• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮
স্ত্রীর সহায়তায় কিশোরী ধর্ষণ, স্বামী গ্রেপ্তার

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

স্ত্রীর সহায়তায় কিশোরী ধর্ষণ, স্বামী গ্রেপ্তার

  • ময়মনসিংহ ব্যুরো
  • প্রকাশিত ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

ময়মনসিংহ শহরে স্ত্রীর সহায়তায় ১৩ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাকে গতকাল রোববার গভীররাতে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তার হোসেন আলীকে আজ সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে পেরণ করা হয়েছে।

ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার হোসেন আলী (৫০) নগরীর কৃষ্টপুর এলাকার বাসিন্দা। তিনি জাতীয় পার্টির সহযোগী সংগঠন জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির ময়মনসিংহ জেলা শাখার সভাপতি। এ ঘটনায় ধর্ষক হোসেন আলীর তৃতীয় স্ত্রী তামান্না হোসেনকেও আসামি করা হয়েছে।

র‌্যাব ও থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, হোসেন আলীর বাসার পাশেই ভাড়াটিয়া বাসায় পরিবারের সঙ্গে বসবাস করতেন ওই কিশোরী। একই এলাকায় বাসা হওয়ায় হোসেন আলীর পরিবারের সঙ্গে কিশোরীর পরিবারের সুসম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই সুযোগে হোসেনের স্ত্রী তামান্না আক্তার চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি কিশোরীকে বাসায় ডেকে নিয়ে শরবতের সঙ্গে চেতনানাশক মিশিয়ে খাওয়ান। চেতনা হারিয়ে ফেললে কিশোরীকে ধর্ষণ ও তা ভিডিও ধারণ করেন হোসেন আলী।

এরপর ধারণ করা ভিডিও ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি প্রদর্শন করে ৬/৭ মাস প্রতিনিয়ত মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন হোসেন আলী। আর এতে সহায়তা করেন হোসেন আলীর স্ত্রী তামান্না। এক পর্যায়ে বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে পরিবারটি বাসা পরিবর্তন করে নগরীর অন্য একটি এলাকায় চলে যান। সেখানেও লোকজন নিয়ে মেয়েটিকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন হোসেন।

পরে বাধ্য হয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর রোববার রাতে ওই ধর্ষিতা কিশোরীর বাবা হোসেন আলী ও তার তৃতীয় স্ত্রীকে আসামি করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ দায়েরের কয়েক ঘন্টা পরই র‌্যাব হোসেনকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান, কিশোরীকে ধর্ষণে হোসেনের স্ত্রীর কোনো সম্পৃক্ততা রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই নারীও পলাতক রয়েছে। তবে তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads