• মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
বশেমুরবিপ্রবি: হল প্রভোস্টকে লাঞ্ছিত; শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

ক্যাম্পাস

বশেমুরবিপ্রবির হল প্রভোস্টকে লাঞ্ছিত; শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

  • বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৬ এপ্রিল ২০২২

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) আবাসিক হলের সিট দখলকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর গ্রুপের সাথে শেখ রাসেল হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় দুই গ্রুপের শিক্ষার্থীদের দেশীয় অস্ত্র হাতে মহড়া দিতে দেখা যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয় পুলিশ।

বুধবার মধ্যরাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল হলে কয়েক ঘন্টা ব্যাপী এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, হলে এক সিটে একাধিক এলটমেন্ট এর অভিযোগ তুলে হলে আসেন ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর আলম।

খবর পেয়ে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের শিক্ষক ও শেখ রাসেল হলের প্রভোস্ট মোঃ ফায়েকুজ্জামান উপস্থিত হলে জাহাঙ্গীর আলম ও তার সহযোগীরা তাকে লাঞ্চিত করে বলে অভিযোগ করেছেন মোঃ ফায়েকুজ্জামান মিয়া। প্রভোস্ট মোঃ ফায়েকুজ্জামান মিয়া বলেন, আমি উপস্থিত হওয়ার পর জাহাঙ্গীর আলম ও ইয়ামিন আমাকে লাঞ্ছিত করে। একজন শিক্ষক হিসেবে সম্মানটায় আমার কাছে সবচেয়ে বড়। সেজন্য আমি চলে আসি। পরবর্তীতে যা ঘটেছে, তা বলার মতো না।

সংঘর্ষের পর উপস্থিত শিক্ষার্থীরা জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। তাকে অবাঞ্চিত করার কথাও বলা হয়।

অভিযোগের বিষয়ে ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, শেখ রাসেল হলে এক বিভাগেরই প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী থাকে। এছাড়া এক সিটে একাধিক বরাদ্দ দেয়া হয়। এসব অনিয়ম নিয়ে কথা বলতে গেলে তার (প্রভোস্ট) বিভাগের শিক্ষার্থীদের সমস্যার সৃষ্টি হয়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সংঘর্ষের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাপক ভাঙচুর হয়েছে। হল চত্বরসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গ্লাস ভাঙ্গা হয়েছে । পড়ে থাকতে দেখা গেছে ইটপাটকেল।

এদিকে এ ঘটনায় ৬ এপ্রিল দুপুরে জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে মানববন্ধন করা হয়েছে। এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল গুলো বর্ধিতকরণ কার্যক্রম চলছে। নির্মাণ কাজ শেষ হলে আবাসন সমস্যার সমাধান হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads