• বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

জাতীয়

টিকার যৌথ উৎপাদনে যাবে বাংলাদেশ

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১০ জুন ২০২১

শিগগিরই দেশে করোনাভাইরাসের টিকার যৌথ উৎপাদন শুরু হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ বৃহস্পতিবার (১০ জুন) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতি কর্তৃক ফিলিস্তিনকে জরুরি ওষুধ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশে করোনা টিকার যৌথ উৎপাদনের বিষয়ে আলোচনা চলছে। শিগগিরই দেশে যৌথভাবে ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরুর বিষয়টি ঘোষণা করা হবে। এ বিষয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হবে। তবে দেশের কোন ওষুধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি টিকা তৈরি করবে সেটা সংশ্লিষ্টরা দেখবেন। যেসব কোম্পানির সক্ষমতা আছে, পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে তারা উৎপাদনে যেতে পারে।

টিকা উৎপাদনে সফল হলে বাংলাদেশ পরবর্তীতে নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে টিকা রফতানি করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ড. মোমেন।

করোনার টিকা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন দেশের কাছ থেকে টিকা চাওয়া হয়েছে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, করোনার টিকা নিশ্চিত করতে আমরা অনেক দেশের কাছে টিকা চেয়েছি। সবাই আমাদের বলে টিকা দেবে, তবে কবে দেবে সেটা বলে না।

চীন থেকে টিকা আনার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী ১৩ জুন চীন থেকে ছয় লাখ ডোজ উপহারের টিকা দেশে আসবে। তবে চীন থেকে কী পরিমাণ টিকা (ক্রয় পদ্ধতিতে) দেশে আসবে বা কবে আসবে এটার বিস্তারিত আমি বলতে পারব না, এটা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলতে পারবে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রেজেনেকার টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ। দেশটি অ্যাস্ট্রেজেনেকার টিকা দিচ্ছে কি না জানতে চাইলে মোমেন বলেন, আমরা যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১.৫ মিলিয়ন অ্যাস্ট্রেজেনেকার টিকা চেয়েছি। তারা প্রথমে আমাদের টিকা দিতে রাজি ছিল না, কেননা তারা সেসব দেশকে টিকা দেয় যেখানে করোনায় মৃত্যুহার অনেক বেশি। যদিও পরবর্তীতে তারা আমাদের টিকা দিতে রাজি হয়েছে। তবে প্রতিশ্রুত টিকা কবে দেবে সেটা নিশ্চিত করেনি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads