• শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
বিগ বাজেটের সিনেমা দর্শক টানতে কতটুকু সফল

সংগৃহীত ছবি

ঢালিউড

বিগ বাজেটের সিনেমা দর্শক টানতে কতটুকু সফল

  • সালেহীন বাবু
  • প্রকাশিত ১৭ জুলাই ২০২২

বাংলা সিনেমা যখন একটু একটু করে ঘুরে দাঁড়াচ্ছিল ঠিক তখনই বাধা হয়ে দাঁড়ায় মহামারি করোনা। করোনার কারণে দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকে সিনেমা হল। সে কারণে অনেক সিনেমা মুক্তির জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত থেকেও হলে মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। ফলে লোকসানে পড়তে হয়েছে সিনেমা প্রযোজক, পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের। এবার করোনার সেই ভয়াল থাবা নেই। হলগুলোতে মানুষ ছবি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে।  করোনার পর বিগ বাজেটের ছবি তৈরি হচ্ছে বেশি। স্বল্প বাজেটের ছবি নেই বললেই চলে।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১১৫ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘দিন : দ্য ডে’। সংখ্যার হিসেবেও যা গত কয়েক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। দীর্ঘদিন পর আসা অনন্ত জলিল ও বর্ষা অভিনীত সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম। ছবিটি নির্মাণের পর থেকেই অনন্ত জলিল বলে আসছেন, এই সিনেমাটির বাজেট ১০০ কোটি টাকার বেশি। বাংলাদেশের ইতিহাসে এত বেশি বাজেটের সিনেমা আগে কখনোই নির্মিত হয়নি। যদিও এই বাজেটের বিষয়টি সবার কাছেই বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ। কিন্তু তারপরও এই বাজেটকে সামনে এনে তিনি নিজের সিনেমাকে সেরা দাবি করে আসছেন।

এত বিশাল আয়োজনে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া হলো। কিন্তু সেই অনুসারে দর্শক টানতে পারেনি ছবি। এ ছবি নিয়ে অভিনেত্রী নূতন লিখেছেন, শুধু বেশি টাকা দিয়েই ভালো সিনেমা হয় না। সিনেমার জন্য মেধা ও ত্যাগও লাগে। তিনি আরো বলেছেন, ‘বেশি বাজেট হলেই যদি ভালো, মানসম্মত, মনে রাখার মতো ফিল্ম হতো ভালো অভিনেতা টাকা দিয়ে জন্মাতো, তাহলে এই দেশে কখনো ‘মাটির ময়না’, ‘ওরা ১১ জন’, ‘গোলাপি এখন ট্রেনে’, ‘ভাত দে’, ‘হাঙর নদী গ্রেনেড’, ‘বেদের মেয়ে জোছনা’, ‘ছুটির ঘণ্টা’, ‘বাবা কেন চাকর’, ‘এই ঘর এই সংসার’, ‘আয়নাবাজি’সহ অসংখ্য ভালো, মনে রাখার মতো, মনে ধারণ করার মতো সিনেমা জন্মাতো না। আর রাজ্জাক সাহেবসহ নাটক-সিনেমায় গুণী গুণী অভিনেতা জন্মাতো না, থিয়েটার থাকত না।

এই ছবিটি ছাড়াও চলতি বছর বড় বাজেটের কয়েকটি ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। তবে বিগ বাজেটের ছবিই যে সুপারহিট হবে কিংবা সুপারফ্লপ হবে এমন কোনো কথা নেই। যে ছবির গল্প দর্শক টানতে পারবে না, সেটি যত টাকা দিয়েই বানানো হোক না কেন তা উলুবনে মুক্তো ছড়ানোর মতোই। কারণ দর্শকদের বোকা ভাবলে ভুল হবে। এখনকার দর্শকরা অনেক চিন্তভাবনা করেই সিনেমাহলে যান। যত্ন করে টাকা দিয়ে টিকিট কিনেন। পয়সা উসুল না হলে তারা আর ছবিই দেখবেন না।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads