• রবিবার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯
ভূঞাপুরে বন্যায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি, নদী ভাঙন

উপজেলার ভালকুটিয়া, চিতুলিয়া পাড়া ও কোনাবাড়ী চর থেকে তোলা

ছবি: আব্দুল লতিফ তালুকদার

প্রাকৃতিক দুর্যোগ

ভূঞাপুরে বন্যায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি, নদী ভাঙন

  • ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২১ জুন ২০২২

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে বন্যার পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। দেখা দিয়েছে ভাঙন, অর্ধশতাধিক গ্রামের প্রায় পঞ্চাশ হাজার মানুষ পা‌নিব‌ন্দি হয়ে পড়েছে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। ফলে চরম দুভোর্গের পাশাপা‌শি দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পা‌নির সংকট। বিশেষ করে করে উপজেলার গাবসারা, অর্জুনা ইউনিয়নের চরাঞ্চলের সবগুলো গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বন্যায় আক্রান্ত হওয়ার আতঙ্কে আছেন বাজারের ব্যবসায়ীরা।

সরেজ‌মিনে, সোমবার সকালে উপজেলার গো‌বিন্দাসী‌ ভালকুটিয়া কষ্টাপাড়া এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, হুট করেই যমুনা নদীর পা‌নি পাড় উপচে লোকালয়ে প্রবেশ করেছে। এতে ঘর-বা‌ড়ি ও আশপাশে পা‌নি প্রবেশ করায় গবা‌দি পশু নিয়ে বিপাকে পড়েছেন খামারিরা। দেখা দিয়েছে গো-খাদ্যের অ‌ভাব। এছাড়াও তীব্র স্রোতে ভাঙন দেখা দিয়েছে ভালকুটিয়া, চিতুলিয়াপাড়া ও কোনাবাড়ীসহ নতুন নতুন এলাকা। বাড়ি ঘর নিয়ে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ভাঙ্গন কবলিতরা। জিও ব্যাগ ফেলেও ভাঙন রোধ হচ্ছে না। ভাঙন রোধে স্থায়ী বাঁধ নির্মানের দাবী জানিয়েছেন ভাঙনকবলিত এলাকার মানুষ।

এছাড়াও নদীতে পা‌নি বৃ‌দ্ধি পাওয়ায় জেলার গোপালপুর, ভূঞাপুর, কালিহাতী, টাঙ্গাইল সদর, নাগরপুর ও বাসাইল উপজেলার ১৮টি ইউনিয়নের প্রায় ১১৫টি গ্রাম বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। উপজেলায় বিভিন্ন গ্রামের মানুষ পা‌নিব‌ন্দি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

এ‌দিকে সোমবার (২০ জুন) বিকেলে যমুনার পা‌নির তীব্র স্রোতে ভূঞাপুর উপজেলার গো‌বিন্দাসী-ভালকুটিয়া সড়ক ভেঙে যাওয়ায় ৬ গ্রামে যাতাতায়াত ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলের মাঠ।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি বিপৎসীমার ৪৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

ভূঞাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. ইশরাত জাহান বলেন, উপজেলার কয়েক‌টি ইউ‌নিয়নের বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করা হয়েছে। ক্ষ‌তিগ্রস্থদের সহায়তার জন্য বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। বরাদ্দ পেলেই ত্রাণ বিতরণ করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads