• বুধবার, ৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯
বাঘার ক্ষীরসাপাতি যাচ্ছে ইউরোপে

ছবি: বাংলাদেশের খবর

আমদানি-রফতানি

বাঘার ক্ষীরসাপাতি যাচ্ছে ইউরোপে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৩ জুন ২০২২

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি

বাঘা উপজেলার হিমসাগর বা ক্ষীরসাপাতি আম রপ্তানি হচ্ছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। চলতি মৌসুমে ২০ জন চাষীর কাছ থেকে ১৫০ থেকে ২০০ টন আম বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে বলে জানান কন্ট্রাক্ট ফার্মার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শফিকুল ইসলাম ছানা। তিনি জানান, গত বুধবার বাঘার চাষী শফিকুল ইসলাম ছানার দেড় টন ক্ষীরসাপাতি বা হিমসাগর আম বিদেশে রপ্তানি করা হয়। এই আম যাবে ইংল্যান্ড ও হংকং। বাঘার পাকুড়িয়ায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) তাজুল ইসলাম পাটোয়ারী ও উপজেলা কৃষি কার্যালয়ের শফিউল্লাহ সুলতান বিদেশে আম রপ্তানি কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এ সময় আমচাষিরা উপস্থিত ছিলেন।

শফিকুল ইসলাম ছানা বলেন, রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এবার ২০ জন চাষি ১৫০ থেকে ২০০ টন আম বিদেশে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। প্রথম দিন বুধবার দেড় টন হিমসাগর আম রপ্তানি হয়েছে। এসব আম উত্তম কৃষি ব্যবস্থাপনা অনুসরণ করে অনুসরণ করে উৎপাদন করা হয়েছে। ব্যাগিং আম ৪ হাজার টাকা মণ এবং নন ব্যাগিং আম সাড়ে ৩ হাজার টাকা মণ দরে রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান আমাদের কাছ থেকে কিনে নিয়েছে। তিনি জানান, প্রশিক্ষপ্রাপ্ত চুক্তিভিক্তিক বাঘার ২০ জন চাষি উত্তম কৃষি ব্যবস্থাপনা অনুসরণ করে এই আম উৎপাদন করছেন। এসব আম যাবে ইংল্যান্ড ছাড়াও সুইজারল্যান্ড, ডেনমার্ক, ইতালি, ফ্রান্সসহ বিভিন্ন দেশে। প্রথমে হিমসাগর বা ক্ষীরসাপাতি দিয়ে রপ্তানি শুরু হলো। এরপর ল্যাংড়া, আম্রপালি, ফজলি, তোতাপরী, লক্ষণভোগ আমও বিদেশে যাবে।

উপজেলা কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা শফিউল্লাহ সুলতান বলেন, আম রপ্তানির জন্য উপজেলার ২০ জন চাষিকে কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তর প্রশিক্ষণ দিয়েছে। চাষিরা বিদেশ আম পাঠাতে পারলে আরো উৎসাহিত হবেন।

কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) তাজুল ইসলাম পাটোয়ারী বলেন, কৃষকদের আয় বাড়ানোই আমাদের লক্ষ্য।

আরও পড়ুন

বিশ্ব

অর্থ সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

  • আপডেট ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বিশ্ব

ইরানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৬

  • আপডেট ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২

দুর্ঘটনা

রাজধানীতে সড়কে ঝরলো ২ প্রাণ

  • আপডেট ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২


বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads