• রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯
টিটিই শফিকুল নির্দোষ, ৪০ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন জমা

সংগৃহীত ছবি

জাতীয়

টিটিই শফিকুল নির্দোষ, ৪০ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন জমা

  • ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৬ মে ২০২২

আলোচিত টিটিই শফিকুল ইসলামের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি।। রেলমন্ত্রীর আত্মীয় পরিচয় দেওয়া তিন যাত্রীকে জরিমানা করে আলোচনায় আসা ট্রেনের টিকিট পরিদর্শক (টিটিই) শফিকুল ইসলাম সম্পূর্ণ নির্দোষ। টিটিইকে নির্দোষ উল্লেখ করে এ ঘটনা তদন্তের জন্য গঠিত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।

তদন্ত কমিটির প্রধান ও পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা (এটিও) সাজেদুল ইসলাম আজ সোমবার বেলা ১১টা ২০ মিনিটে দিকে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) শাহীদুল ইসলামের কার্যালয়ে গিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন।

সাজেদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, অভিযোগকারী, টিটিই, ঘটনাস্থলে উপস্থিত আরও কয়েকজনসহ মোট নয়জনের বক্তব্য নেওয়া হয়েছে। সুপারিশসহ মোট ৪০ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। গার্ড শরিফুল ইসলামকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। শরিফুলের জবাব পাওয়ার পর তার বিরুদ্ধেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শাহীদুল ইসলাম বলেন, ঘটনার পর যে কর্মকর্তা (বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা নাসির উদ্দীন) টিটিই শফিকুলকে বরখাস্ত করেছিলেন, তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশের জবাব পেলে বিষয়টি আরও পরিষ্কার হবে। আজকে যে তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেয়েছি, সেটা ছিল ট্রেনের ভেতরের ঘটনার বর্ণনা।

উল্লেখ্য যে, গত ৫ মে রাতে খুলনা থেকে ঢাকাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে বিনা টিকিটে তিন যাত্রী ঢাকায় যাচ্ছিলেন। তারা ট্রেনের এসি কামরায় বসে ছিলেন। তাদের কাছে ভাড়া চাইলে টিটির সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে ওই তিন যাত্রী রেলমন্ত্রীর আত্মীয় পরিচয় দেন। শফিকুল ইসলাম তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ৫০ টাকা ভাড়া নিয়ে এসি কামরা থেকে শোভন কামরায় পাঠান। ওই তিন যাত্রী শোভন কামরাতেই ঢাকায় পৌঁছান। এর কিছুক্ষণের মধ্যে মুঠোফোনে টিটিই শফিকুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads