• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮
আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে এবার পেয়াঁজ আমদানি

ফাইল ছবি

আমদানি-রফতানি

আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে এবার পেয়াঁজ আমদানি

  • আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৯ আগস্ট ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে গম আমদানীর পর এবার পেয়াঁজ আমদানি হয়েছে। ঢাকার শওগাত ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল ২৪.২৫০ মেট্রিক টন পিয়াজ ভারত থেকে আমদানি করেন। এই প্রথম এ বন্দর দিয়ে পেয়াঁজ আমদানি হলো। আমাদানিকারক প্রতিষ্ঠান রোববার দুপুরে আখাউড়া স্থলবন্দরের গুদাম থেকে ২টি ট্রাকে করে আমদানীকৃত পিয়াজগুলো নিয়ে যান। এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ত্রিপুরার আগরতলা স্থল বন্দর থেকে পেয়াঁজ নিয়ে একটি ট্রাক আখাউড়া বন্দরে প্রবেশ করে।

পেঁয়াজের সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠান স্থলবন্দরের মা-মনি এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. ইলিয়াস মিয়া বলেন, আখাউড়া বন্দর চালু হওয়ার দীর্ঘ ২৭ বছর পর প্রথমবারের মতো ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে। আমদানিকরা পেয়াঁজের মূল্য প্রায় সাড়ে ৫ লাখ টাকা।

স্থল বন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম বলেন, অন্যান্য স্থলবন্দরের মতো এ বন্দর দিয়ে সব ধরনের পণ্য আমদানীর অনুমোদন পেলে সরকারের রাজস্ব আয় বাড়বে পাশাপাশি ব্যবসায়ীরা লাভবান হবে ও স্থলবন্দরটি চাঙা হয়ে উঠবে।

আখাউড়া স্থলবন্দর সুপার মোঃ সামাউল ইসলাম বলেন, পেয়াঁজ আমদানী থেকে বন্দরের মাসুল আদায় হয়েছে ৪ হাজার ৫১১.৮২ টাকা। আমদানী বেশি করে হলে বন্দরের মাশুল এবং রাজস্ব আয় বাড়বে।

এর আগে এ বন্দর দিয়ে প্রথমবারের মত গম আমদানী হয়।

উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের আন্তঃবাণিজ্য সম্প্রসারণে ১৯৯৪ সালে এস্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য ও পাসপোর্ট যাত্রী পারাপার কার্যক্রম শুরু হয়। যাত্রা শুরুর পর থেকেই শুঁটকি, হিমায়িত মাছ, সিমেন্ট, সয়াবিন তেল, প্লাস্টিক সামগ্রী, পাথরসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্তত ৪২টি পণ্য ত্রিপুরাসহ ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চল রাজ্যগুলোতে রপ্তানি হয়ে আসছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads