• শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

সারা দেশ

দেশের ৩০ জেলায় ১২শ স্যালুন লাইব্রেরি স্থাপন

  • লালমনিরহাট প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

চুল-দাড়ি কাটাতে গিয়ে সেলুনে সিরিয়াল দিয়ে অলস সময় পার করেন অনেকেই। কিন্তু এই অবসরে বই পড়ে জ্ঞানের পরিধি বাড়ানোর উদ্যোগে সেলুন লাইব্রেরী স্থাপন সাড়া ফেলেছেন লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার জামাল হোসেন নামে এক যুবক। তিনি দেশের ৩০টি জেলার বিভিন্ন প্রান্তে প্রায় ১২শত স্যালুন লাইব্রেরি স্থাপন করে মানুষকে বইয়ের প্রতি আগ্রহী করে তুলতে কাজ করে চলেছেন। এরমধ্যে লালমনিরহাট জেলায় রয়েছে ৫০টি সেলুন লাইব্রেরী। এছাড়াও তিনি  নিজ এলাকায় লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠা করে শিক্ষার্থীদের আলো ছড়াচ্ছেন। 

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর এলাকার জামাল হোসেন, কবি নজরুল সরকারি কলেজের অনার্স ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী।  এই বয়সে ঘুরাঘুরি, বন্ধুদের সাথে আড্ডাবাজি না করে বইয়ের প্রতি অসাধারণ প্রেম থেকে উদ্যোগ নিয়েছেন অন্যকে বই পড়ানোয় আগ্রহী করে তুলতে। জ্ঞানার্জনের তাগিদ থেকেই সারাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিষ্ঠা করেছেন ১২৩৪ টি স্যালুন লাইব্রেরি। 

স্যালুনে বসে অযথা সময় নস্ট না করে হোক জ্ঞান চর্চা এমন চিন্তা থেকেই ২০১৬ সালে নিজ এলাকায় ব্যতিক্রম এই উদ্যোগ গ্রহণ করে গত ৭ বছরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে তা ছড়িয়ে দিয়েছেন।

ইন্টারনেট ও স্মার্ট মোবাইল ফোনের এই যুগেও তার প্রতিষ্ঠিত লাইব্রেরিতে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষের ভীড় লেগেই থাকে। 

শিক্ষার্থী জামাল হোসেন জানান, আর্থিক সঙ্কটে তার এই উদ্যোগ অনেকটাই বাধাগ্রস্থ্য হচ্ছে। তার চাওয়া, এই সেলুন লাইব্রেরি সারা দেশে আরো ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে যাক।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্ল্যাহ বলেন, জামালের অনন্য এই উদ্যোগ সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে সহযোগীতার অংশ হিসেবে  লাইব্রেরি কমপ্লেক্স প্রতিষ্ঠায় পৃষ্ঠপোষকতা করা হবে। তিনি বলেন, ডিজিটাল যুগে যখন সবাই ভার্সুয়ালি বিভিন্ন বিষয়ে ডুবে থাকে সে সময় জামালের বইপ্রীতি আলোড়ন তৈরি করেছে লালমনিরহাট জেলা জুড়ে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads