• শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
রেমিট্যান্সের পর রপ্তানি আয়েও বাজিমাত

সংগৃহীত ছবি

আমদানি-রফতানি

রেমিট্যান্সের পর রপ্তানি আয়েও বাজিমাত

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০২ আগস্ট ২০২২

প্রবাসী আয়ের (রেমিট্যান্স) পর রপ্তানি আয়েও বড় ধরনের উল্লম্ফন হয়েছে। অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তানি করে প্রায় ৪ বিলিয়ন ডলার দেশে এসেছে।ফলে রেমিট্যান্স আর রপ্তানিতে বাজিমাত করে নতুন অর্থবছর ২০২২-২৩ শুরু করল বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুারোর (ইপিবি) মাসিক পরিসংখ্যান প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করে।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, বিগত অর্থবছরের প্রথম মাসের (জুলাই) তুলনায় চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের জুলাইয়ে রপ্তানি বেড়েছে ১৪ দশমিক ৭২ শতাংশ। এ প্রবৃদ্ধিতে বরাবরের মতোই অবদান বেশি রেখেছে তৈরি পোশাক পণ্য।

জুলাই মাসে পোশাক পণ্যের রপ্তানি হয়েছে ৩৩৬ কোটি ৬৯ লাখ ১০ হাজার ডলারের।এ হিসেবে মোট রপ্তানির ৮৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ পোশাক পণ্য। এ পণ্যটির রপ্তানি গত অর্থবছরের জুলাই মাসের তুলনায় ১৬ দশমিক ৬১ শতাংশ বেড়েছে। আলোচ্য সময়ে ওভেন পোশাক রপ্তানি বেড়েছে ২৩ দশমিক ১১ শতাংশ এবং নিওয়্যার ১১ দশমিক ৮০ শতাংশ।

রপ্তানিমূখী তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর পরিচালক মো. মহিউদ্দিন রুবেল বলেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতি এবং উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওয়ার এই সময়ে অর্জিত রপ্তানি প্রবৃদ্ধি আমাদের শিল্পের স্থিতিস্থাপকতা দেখাচ্ছে। তবে এ খাতের শিল্পোদ্যোক্তারা উন্নত বিশ্বের অর্থনৈতিক মন্দার বিষয়ে সতর্ক আছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

গত ২০২১-২২ অর্থবছরে প্রথমবারের মতো ৫০ বিলিয়ন ডলারের মাইলফলক পেরিয়ে ৫২ বিলিয়ন ডলারের পণ্য আন্তর্জাতিক বাজারে রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ। সমাপ্ত অর্থবছরের শেষ মাস জুনে রফতানি প্রবৃদ্ধি ছিল ৩৭ দশমিক ১৯ শতাংশ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads