• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯
আখাউড়া পৌর নির্বাচন: পুরুষের সাথে সাধারণ কাউন্সিলর পদে লড়ছেন নারী

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

আখাউড়া পৌর নির্বাচন: পুরুষের সাথে সাধারণ কাউন্সিলর পদে লড়ছেন নারী

  • আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ৩০ জানুয়ারি ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌরসভা নির্বাচনে প্রথম বারের মত সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে পুরুষদের সাথে পারুল বেগম নামে এক নারী জালিম প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন । তিনি পৌর শহরের ৭ নং ওয়ার্ড থেকে সাধারণ কাউন্সিলর পদে এ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাছাড়া ওই ওয়ার্ড থেকে সাধারণ কাউন্সিলর পদে আরো ৪ জন পুরুষ প্রার্থী রয়েছে। এই প্রথম সাধারণ কাউন্সিলর পদে কোন নারী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় স্থানীয় ভোটারদের মাঝে এক ভিন্নমাত্রার উৎসাহ-উদ্দিপনা আর কৌতুহল দেখা দিয়েছে। ওই নারী প্রার্থী তার কর্মী সমর্থক নিয়ে এলাকায় প্রচার প্রচারণা, গণসংযোগ শুরু করে বাড়ি বাড়ি ভোট প্রার্থনা করছেন। সেইসাথে বসে নেই অন্যান্য প্রার্থীরা ও। ওই ওয়ার্ড থেকে অন্য প্রার্থীরা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর মো. আতিকুর রহমান, শেখ ইশান মো. কবির মিয়া ও জজ মিয়া।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আসন বাদ দিয়ে কেন সাধারণ ওয়ার্ডে পুরুষদের সাথে প্রার্থী হলেন জানতে চাইলে পারুল বেগম বলেন দিন দিন সমাজ পরিবর্তন হচ্ছে। সবাই যার যার অবস্থান থেকে সমাজের উন্নয়ন করার চেষ্টা করছেন। এই চলমান উন্নয়নে শরিক হতে তিনি পুরুষের সঙ্গে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন। এ ছাড়া সাধারণ ওয়ার্ডগুলো থেকে নারীরা নির্বাচনে অংশ গ্রহন করলে নারী নেতৃত্বের জন্য আরো জায়গা তৈরী হবে বলে তিনি মনে করেন। তিনি আরো বলেন প্রথম বাছাইয়ে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। পরে আপিলের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা হয়।

সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে দাঁড়াতে তিনি প্রার্থী হয়েছেন। নারী উন্নয়ন, নারীর অধিকার সমুন্নত রাখা,ও নারী শিক্ষা বিস্তারের পাশাপাশি তিনি এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে চান। কোন শিশু যেন তার এলাকায় প্রাথমিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য তিনি কাজ করবেন। যে কোন বিপদে-আপদে তিনি এলাকাবাসীর পাশে থাকতে চান । তিনি আশাবাদি জনগন আমাকে যে ভাবে সারা দিচ্ছে নির্বাচনে আমি অবশ্যই বিজয় হব।

বর্তমান কাউন্সিলর মো. আতিকুর রহমান বলেন, আমি সব সময় সুখে দু:খে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আমি চাই এলাকার উন্নয়ন । গত পৌরসভা নির্বাচনে জনগণের রায় নিয়ে বিজয়ী হয়ে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। তাই এলাকাবাসী আমাকে আবারও কাউন্সিলর হিসাবে দেখতে চাই। তাদের পরামর্শে এবারও প্রার্থী হয়েছেন বলে জানায়।

উল্লেখ্য ইভিএম পদ্ধতিতে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে এ পৌরসভা নির্বাচন ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads