• বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮
বহুরূপী তানজিন তিশা

সংগৃহীত ছবি

শোবিজ

বহুরূপী তানজিন তিশা

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২১ এপ্রিল ২০২১

টিভি নাটকের বর্তমান সময়ের আলোচিত অভিনেত্রী তানজিন তিশা। মেধা আর সুনিপুণ অভিনয় দিয়ে মাত্র কয়েক বছরেই নিজের শক্ত একটা অবস্থান তৈরি করে নিয়েছেন তিনি। শুধু নাটকেই নয়, মডেলিংয়েও সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। দর্শকের পাশাপাশি নির্মাতাদের কাছেও আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন এ মডেল-অভিনেত্রী। প্রতিনিয়ত দর্শকের সামনে হাজির হচ্ছেন নিত্যনতুন চরিত্র নিয়ে। নিজেকে ভাঙছেন নিত্যনতুন ইমেজে। সাম্প্রতিক সময়ে নিজেকে অনেকখানি পরিবর্তন করেছেন এ অভিনেত্রী। একেক নাটকে একেক রকম মেকআপ-গেটআপে দেখা যাচ্ছে তাকে।

প্রথমবারের মতো কাজের বুয়া চরিত্রে অভিনয় করেছেন এই অভিনেত্রী। এখানে তার নাম আকলিমা। গত ২৭ মার্চ থেকে এনটিভিতে প্রচারিত হচ্ছে ধারাবাহিক নাটক ‘হাউস নং ৯৬’। এ নাটকে নতুন একটি চমক যোগ করেছেন এই অভিনেত্রী। এর সাতটি পর্ব তিশার গল্পে নির্মিত হয়েছে। এ নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত তানজিন তিশা। তিনি বলেন, ‘আমার কখনোই মনে হয়নি যে আমি গল্প নিয়ে ভাবতে পারব বা আমার গল্পে নাটক হবে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের চিন্তাভাবনা বদলায়। আমাকে এই ধারাবাহিকে অভিনয়ের জন্য যেদিন হিমি ভাই ফোন করলেন তখন তিনি বলেছিলেন একটি বিল্ডিংয়ের গল্প। আমার তখনই মাথায় ভাবনা এলো যে, আমাদের রাজধানীর প্রতিটি বাসাতেই একজন করে হলেও বুয়া কাজ করেন। তাদেরকে ঘিরে অনেক ধরনের মজাদার কিংবা ভয়ংকর ঘটনা ঘটে থাকে। আমি এমন ভাবনা শেয়ার করার পর হিমি ভাই এমন গল্প নিয়ে বিশেষ সাতটি পর্ব নির্মাণের জন্য সম্মত হলেন।’ ক্যারিয়ারে প্রথম কাজের বুয়া চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিশা। এজন্য নিজেকে একটু তৈরি করতে হয়েছে। চরিত্রটি নিয়ে তিনি বলেন, ‘শুরুতে আকলিমা চরিত্রটিতে নিজেকে ফুটিয়ে তুলতে একটু কঠিন ছিল। কিন্তু পরে আকলিমা কেমন করে কথা বলতে পারে, কীভাবে হাঁটতে পারে, আরও কী কী করতে পারে সবই নিজের মধ্যে নিতে পেরেছিলাম। গল্পটার শেষে একটা টুইস্ট আছে। আমার বিশ্বাস আমার অভিনীত বিশেষ সাতটি পর্ব দর্শকের ভীষণ ভালো লাগবে।’ নাটকটি প্রতি সপ্তাহে মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ৪০ মিনিটে প্রচারিত হচ্ছে এনটিভিতে।

এই গ্ল্যামারকন্যা শুধু নাটকেই নয়, এরই মধ্যে ওটিটি প্ল্যাটফরমেও নাম লিখেছেন। সঞ্জয় সমাদ্দার পরিচালিত ‘শিকল’ শিরোনামের একটি ওয়েব সিরিজে দারুণ প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। এতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন তানজিন তিশা। এটিই তার প্রথম ওয়েব সিরিজ। তিনি ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন শতাব্দী ওয়াদুদ। সমাজ ও আশপাশের মানুষের নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি একজন নারীর জীবনকে কীভাবে দুর্বিষহ করে তোলে সেটাই শিকলে তুলে ধরা হয়েছে। এদিকে এই অভিনেত্রী বর্তমানে ঈদের নাটক নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। শফিকুর রহমান শান্তনুর রচনা ও নাজমুল রনির পরিচালনায় ‘ব্যাক ফায়ার’, সঞ্জয় সমাদ্দারের ‘এন্টি হিরো’সহ কয়েকটি নাটকের শুটিং শেষ করেছেন তিশা। হাতে রয়েছে একগুচ্ছ একখণ্ডের নাটকের কাজ। সফলতার সঙ্গে ছোটপর্দা দাপিয়ে বেড়ালেও চলচ্চিত্রে দেখা নেই এ অভিনেত্রীর। চলচ্চিত্রের জন্য তিনি নিজেকে প্রস্তুতও করেছেন। ব্যাটে-বলে মিলে গেলে চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন বলে জানান তিনি। তিশা বলেন, ‘আমার চলচ্চিত্রে কাজ করার ইচ্ছে আছে। আমার যদি গল্প, চরিত্রসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয় মনের মতো হয় তাহলে অবশ্যই আমি চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করতে চাই। তবে চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্য চুক্তি স্বাক্ষর না হওয়া পর্যন্ত আমি ছোটপর্দায় নিজেকে ব্যস্ত রাখতে চাই। কারণ এই মাধ্যমটিই আমাকে আজকের তানজিন তিশাতে পরিণত করেছে।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads