• শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮

শ্রমশক্তি

বায়রার একাংশের সংবাদ সম্মেলন

মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে সিন্ডিকেট নির্মূলের দাবি

  • কূটনৈতিক প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

মালয়েশিয়ায় বন্ধ থাকা বাংলাদেশি শ্রমবাজার শিগগিরই চালু হতে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে আগামীকাল মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার সরকারের সাথে বাংলাদেশের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। বৈঠকের এজেন্ডায় মাত্র ২৫ থেকে ৩০টি রিক্রুটিং এজেন্সির সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর সম্ভাবনা দেখছে রিক্রুটিং এজেন্সি মালিকদের সংগঠন বায়রার একাংশ। তাই মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে সিন্ডিকেট বাদ দিয়ে সব রিক্রুটিং এজেন্সির জন্য সমান সুযোগ রাখার দাবি জানিয়েছে তারা। গতকাল রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে ‘বায়রা সিন্ডিকেট নির্মূল ঐক্যজোটের’ ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির আহ্বায়ক আলী হায়দার চৌধুরী বলেন, সরকারের প্রতিশ্রুত স্বল্প খরচে বৈধভাবে, সব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির অংশগ্রহণ ও একটি স্বচ্ছ ও সর্বজন গৃহীত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর প্রত্যাশিত বৈঠককে আমরা স্বাগত জানাই। মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার বাংলাদেশিদের জন্য উন্মুক্ত হোক এটাই আমাদের কাম্য। কিন্তু এই এজেন্ডায় উল্লিখিত ১ ও ২ নম্বর বিষয়সহ আলোচ্যসূচিতে কিছু জরুরি বিষয়ের অনুপস্থিতি হতবাক করেছে। তিনি বলেন, বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে মোট এক হাজার ৮০০ লাইসেন্সধারী রিক্রুটিং এজেন্সির মধ্যে প্রায় এক  হাজার ২০০ রিনিউ করা বৈধ এজেন্সিকে বঞ্চিত করে শুধুমাত্র ২৫টি লাইসেন্স নিয়ে নতুন করে সিন্ডিকেট গঠনের নীল নকশার অশুভ প্রক্রিয়া চলছে। যার ইঙ্গিত এক নম্বর এজেন্ডার বিষয়টিতে পাওয়া যায়। যেটি বাস্তবায়িত হলে দেশের ৯৯ ভাগ রিক্রুটিং এজেন্সি বঞ্চিত হবে এবং বাজার শিগগিরই আগের মতো অস্থিতিশীল হবে, যা সরকারের প্রতিশ্রুতি ও স্বচ্ছ ভাবমূর্তির সম্পূর্ণ বিপরীত। আমরা মালয়েশিয়া শ্রমবাজার নিয়ে কোনো সিন্ডিকেট চাই না। স্বচ্ছ ও সুনির্দিষ্ট নিয়মে স্বল্প খরচে সব এজেন্সির জন্য কাজের সুযোগ নিশ্চিত করে শ্রমিক পাঠাতে চাই।

তিনি আরো বলেন, এই সেক্টরের বিপক্ষে বায়রার এক হাজার ২০০ সদস্য বিপক্ষে, শ্রমিকের স্বার্থের বিপক্ষে গিয়ে সিন্ডিকেট গড়ে উঠলে তা হবে আত্মঘাতী সিন্ধান্ত। তিনি উল্লেখ্য করেন, যখানে নেপাল এক হাজার ৬০০ রিক্রুটিং এজেন্সি নিয়ে সম্মিলিতভাবে স্বল্প খরচে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর মডেল স্থাপন করেছে। সেখানে আমরা কেন ১২০০ এজেন্সিকে বঞ্চিত করে একটি বিশেষ মহলকে সুবিধা দিতে তৎপর। আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার সব বৈধ এজেন্সির জন্য উন্মুক্ত করা হোক। প্রয়োজনে নেপালকে অনুসরণ করা হোক। আমরা এজেন্সির লাইসেন্সের সংখ্যা সংক্রান্ত এজেন্ডা বাতিল চাই। সব বৈধ এজেন্সির কাজের সমান সুযোগ চাই।  

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে সব রিক্রুটিং এজেন্সির জন্য উন্মুক্ত রাখতে আজ সোমবার প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সামনে মানববন্ধন করবেন এজেন্সি মালিকরা। এরপর মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি দেওয়া হবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সমন্বয়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাদাত হোসেন, ঐক্যজোটের সদস্য সচিব টিপু সুলতান প্রমুখ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads