেছিল, তবে তা অফসাইডের খাতায় পড়ে বাতিল হয়ে যায়। ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে ৮৮ মিনিটে সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ স্ট্রাইকার চিরচরিত হার্নান্দেজ গোল করে বসেন সেভিয়ার হয়ে। তবে তা বাতিল হয় অফসাইডের কারণে। আর অতিরিক্ত সময়ে কোনো গোল না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ১-০ গোলের জয়ে নিয়েই মাঠ ছাড়ে রিয়াল মাদ্রিদ।

এ বছরের ফেব্রুয়ারির পর এই প্রথম ক্লিনশিটের দেখা পেলেন রিয়ালের বেলজিয়ান গোলকিপার থিবো কোর্তোয়া। আর চলতি মৌসুমে প্রথম ক্লিনশিট পেল রিয়াল মাদ্রিদ। লা লিগার এবারের মৌসুমে পাঁচ ম্যাচে তিন জয় আর দুই ড্রয়ে ১১ পয়েন্ট রিয়াল মাদ্রিদের। সমান পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে অবস্থান করছে অ্যাথলেটিক ক্লাব বিলবাওয়ের সঙ্গে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads