• শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ঢাকায় যাদের বেশি আসন তারাই করে সরকার গঠন

ঢাকায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

সংরক্ষিত ছবি

নির্বাচন

ঢাকায় যাদের বেশি আসন তারাই করে সরকার গঠন

ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ ২০টি আসনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে লড়বেন যারা

  • আসিফ উল আলম সোহান
  • প্রকাশিত ০২ ডিসেম্বর ২০১৮

বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে চলছে নির্বাচনের চূড়ান্ত প্রস্তুতি। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে একাদশ নির্বাচন। আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থিতা চূড়ান্ত করেছে। প্রায় ৪,০২৩টি (চার হাজার তেইশ) মনোনয়ন ফর্ম বিক্রি হয় এবং জমা পড়ে। যারা দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। মনোনয়ন দেওয়া হবে আওয়ামী লীগ মহাজোট মিলিয়ে ৩০০টি আসনে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজধানী ঢাকা শহরের আসনগুলো সবসময় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এক-এগারোর আগে ঢাকার মোট আসন সংখ্যা ছিল ১৩টি। অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে জনসংখ্যার ভিত্তিতে সীমানা পুনর্নির্ধারণের মাধ্যমে সংযোজন বিয়োজন করে মোট ২০টি আসনে ঢাকা শহরকে ভাগ করা হয়। পূর্বের পরিসংখ্যানগুলোয় দেখা যায়, ঢাকার অধিকাংশ আসন যে দল বা জোটের দখলে থাকে মূলত তারাই জাতীয় সংসদে সরকার গঠন করেছে। ঢাকার ২০টি আসনের আওয়ামী লীগ ও শরিক জোটের প্রার্থীদের (সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী) সঙ্গে কথা বলে তাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির বিষয়গুলো নিয়ে সাজানো হয়েছে আমাদের আজকের খবরের কাগজের সংসদ। সহযোগিতায় সৈয়দ ফয়জুল আল আমীন,  গ্রাফিক্স ডিজাইনে মোনায়েম ইসলাম, পরিকল্পনা সাক্ষাৎকার গ্রহণ ও সম্পাদনায় আসিফ উল আলম সোহান।   

ঢাকা-১, জাতীয় সংসদের ১৭৪ নং আসন

(দোহার উপজেলা ও নবাবগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৪,৪০৪০৭ (পুরুষ ভোটার ২,১৬,৮০৫; মহিলা ভোটার ২,২৩৬০২)

বিগত সংসদ সদস্য : সালমা ইসলাম 

দল: জাতীয় পার্টি; প্রতীক : লাঙ্গল

আমি আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছি। আসা করব এলাকার জনগণ আমার সাথে থাকবে। আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন দৃশ্যমান। উন্নয়নের মহাসড়কে এখন বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অবকাঠামো থেকে শুরু করে ব্যবসা বাণিজ্যসহ সকল ক্ষেত্রে  যেসকল উন্নয়ন হয়েছে এবং যেগুলো চলমান রয়েছে সেগুলোর সুফল পেতে হলে আওয়ামী লীগ সরকারের বিকল্প নেই। কাজেই দেশ জনগণ ও তরুণ সমাজের কথা বিবেচনায় রেখেই এ সকল উন্নয়ন সেগুলকে এগিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যেই আমরা কাজ করে যাব। একটি ক্ষুধা মুক্ত দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ উপহার দেব।

 

ঢাকা-২, আসন নং ১৭৫

(সাভারের আমিনবাজার, তেঁতুলঝোড়া ও ভাকুর্তা ইউনিয়ন, কেরানীগঞ্জ উপজেলার কিছু অংশ, ঢাকার কামরাঙ্গীরচর ও হাজারীবাগ থানার সুন্দরগঞ্জ ইউনিয়ন এবং ঢাকা দ. সিটি করপোরেশনের ৫৫, ৫৬ ও ৫৭ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৪,৯৪,৩১৩। পুরুষ ভোটার ২,৫৪,৫৯২; নারী ভোটার ২,৩৯৭২১

বিগত সংসদ সদস্য : কামরুল ইসলাম

দল : আ লীগ প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৩বার; বিজয়ী ২বার।

এলাকার রাস্তাঘাট মসজিদ মাদরাসাসহ অবকাঠামোগতও অনেক উন্নয়ন হয়েছে আর কিছু চলমান আছে যেগুলো শেষ করতে হলে আওয়ামী লীগ সরকারের কন্টিনিউটি থাকা দরকার। আমার এলাকায় আমি প্রথম যখন নির্বাচন করি তখন হেঁটে যেতে হতো। এখন রাস্তাঘাট হওয়ার ফলে গাড়িতে যেতে পারি। বিদ্যুৎ শতভাগ হয়েছে। কামরাঙ্গী এখন আর চর নেই। এটি এখন শহরে পরিণত হয়েছে। এসব আওয়ামী লীগ সরকারের অবদান, আমি করে দিয়েছি। আমার এলাকার জনগণ আমার সাথে আছে, কাজেই আমিও তাদের সাথে ছিলাম আছি এবং থাকব।

 

 

ঢাকা-৩, আসন নং ১৭৬

(কেরানীগঞ্জ উপজেলার জিনজিরা, আগানগর, তেঘরিয়া, কোন্ডা ও শুভাঢ্যা ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,১১,৬৪৭। পুরুষ ভোটার : ১,৫৮,৮৬০; নারী ভোটার ১,৫২,৭৮৭

বিগত সংসদ সদস্য : নসরুল হামিদ 

দল : আওয়ামী লীগ; প্রতীক: নৌকা

অংশগ্রহণ ৪বার; বিজয়ী ২বার।

আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন দৃশ্যমান। সারা দেশজুড়ে রাস্তাঘাট, ব্রিজ কালভার্ট, ফ্লাইওভার থেকে শুরু করে আমাদের রিজার্ভও এখন স্বয়ংসম্পূর্ণ। উন্নয়নের মহাসড়কে এখন বাংলাদেশ। আমি যদি বিদ্যুৎ সেক্টরের কথাই বলি। ভেবে দেখুন আগের সরকারগুলোর সময়ে আপনার এলাকায় দিনে কতবার বিদ্যুৎ যেত, আর কতক্ষণ থাকত। মানুষ বলত বিদ্যুৎ তো যায় না মাঝে মাঝে আসে। এখন সেই চিত্র পাল্টে গেছে। আমাদের সরকারের হাতে চলমান যে সকল কাজ ও প্রকল্প রয়েছে যেমন পদ্মা সেতু, রূপপুর বিদ্যুৎ প্রকল্প করতে পারলে বাংলাদেশ হবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধা দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত বাংলাদেশ।

 

ঢাকা-৪, আসন নং ১৭৭

(ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৪৭, ৫১, ৫২, ৫৩, ৫৪ নং ওয়ার্ড এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন শ্যামপুর থানার শ্যামপুর ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ২,৪৫,৯০৮। পুরুষ ভোটার : ১,২৮,৫১৩;  নারী ভোটার : ১,১৭,৩৯৫

বিগত সংসদ সদস্য : সৈয়দ আবু হোসেন। দল : জাতীয় পার্টি; প্রতীক : লাঙ্গল

অংশগ্রহণ ২ বার; বিজয়ী ১বার।

এলাকার পানি সমস্যা, রাস্তাঘাটের সমস্যা, স্কুল কলেজ মসজিদ মাদরাসা সবই আমি করে আসছি। এলাকার তরুণ সমাজ যাতে করে বিপথে না যেতে পারে সেদিকে লক্ষ রেখে এলাকার মাদক, চাঁদাবাজি, জঙ্গিবাদীসহ সকল কিছু নির্মূলের কাজ এর আগেই শুরু করেছি এবার শতভাগ করতে সক্ষম হব ইনশাআল্লাহ। আর এই নির্বাচনে আমার প্রতিশ্রুতি একটা সরকারি হাসপাতাল, একটি কবরস্থান, দুটি কমিউনিটি সেন্টার, একটি সরকারি কলেজসহ এলাকার সকল অবকাঠামোগত উন্নয়ন।

 

ঢাকা-৫, আসন নং ১৭৮

(ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৪৮, ৪৯ ও ৫০ নং ওয়ার্ড এবং ঢাকা মেট্রোপলিটনের ডেমরা, দনিয়া, মাতুয়াইল ও সারুলিয়া ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৪,৫০,৭২৫। পুরুষ ভোটার : ২,৩১,৫৯২;  নারী ভোটার : ২,১৯,১৩৩

বিগত সংসদ সদস্য : হাবিবুর রহমান মোল্লা

দল : আ.লীগ;  প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৫বার; বিজয়ী ৩বার।

আমি এলাকার মানুষের পাশে ছিলাম বিগত সময়গুলোতে, ভবিষ্যতেও থাকব। যদি আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হয় আমি আবার এই আসনটি উপহার দিতে পারব এটি প্রমাণিত। তবে মনোনয়ন বিষয়ে এখনো পরিষ্কার কিছু বলা হয়নি। আমার সাথে আরো একজনের নামও শোনা যাচ্ছে, দেখি শেষ পর্যন্ত কী  হয়।

 

(এ আসনে কাজী মনিরুল ইসলাম আওয়ামী লীগের বিকল্প প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।)

 

 

ঢাকা-৬, আসন নং ১৭৯

(ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩৪, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১, ৪২, ৪৩, ৪৪, ৪৫ ও ৪৬ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ২,৬৯,২৭৬। পুরুষ ভোটার : ১,৪৩,০৮০; নারী ভোটার : ১,২৬,১৯৬

বিগত সংসদ সদস্য : কাজী ফিরোজ রশীদ

দল: জাতীয় পার্টি; প্রতীক : লাঙ্গল

অংশগ্রহণ ১বার; বিজয়ী ১বার।

জনগণ আমাদের কাছে টাকা-পয়সা চায় না, একটু শান্তিতে বসবাস করতে চায়। আমাদের মূল দুটো সমস্যা মাদক এবং সন্ত্রাস। একটা বাড়ি করতে গেলে চাঁদা দিতে হয়, এই ক্লাবে সেই ক্লাবে। কাজেই মাদকমুক্ত সন্ত্রাসমুক্ত একটি সমাজ গড়ে যেতে চাই। আমরা পরবর্তী প্রজন্মের জন্য এমন একটা বাংলাদেশ গড়তে চাই যেন আমাদের ছেলেমেয়েরা আর বিদেশে পড়ালেখার জন্য যাবে না, এই দেশেই তারা সেই পরিবেশ পাবে। আমরা যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলাম সেই স্বপ্নের সোনার বাংলা উপহার দিয়ে যেতে চাই। আমাদের কাছে আর কী চাইবার আছে। আমরা একটি স্বাধীন ভূখণ্ড দিয়েছি, একটা পতাকা একটা মানচিত্র দিয়েছি, আমরা আর কী দেব। এখন নতুন প্রজন্ম আমাদের দেবে।

 

ঢাকা-৭, আসন নং ১৮০

(ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৩, ২৪, ২৫, ২৬, ২৭, ২৮, ২৯, ৩০, ৩১, ৩২, ৩৩, ৩৫ ও ৩৬ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,২৮,২৬৯। পুরুষ ভোটার : ১,৭৫,২৫০; নারী ভোটার : ১,৫৩,০১৯

বিগত সংসদ সদস্য : হাজী মো. সেলিম 

দল : স্বতন্ত্র;  প্রতীক : হাতী।

আমাদের দলের নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ঢাকা-৭ আসন থেকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমি তার ভরসার মান রেখে এই আসনটি তাকে উপহার দেব ইনশা আল্লাহ। একজন স্বতন্ত্র সাংসদ হিসেবে এই এলাকায় আমার সাধ্যের মধ্যে সকল কাজই করার চেষ্টা করেছি। এবার আমি সরাসরি নৌকার মাঝি। আওয়ামী লীগ সরকার দেশব্যাপী যে উন্নয়ন করেছে তাতে জনগণ নৌকা মার্কায় এবার চোখ বন্ধ করে ভোট দেবে। আওয়ামী লীগের উন্নয়নের সাথে আমার এলাকার মানুষের ভালোবাসা মিলে এই আসনে আমি বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে শেখ হাসিনাকে এই আসন উপহার দেব।

(এ আসনে আবুল হাসনাত আওয়ামী লীগের বিকল্প প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।)

 

ঢাকা-৮, আসন নং ১৮১

(ঢাকা জেলার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ০৮, ০৯, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৯, ২০, ২১ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার :  ২,৬৪,৮৯৩।  পুরুষ ভোটার : ১,৫২,১০৭;   নারী ভোটার : ১,১২,৭৮৬

বিগত সংসদ সদস্য : রাশেদ খান মেনন

দল : বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি; প্রতীক : নৌকা 

অংশগ্রহণ ১বার; বিজয়ী ১বার।

 

আমাদের পূর্বের সকল উন্নয়নমূলক কাজ অব্যাহত থাকবে। মাদকের বিরুদ্ধে যে যুদ্ধ চলছে সেটি অব্যাহত রাখব। আমার এলাকায় চাঁদাবাজির কিছু কথা আছে, এগুলো এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে প্রতিহত করার লক্ষ্যে কাজ করব। এলাকায় পানি গ্যাসের সমস্যার ছিল সেগুলো নিয়ে আমি এর আগেরবার থেকেই কাজ করে যাচ্ছি, কিছু চলমান আছে সেগুলোকে শেষ করব। সরকারি কোয়ার্টারগুলোর জন্য আরও কিছু উন্নয়ন দরকার আছে সেগুলো হাত দেব। মোটকথা এলাকায় কল্যাণে কাজ করে যাব।

 

ঢাকা-৯, আসন নং ১৮১

(ঢাকা মেট্রোপলিটন খিলগাঁও ও সবুজবাগ থানাধীন নাসিরাবাদ, দক্ষিণগাঁও ও মাণ্ডা ইউনিয়ন এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ০১, ০২, ০৩, ০৪, ০৫, ০৬ ও ০৭ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৪,২৫,৫৭১। পুরুষ ভোটার : ২,১৫,৭৬২; নারী ভোটার : ২,০৯,৮০৯

বিগত সংসদ সদস্য : সাবের হোসেন চৌধুরী

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৫বার; বিজয় ৩বার।

বাংলাদেশের যে উন্নয়নের চলমান প্রক্রিয়া সেটি ইনশাআল্লাহ অব্যাহত থাকবে। ’৯৬ সাল থেকেই আমি আমার এলাকায় ভিন্ন ধারার রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। মূল উদ্দেশ্য দল মত নির্বিশেষে সবাইকে নিয়ে কাজ করা। নির্বাচিত প্রতিনিধি সে এলাকার সব মানুষের। যিনি ভোট দিয়েছেন বা যিনি দেননি সবাই আমার মানুষ। আমি সবাইকে নিয়ে কাজ করে এলাকা ও দেশের উন্নয়নে অংশীদার হতে চাই। কাজেই আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি আস্থা রেখে আমাদের চলমান উন্নয়ন পরকল্পনা সারা বাংলাদেশেই। কিছু সমস্যা আছে যেগুলো সারা দেশজুড়েই আছে, সমস্যা আসবে সমাধান করা হবে এটাই তো সরকারের কাজ।

 

ঢাকা-১০, আসন নং ১৮৩

(ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৪, ১৫, ১৬, ১৭, ১৮ ও ২২ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,১৩,৭৫৮। পুরুষ ভোটার : ১,৬৯,৮৫১; নারী ভোটার : ১,৪৩,৯০৭

বিগত সংসদ সদস্য : শেখ ফজলে নূর তাপস দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ : ৩বার; বিজয়ী : ২বার।

আওয়ামী লীগ সরকারে উন্নয়নের জোয়ার সমগ্র দেশজুড়ে, এমনকি বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের অবস্থান এখন সম্মানের জায়গায়। যে দেশকে একসময় তলাবিহীন ঝুড়ি বলা হতো সেই দেশ এখন মহাকাশে স্যাটেলাইটের মালিক। আমাদের পাওয়ার প্ল্যান্ট, পদ্মা সেতু, ৮ লেনের রাস্তা, ফ্লাইওভার এগুলো আর স্বপ্ন নয়। এসবই এখন দৃশ্যমান বাস্তব। বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার জন্য আরেকবার নৌকা মার্কার সরকার প্রয়োজন। কাজেই আমাদের আরেকবার সুযোগ দিন। কথা দিতে পারি আগামীর যুবসমাজের জন্য একটি উন্নততর আধুনিক বাংলাদেশ তৈরি করে দেওয়া আমাদের দায়িত্ব।

 

ঢাকা-১১, আসন নং ১৮৪

(ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২১, ২২, ২৩, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১ ও ৪২ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৪,১৫,৫৫৫। পুরুষ ভোটার : ২,১২,০৭৩; নারী ভোটার : ২,০৩,৪৮২

বিগত সংসদ সদস্য : একেএম রহমতুল্লাহ।

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৩বার; বিজয়ী ২বার।

এলাকার রাস্তাঘাট স্কুল কলেজ মসজিদ মাদরাসা সব উন্নয়ন আগেই করা হয়ে গেছে। এবার এলাকার চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, মাদকের ব্যবসা সবকিছু নির্মূল করব। এলাকার ছেলেমেয়েদের পড়ালেখার মান উন্নয়ন করার লক্ষ্যে কাজ করে যাব যেন এলাকার ছলেমেয়েরা সুস্থ পড়ালেখার সুযোগ পেয়ে মানুষের মতো মানুষ হয়ে নিজের ও দেশের কল্যাণে কাজ করতে পারবে। আমি কথা দিতে পারি, এলাকার সার্বিক সমস্যা সমাধানই হবে আমার মূল কাজ। আওয়ামী লীগ সরকারের চলমান উন্নয়ন প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিতে আমাদের প্রতি আস্থা রাখুন। আমরা আপনাদের পাশে ছিলাম এবং থাকব। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি উন্নত বাংলাদেশ রেখে যাব।

 

 ঢাকা-১২, আসন নং ১৮৫

(ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ২৪, ২৫, ২৬, ২৭, ৩৫ ও ৩৬ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার :  ৩,৩৯,৯৩৮। পুরুষ ভোটার : ১,৮০,৪৩৭; নারী ভোটার : ১,৫৯,৫৬৮

বিগত সংসদ সদস্য : আসাদুজ্জামান খান।

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৩বার;  বিজয়ী ২বার।

 

 

বর্তমান সরকারের যে উন্নয়ন তার ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য আওয়ামী লীগ সরকার আবারও দরকার। এই সরকারের অন্যান্য ক্ষেত্রে উন্নয়নের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ, মাদক চাঁদাবাজি জঙ্গিবাদ কঠোর হাতে দমন করেছে। দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি কখনই নিয়ন্ত্রণের বাইরে যেতে দেওয়া হয়নি। এটা আমাদের সরকারের একটি বড় অ্যাচিভমেন্ট। কাজেই দেশের উন্নয়নের জন্য আমার এলাকাসহ দেশের জনগণ নৌকার সাথেই আছে বলে আমার বিশ্বাস।

 

ঢাকা-১৩, আসন নং ১৮৬

(ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ২৮, ২৯, ৩০, ৩১, ৩২, ৩৩ ও ৩৪ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,৭২,৭৬৯। পুরুষ ভোটার : ১,৯২,৬১২; নারী ভোটার : ১,৮০,১৫৭

বিগত সংসদ সদস্য : জাহাঙ্গীর কবির নানক

একাদশ নির্বাচনে প্রার্থী : সাদেক খান

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ : প্রথমবার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ের বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য যা যা করা দরকার সবকিছু করে যাব। এলাকায় রাস্তাঘাট গ্যাস বিদ্যুতের সমস্যা সমাধানে কাজ করে যাব। আমাদের প্রত্যাশা, জনগণ আরেকবার আমাদের সেবা করার সুযোগ দেবে। এবার জননেত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা ১৩ আসন থেকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমি আমার সাধ্যমতো এলাকার উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাব। এলাকার জনগণের যেসব সমস্যা আছে সেগুলো সমাধানের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ সরকারের গৃহীত সব উন্নয়ন কাজের অংশীদার হয়ে নিজের নির্বাচনী এলাকার সাথে সাথে সমগ্র দেশের অগ্রগতিতে অবদান রাখব।

 

ঢাকা-১৪, আসন নং ১৮৭ 

(সাভার উপজেলার কাউন্দিয়া ইউনিয়ন এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ০৭, ০৮, ০৯, ১০, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৪,০৬,৫৩৪। পুরুষ ভোটার ২,০৮,০৪৪; নারী ভোটার : ১,৯৮,৪৯০

বিগত সংসদ সদস্য : আসলামুল হক

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৩বার; বিজয়ী ২বার।

আমি আবার মনোনয়ন পেয়েছি। এ কারণে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আমার প্রতি তিনি যে আস্থা রেখেছেন তার জন্য আমি অনেক অনেক কৃতজ্ঞ। আমার এলাকায় যে উন্নয়ন হয়েছে এবং সমগ্র বাংলাদেশে আমাদের দলীয় নেত্রীর উদ্যোগে আওয়ামী লীগ সরকারের যে উন্নয়নের জোয়ার বইছে সেটি জনগণের কাছে দৃশ্যমান। অতএব আমার মতো আওয়ামী লীগের সব প্রার্থীই নির্বাচনের ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে। এর সমস্ত ধন্যবাদ বা কৃতিত্ব একমাত্র বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রাপ্য। ইনশা আল্লাহ এই আসনটি আমি তাকে উপহার দিতে পারব।

 

ঢাকা-১৫, আসন নং ১৮৮

(ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ০৪, ১৩, ১৪ ও ১৬ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,৪০,৫২৮। পুরুষ ভোটার : ১,৭৫,১০৪; নারী ভোটার : ১,৬৫,৪২৪

বিগত সংসদ সদস্য : কামাল আহমেদ মজুমদার

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৫বার; বিজয়ী ৩বার।

আমার নির্বাচনী এলাকাটিকে সন্ত্রাস, মাদক, চাঁদাবাজ ও উগ্রবাদ মুক্ত রাখব। প্রতি ঘরে শিক্ষার আলো থাকবে। ইব্রাহিমপুর থেকে বাংলা কলেজ পর্যন্ত রাস্তা করব। ঢাকা ১৫ হবে ডিজিটাল এলাকা। নারী শিশু যুব বয়স্ক সবার জন্য সুন্দর এলাকা গড়ব। সকল ধর্মের মানুষের জন্য একটি নিরাপদ ও শান্তিপূর্ণ সমাজ গড়ার জন্য শেখ হাসিনার সকল উন্নয়ন পরিকল্পনা গতিশীল ও বাস্তবায়নের জন্য আমি কাজ করে যাব। আমি অনেক উন্নয়ন কাজ করে যাচ্ছি সেগুলোকে চলমান রাখতে আমাকে ভোট দিন আমি আপনাদের পাশে ছিলাম এবং আগামীতেও থাকব।

 

ঢাকা-১৬, আসন নং ১৮৯

(ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ০২, ০৩, ০৫ ও ০৬ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,৭৪,৩৪০। পুরুষ ভোটার : ১,৮৯,১৮৩; নারী ভোটার : ১,৮৫,১৫৯

বিগত সংসদ সদস্য : ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৩বার; বিজয়ী ২বার।

এই এলাকায় জনগণের পাশে সব সময় ছিলাম এবং আছি। নিজের এলাকার উন্নয়ন নিজেকেই করতে হবে। আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন চলমান প্রক্রিয়া। আমাদের দুই দফা শাসন আমলে যা যা উন্নয়ন করা হয়েছে এটি এর পূর্বে কোনো সরকার আর করতে পারেনি। এলাকার জনগণের কাছে আমার প্রত্যাশা আমাদের আর একবার ভোট দিয়ে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিন। আমরা আপনাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি উন্নত বাংলাদেশ দিয়ে যাব।

 

ঢাকা-১৭, আসন নং ১৯০

(ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১৫, ১৮, ১৯ ও ২০ এবং ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট থানার ক্যান্টনমেন্ট এলাকা নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,১৩,৯৯। পুরুষ ভোটার : ১,৬৮,০০; নারী ভোটার : ১,৪৫,৯৯৮

বিগত সংসদ সদস্য : এসএম আবুল কালাম আজাদ

দল : বিএনএফ;  প্রতীক: টেলিভিশন

একাদশ নির্বাচনে প্রার্থী : আকবর হোসেন পাঠান; দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ : প্রথমবার।

আমি তো জন্মলগ্ন থেকেই নৌকার একজন মাঝি। এবার আওয়ামী লীগ আমাকে বাওয়ার সুযোগ দিয়েছে, আমি জয়ী হলে জনগণের জন্য কাজ করব। একজন সংসদ সদস্য হতে হলে তার দেশের কল্যাণে জাতীয় স্বার্থে কাজ করবার মনমানসিকতা থাকতে হবে। দেশের যেকোনো প্রান্তে যেকোনো প্রয়োজনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। আর নিজের নির্বাচনী এলাকাকে ভাবতে বা যে জায়গাটির পার্লামেন্ট মেম্বার হয় তাকে ভাবতে হয়, ওই জায়গাটি আমার বাড়ি। কাজেই প্রতিটি মানুষের হূদয়ে একটি ইচ্ছা কাজ করে যে আমি নিজের বাড়িটিকে সুন্দর করব। সেটা আমিও করব।

(এ আসনে কাদের খান আওয়ামী লীগের বিকল্প প্রার্থী হিসেবে এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।)  

 

ঢাকা-১৮, আসন নং ১৯১ 

(ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ০১, ১৭, ৪৩, ৪৪, ৪৫, ৪৬, ৪৭, ৪৮, ৪৯, ৫০, ৫১, ৫২, ৫৩, ৫৪ নং ওয়ার্ড ও ঢাকা বিমানবন্দর উপজেলা নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৫,৫৫,৭১৩। পুরুষ ভোটার : ২,৮৬,১৫৮; নারী ভোটার : ২,৬৯,৫৫৫

বিগত সংসদ সদস্য : সাহারা খাতুন

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৪বার; বিজয়ী ২বার।

আমি এলাকার এবং দলের স্বার্থে সব সময় কাজ করে এসেছি এবং ভবিষ্যতেও করে যাব। মাদক, সন্ত্রাস চাঁদাবাজিমুক্ত একটি নির্বাচনী এলাকাই আমার চাওয়া। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুই দফা শাসন আমলে দেশ আজ কোথায় চলে গেছে। আর একবার তিনি দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পেলে পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশ এমন একটি অবস্থানে চলে যাবে যেখান থেকে বাংলাদেশকে আর কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না। আমাদের আপনারা আর একবার সুযোগ দিন, আমরা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি ক্ষুধামুক্ত দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে দিয়ে যাই। এ ছাড়া আর কিছু চাওয়া পাওয়ার নেই আমাদের।

 

ঢাকা-১৯, আসন নং ১৯২

(সাভার উপজেলার শিমুলিয়া, ধামসোনা, পাথালিয়া, ইয়ারপুর, আশুলিয়া, বিরুলিয়া, বনগাঁও এবং সাভার ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৭,৪৭,৩০১। পুরুষ ভোটার : ৩,৮৬,০৪৭; নারী ভোটার : ৩,৬১,২৫৪

বিগত সংসদ সদস্য : এনামুর রহমান

দল : আ.লীগ; প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ২ বার; বিজয়ী ১ বার।

আমার এলাকার জনগণকে বলব, শেখ হাসিনার সরকারের সঙ্গে আপনারা ছিলেন। বাংলাদেশ আজ কোথায় চলে গেছে। আমাদের প্রচেষ্টা একটি উন্নত বাংলাদেশ, আর তার জন্য আমাদের অসমাপ্ত কাজ শেষ করা প্রয়োজন। আর তার জন্য আপনাদের ভোট আমাদের দরকার। বিগত সময়গুলোতে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাত, আইটি খাত, চিকিৎসা খাত এবং প্রযুক্তি খাতে যে উন্নয়ন হয়েছে সেটি প্রতিটি মানুষ এক বাক্যে স্বীকার করবে। এই উন্নয়নের জন্য দরকার আরেকবার শেখ হাসিনার সরকার।

 

ঢাকা-২০, আসন নং ১৯৩

(ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলা নিয়ে গঠিত।)

মোট ভোটার : ৩,২০,১৪৫। পুরুষ ভোটার : ১,৫৮,৪৬০; নারী ভোটার : ১,৬১,৬৮৫

বিগত সংসদ সদস্য : বেনজীর আহমেদ

দল: আওয়ামী লীগ;  প্রতীক : নৌকা

অংশগ্রহণ ৪বার; বিজয়ী ১বার।

এলাকার সেবায় আমি ছিলাম এবং ভবিষ্যতেও থাকব। একজন সাংসদের কাজ এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি সংসদে আইনও প্রণয়ন করা। একজন ল’ মেকার হিসেবে যেখানে যা ভূমিকা রাখা দরকার রাখব। এলাকার জনগণ আমাকে আবার নির্বাচিত করলে এলাকার অসমাপ্ত কাজ যেটুকু আছে তা শেষ করার চেষ্টা করব। মাদকমুক্ত একটি এলাকা রাখব, বেকার সমস্যা দূর করতে চেষ্টা করব। আমার এলাকার রাস্তাঘাট স্কুল কলেজ মসজিদ মাদরাসাসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করব। শেখ হাসিনার উন্নত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মেনুফেস্টো বাস্তবায়নে কাজ করব।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads