• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯
করোনায় আরো ১৮৭ জনের মৃত্যু

সংগৃহীত ছবি

জাতীয়

করোনায় আরো ১৮৭ জনের মৃত্যু

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৬ জুলাই ২০২১

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরো ১৮৭ জন। আর এ সময়ে নতুন করে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে আরো ১২ হাজার ১৪৮ জনের শরীরে।

একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ১২ হাজার ১৪৮ জন। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ৮৩ হাজার ৯২২ জনে।

আজ শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন আট হাজার ৫৩৬ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনা থেকে নয় লাখ ১৪ হাজার ৩৪৩ জন সুস্থ হলেন। শনাক্ত-মৃত্যুর পাশাপাশি গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে রোগী শনাক্তের হারও কমেছে।

অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে রোগী শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৯৬ শতাংশ আর এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৫ দশমিক শূন্য আট শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৪ দশমিক ৩৬ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৬১ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৪৫ হাজার ৪৫টি আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪১ হাজার ৯৪৭টি।

দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৭১ লাখ ৮৬ হাজার ৩৬৭টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৫২ লাখ ৭০ হাজার ৭৪০টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ১৯ লাখ ১৫ হাজার ৬২৭টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে মারা যাওয়া ১৮৭ জনের মধ্যে পুরুষ ১১৩ জন আর নারী ৭৪ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেলেন ১২ হাজার ১৬৬ জন আর নারী মারা গেলেন পাঁচ হাজার ২৯৯ জন।

তাদের মধ্যে বয়স ভিত্তিক বিশ্লেষণে অধিদফতর জানিয়েছে, ১৮৭ জনের মধ্যে ১০০ বছরের ঊর্ধ্বে রয়েছেন একজন, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে রয়েছেন চারজন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে আছেন ১২ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৩০ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৫৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৩৬ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩০ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে সাতজন আর ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছে দুইজন।

তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ৬৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৩৬ জন, রাজশাহী বিভাগের ১৪ জন, খুলনা বিভাগের ৩৯ জন, বরিশাল বিভাগের আটজন, সিলেট বিভাগের নয়জন, রংপুর বিভাগের ছয় জন আর ময়মনসিংহ বিভাগের রয়েছেন সাতজন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, মারা যাওয়া ১৮৭ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ১৪৭ জন, বেসরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন আর বাড়িতে মারা গেছেন ১২ জন।

এর আগে, ১৫ জুলাই (বৃহস্পতিবার) ২২৬ জনের মৃত্যু হয়। বুধবার ২১০ জন, মঙ্গলবার ২০৩, সোমবার ২২০ ও রোববার রেকর্ড ২৩০ জন মারা যান। তার আগে ১০ জুলাই (শনিবার) ১৮৫, ৯ জুলাই (শুক্রবার) ২১২ ও ৮ জুলাই (বৃহস্পতিবার) ১৯৯ জনের মৃত্যু হয়। গত ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো দেশে মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়ায়। এদিন মৃত্যু হয় ২০১ জনের।

বাংলাদেশে করোনা প্রথম শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এর ১০ দিন পর ভাইরাসটিতে একজনের মৃত্যুর তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads