• মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭
মেসিকে নিয়ে উল্টো কথা

সংগৃহীত ছবি

ফুটবল

মেসিকে নিয়ে উল্টো কথা

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৫ নভেম্বর ২০২০

২০১৯ সালের দলবদলে ১২০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে বার্সায় যোগ দেন ফরাসি তারকা আন্তোনিও গ্রিজম্যান। তবে বার্সায় যোগ দেওয়ার পর থেকে মেসির সঙ্গে সম্পর্ক খুব একটা ভালো যাচ্ছে না গ্রিজির। কিন্তু এক সাক্ষাৎকারে এসে সম্পূর্ণ ভিন্ন এক কথা বললেন তিনি। একই সঙ্গে অবাক করে দিলেন সবাইকে।

২০১৮ সালেই ন্যু ক্যাম্পে আসার সুযোগ পেয়েছিলেন। ওই সময় মেসি নিজে সবার সামনে গ্রিজম্যানকে বার্সায় নিয়ে আসার জন্য বলেছিলেন মেসি। তিনি নিজে খুব করে চেয়েছিলেন, ফরাসি এই তারকা বার্সায় আসুক। কিন্তু সেবার বার্সার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে থেকে যাওয়াকেই প্রাধান্য দেন। বার্সার প্রস্তাব যখন গ্রিজম্যান ফিরিয়ে দেন, তখন সেটা শুনে খুব কষ্ট পেয়েছিলেন মেসি। গ্রিজম্যানের ভাষায়, ‘বার্সার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছি শুনে মেসির মাথাই নষ্ট হয়ে গিয়েছিল সে সময়।’

রিয়াল মাদ্রিদ কিংবদন্তি জর্জ ভালদানোর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে গ্রিজম্যান বলেন, ‘যখন আমি বার্সায় আসি তখন মেসির সঙ্গে কথা বলেছিলাম। তখন তিনি আমাকে বলেছিলেন, যে সময় আমি বার্সার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলাম, তখন তিনি খুব হতাশ হয়েছিলেন। কারণ, মেসি সবার সামনেই আমাকে ন্যু ক্যাম্পে নেওয়ার কথা বলেছিল।’

বার্সায় আসার বিষয়ে একটি ডকুমেন্টারি তৈরি করেন গ্রিজম্যান। যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ডিসিশন’। তিনি বলেন, ‘এক ক্লাব থেকে আরেক ক্লাবে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়াটা যে খুব কঠিন-সেটাই দেখাতে চেয়েছিলাম। মানুষ মনে করে এটা ছিল একটা ফান গেম। আমি শুধু দেখাতে চেয়েছি যে, একজন খেলোয়াড় যখন জানে না তার কী করতে হবে কিংবা কী সিদ্ধান্ত নেবে। আপনার স্ত্রী, মামা-বাবা, সন্তান সবার সঙ্গে কথা বলেই সিদ্ধান্ত নিতে হয়-এমন একটা পরিস্থিতি তৈরি হয় অনেক সময়।’

গ্রিজম্যানের পরিবারের মানুষরাও তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে গিয়েছিলেন সেই ডকুমেন্টারি প্রকাশ পাওয়ার পর। তিনি বলেন, ‘আমার পরিবারের মানুষরাও খুব ক্ষেপে গিয়েছিলেন, কারণ তারা বুঝতেই পারছিলেন না, আসলে আমি কী করতে চাচ্ছি। কারণ, তারা চাচ্ছিল যেন আমি বার্সেলোনায় যাই।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads