• বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮

সারা দেশ

ধামরাইয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে আ'লীগ নেতার বাড়িতে হামলা

  • ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

ঢাকার ধামরাইয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আওয়ামী লীগের এক নেতার বাড়িতে হামলা ও মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয়দের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ধামরাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ও আওয়ামী লীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন ধলুর ছেলে বিপুল হোসেন। 

আজ মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরের অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেন কাওয়ালীপাড়া বাজার তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক রাছেল মোল্লা।

এর আগে রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টার দিকে ধামরাই উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সুত্রাপুর এলাকার ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ধলুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সূত্রাপুর এলাকায় কিছু লোক শান্তি কমিটি গঠন করে এলাকার মধ্যে সব সময় দাঙ্গা বাধিয়েই রাখে তাদের আধিপত্য বিস্তার করার জন্য। সেই শান্তি কমিটির লোকজন আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে পূর্ব শত্রুতার জেরে হামলা চালায়। 

অভিযুক্তরা হলো, মৃত ছমির আলীর ছেলে মােঃ বজলু (৪৫), মৃত লতিফ মিয়ার ছেলে কহিনূর ইসলাম (৪২), ছমির আলীর ছেলে সুজন আলী (৩০), মোঃ আলীর ছেলে আলামিন (২৫), মৃত পিয়ার  আলীর ছেলে বাবুল হােসেন (৫০), বাবুল হোসেনের ছেলে রাকিব হোসেন (২২), পিয়ার আলীর ছেলে রজ্জব আলী (৫৫) সহ আরো কয়েক জন। 

ভুক্তভোগীরা হলেন, বালিয়া ইউনিয়নের একই এলাকার ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ধলু, দেলোয়ার হোসেনের ছেলে বিপুল হোসেন (২৫), সোহেল হোসেন (৩২), আব্দুল হালিম (৬৫), শহিদা আক্তার (৪৫), সেলিনা আক্তার (৩৪)। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার রাত ৯টার দিকে পূর্ব শত্রুতার জেরে লাঠি-সোঁটা, লোহার রড ও অস্ত্র নিয়ে অভিযুক্তরা অতর্কিতভাবে এসে হামলা চালিয়ে বাড়ি-ঘর ভাঙ্গচুর ও মারধর করে। এসময় ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ধলুকে হত্যার উদ্দেশ্যে অভিযুক্ত বজলু লোহার রড দিয়ে তার মাথায় বারি দিলে দেলোয়ার হোসেন সেখান থেকে সরে গিয়ে প্রাণে বাঁচে। পরে দেলোয়ার হোসেনকে এলোপাথাড়ি মারধর করলে তার ডাকচিৎকারে বাড়ির অন্যান্য সদস্যরা তাকে উদ্ধার করতে গেলে তাদেরও মারধর করে জখম করে।দেলোয়ার হোসেনের হাতে, পায়ে, শরীরে নিলাফুলা জখম হয়। এসময় শহিদা আক্তার ও সেলিনা আক্তার নামে দুই নারীকে মারধর ও টানাহেঁচড়া করে   শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে অভিযুক্তরা। এ নিয়ে এলাকায় বেশ উত্তেজনা বিরাজ করছে। 

এবিষয়ে বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহম্মদ হোসেন বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। মজিবুর এলাকার কিছু বিএনপির লোকদের নিয়ে এই ঝামেলা সৃষ্টি করেছে। চেষ্টা করছি এই সমস্যা সমাধানের জন্য। 

কাওয়ালীপাড়া বাজার তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক রাছেল মোল্লা বলেন, এবিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ হাতে পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads