• সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ৪ জৈষ্ঠ ১৪২৮

ক্যাম্পাস

বশেমুরবিপ্রবির ইইই বিভাগের কক্ষে তালা, সকল শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা

  • বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৫ জানুয়ারি ২০২১

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা ইটিই বিভাগকে ইইই বিভাগের সাথে একীভূতকরণের বিপক্ষে আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিভাগের সকল পরীক্ষাসহ একাডেমিক এবং প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে। সমস্যার সমাধান না হলে ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদে তালা মারারও হুশিয়ারি দিয়েছেন তারা।

আজ সোমবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে ইইই বিভাগের সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিভাগের কক্ষে তালা ঝুলিয়ে কক্ষের সামনে বিভিন্ন ব্যানার নিয়ে বসে প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়। এসময় তারা ক্ষোভ প্রকাশের করে সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের জন্য প্রশাসনকে আহ্বান জানান। 

এ বিষয়ে ইইই বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শামীম রেজা বলেন, প্রশাসন ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীদের মতামতের ভিত্তিতে ইইই তে রূপান্তর করার একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে যাচ্ছে। আশ্চর্যের বিষয় হল, এই সিদ্ধান্তের ব্যাপারে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীদের সাথে কোন আলোচনা করেনি। করোনা পরিস্থিতির আগে এবং গত ৩১ ডিসেম্বর ২০২০, ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা প্রশাসনের কাছে  স্মারকলিপি জমা দিয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সেই স্মারকলিপির ব্যাখা এখনো দেয়নি এবং ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

এছাড়া তিনি সুনির্দিষ্ট কোনো নীতিমালা প্রণয়ন এবং সেই নীতিমালার সঙ্গে 'ইইই' বিভাগ বা সকল সাধারণ শিক্ষার্থীদের মতামত ছাড়া 'ইটিই' বিভাগকে 'ইইই'-তে রূপান্তরের সিদ্ধান্ত গ্রহণের পদক্ষেপ কতটা যুক্তিযুক্ত তা সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসনের কাছে জানতে চান।

একই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মিশন দাশ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রমের ৮ বছরের মধ্যেই একটি বিভাগকে বারবার পরিবর্তন, সেই বিভাগের প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কোন সুপ্ত দুর্বলতাকে আখ্যায়িত করে। একটি বিভাগের প্রতি কেন এত সুপ্ত দুর্বলতা, এর পিছনে কি কোন সুনির্দিষ্ট ষড়যন্ত্র রয়েছে?কেন একটি দল বা গোষ্ঠীকে বারবার অনুষদ এবং বিভাগ পরিবর্তন করার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে?

ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন ও ইইই বিভাগের শিক্ষকরা এই আন্দোলনের সাথে একমত কি তা জানতে চাইলে ইইই বিভাগের অন্য শিক্ষার্থী হাবিবুল্লাহ নিয়ন বলেন, ডিন প্রফেসর ড মোহাম্মদ শাহজাহান স্যার ও বিভাগীয় শিক্ষকদের সাথে আলোচনা করলে তারা বিষয়টি রিজেন্ট বোর্ড ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বরাত দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে। যে কারণে আমরা আন্দোলনে নেমেছি। 

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সমস্যার সমাধান না হলে পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদে তালা মারার হুশিয়ারি দেয়।

উল্লেখ্য, বশেমুরবিপ্রবির ইটিই বিভাগের শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন ধরে ইইই বিভাগের সাথে একত্রীকরণের দাবিতে আন্দোলন করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীদের কিছু না জানিয়ে ইটিই বিভাগকে ইইই বিভাগের সাথে যুক্ত করে দেয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা প্রশাসন বরাবর স্মারকলিপি দেয়। স্মারকলিপির কোনো জবাব না পেলে তারা আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিভাগে তালা ঝুলানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads