• বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯
চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেত্রীর

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেত্রীর

  • ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৫ আগস্ট ২০২২

ঢাকার ধামরাইয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নারী নেত্রী সুরাইয়া আক্তারকে সোমভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন হেনস্থা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত শনিবার রাতে ধামরাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন সুরাইয়া। কিন্তু মামলা রেকর্ড করেনি থানা পুলিশ। 

এদিকে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন তিনি। এরপর আজ শুক্রবার ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে চেয়ারম্যানের শাস্তির দাবি করেছেন তিনি। 

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের গাওয়াইল গ্রামের মৃত আবদুল গফুরের মেয়ে সুরাইয়া আক্তার তার ভাই আবদুল মালেকের সঙ্গে পৈত্রিক জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল দীর্ঘদিন ধরে। এ নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে (মামলা নং ১৪১/২০২২)। এরমধ্যে সোমভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আউলাদ হোসেন বিরোধপূর্ণ জমি সংক্রান্তে  গত শনিবার (৩০ জুলাই) ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ হেনস্থা ও চেয়ারম্যান তার চেয়ার থেকে উঠে সুরাইকে ধরতে যান । এছাড়া তাকে আওয়ামী লীগ করার শিক্ষা ও মানসম্মান ধুলিস্যাত করার হুমকি দেন চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন। এক পর্যায়ে আওলাদ তার কক্ষ বন্ধ করে দেওয়ার প্রাক্কালে সুরাইয়ার ডাক চিৎকার দেন। ওই সময় তার ছেলে ফয়সাল আহম্মেদ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে বলে সাংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন চেয়ারম্যান আউলাদ হোসেনের বিরুদ্ধে।  

সাংবাদিক সম্মেলনে সুরাইয়া বেগম বলেন,চেয়ারম্যান আওলাদ হোসেন আমাকে তার পরিষদে ডেকে নিয়ে একটি কক্ষে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ও হেনস্থা করেছেন। তার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি কিন্তু ওসি তা রেকর্ড করেনি। আমি তার শাস্তি দাবি করছি। 

এ বিষয়ে আওলাদ হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ৩১ জুলাই হাজির হওয়ার জন্য আমি তাকে (সুরাইয়াকে) নোটিশ করেছিলাম । কিন্তু সে নির্ধারিত তারিখের আগের দিন তার ছেলেকে নিয়ে আমার পরিষদে আসছিলেন। সে আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছেন তা আদৌ সত্য নয়। হয়ত কারো ইন্ধনে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে উল্টোপাল্টা প্রলাপ করছেন সে।  

অভিযোগ রেকর্ড না করার বিষয়ে ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ আতিকুর রহমান বলেন, চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে তার কোন সাক্ষ্য প্রমাণ দিতে পারেনি বলে অভিযোগ রেকর্ড করা হয়নি। 

উল্লেখ, ২০১৪ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থী ছিলেন সুরাইয়া বেগম।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads