• সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯

জাতীয়

রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে জাতি গর্বিত সন্তানকে হারালো : বাংলাদেশ ন্যাপ

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ৩০ নভেম্বর ২০২১

একুশে পুরস্কার, স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার ও বাংলা একাডেমি পুরস্কারে ভূষিত বিশিষ্ট নজরুল গবেষক, ভাষা সৈনিক জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দু:খ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া।  

আজ মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক শোকবার্তায় নেতৃদ্বয় রুহের মাগফেরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বলেন, দেশের স্বনামধন্য এই পণ্ডিত ব্যক্তির মৃত্যুতে জাতি তার একজন গর্বিত সন্তানকে হারালো।

তারা বলেন, অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বহুমাত্রিক প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে স্বাধীনতা, দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার অবদান জাতি শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।

নেতৃদ্বয় আরো বলেন, অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের মত প্রথিতযশা পণ্ডিতের মৃত্যু জাতির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। তিনি তার লেখনীর মাধ্যমে দিকনির্দেশনামূলক পরামর্শ দিয়ে জাতিকে পথ দেখিয়েছেন এবং জাগ্রত করার চেষ্টা করেছেন। তার ক্ষুরধার সৃষ্টি দেশপ্রেমিক তরুণ ও যুবসমাজকে আলোড়িত এবং দেশ গড়ার কাজে অনুপ্রাণিত করেছে।

উল্লেখ্য, জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ৭ অক্টোবর পেটের ব্যথা নিয়ে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি হন। উন্নত চিকিৎসার জন্য পরিবারের সদস্যরা রফিকুল ইসলামকে ভারতে নিয়ে যেতে চাইলেও তিনি রাজি হননি। পরে তাকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিশিষ্ট নজরুল গবেষক অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রথম নজরুল অধ্যাপক এবং নজরুল গবেষণা কেন্দ্রের প্রথম পরিচালক। সেসঙ্গে ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছিলেন। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে প্রথম গ্রন্থ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষের ইতিহাসের প্রথম গ্রন্থটিসহ প্রায় ৩০টি বই লেখা এবং সম্পাদনা করেছেন তিনি।

জীবদ্দশায় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম একুশে পুরস্কার, স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার ও বাংলা একাডেমি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

এছাড়া এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে ঘোষিত প্রথম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদকেও ভূষিত হয়েছিলেন তিনি। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাংলা একাডেমির সভাপতির দায়িত্বেও ছিলেন।  ২০১৮ সালে সরকার তাকে জাতীয় অধ্যাপক ঘোষণা করে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads