• শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮
সুবর্ণচরে দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদের উদ্বোধন

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

সুবর্ণচরে দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদের উদ্বোধন

  • সুবর্ণচর (নোয়াখালী) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১০ জুন ২০২১

মুজিববর্ষ উপলক্ষে, ইসলামের সঠিক বার্তা সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে সারা দেশের ৫০টি মসজিদের মধ্যে নোয়াখালীর সুবর্ণচরে উদ্বোধন হয়েছে দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।
 
আজ বৃহস্পতিবার (১০ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জানা যায়, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রনালয়ের আওতায় সরকারি অর্থায়নে নির্মাণ করা হয়েছে চার তলা বিশিষ্ট মসজিদটি। ২০১৯ সালে দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রুপালী বিল্ডার্স মসজিদ কমপ্লেক্সের নির্মাণ কাজ শুরু করে।

এর আগে ২০১৮ সালের পাঁচ এপ্রিল মসজিদটির নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে মসজিদ কমপ্লেক্সটি। চারতলা ভবনটি দাঁড়িয়ে রয়েছে ৩৯ হাজার ৪০০ স্কয়ার ফিট জায়গার ওপর। ভবনটির নিচ তলায় রয়েছে গাড়ি পার্কিং, প্রতিবন্ধীদের জন্য নামাজের ব্যবস্থা। আরও রয়েছে ইমাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, ইসলামিক বুক স্টোর কার্যালয় ও মৃত ব্যক্তিদের গোসলের ব্যবস্থা রয়েছে। ২য় তলায় প্রধান নামাজ ঘর, সম্মেলন কক্ষ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের অফিস কক্ষ ও উন্মুক্ত ঈদগাহ।

তৃতীয় তলায় পর্যটকদের আলাদা কক্ষ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের রিসার্চ সেন্টার, ইসলামিক লাইব্রেরি, হিফজ ও মক্তবখানা। খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেমের থাকার জন্যও রয়েছে পৃথক কক্ষ। থাকছে নারী—পুরুষের জন্য আলাদা অজু খানার ব্যবস্থা এবং পৃথক নামাজের কক্ষ।
এছাড়াও অসুস্থ ও প্রতিবন্ধীদের জন্য আলাদা সিঁড়ি এবং শিশুদের জন্য শিক্ষাসুবিধা থাকছে এই মডেল মসজিদে। অত্যাধুনিক শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন শেষে উন্মুক্ত করা হবে।

জেলা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক মোহাম্মদ রেজ্জাকুল হায়দার জানান, নোয়াখালী মোট ১০ টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে সুবর্ণচর উপজেলার মডেল মসজিদটি নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। আজ বৃৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে মসজিদের উদ্বোধন করেছেন।

তিনি আরও  জানান, এর বাইরে নোয়াখালীর ৮টি উপজেলায় ৮টি মসজিদ এবং জেলায় ১টি মসজিদ নির্মাণের কাজ চলছে। এছাড়া উপজেলা পর্যায়ের মসজিদগুলোও নির্মাণ কাজ চলছে। পর্যায়ক্রমে এসব মসজিদের কাজ শেষ হবে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, বিশ্বে এই প্রথম কোনো সরকার একসঙ্গে এই বিপুল সংখ্যক মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণ করছে। আজকে সুবর্ণচর উপজেলার মসজিদটি উদ্বোধন হয়েছে। এই মসজিদটি ইসলামিক গবেষণার কেন্দ্র হিসেবে কাজ করবে। এখান থেকে সাধারণ মানুষের কাছে ইসলামের সঠিক বার্তা ছড়িয়ে দেওয়া হবে। এ ধরনের একটি বৃহৎ ধর্মীয় প্রকল্পের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads