• রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯
পুতুলের ‘হারমনি’

গায়িকা সাজিয়া সুলতানা পুতুল

সংগৃহীত ছবি

শোবিজ

পুতুলের ‘হারমনি’

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২২ জুন ২০২২

মা হয়েছেন ‘ক্লোজআপ ওয়ান’ গায়িকা সাজিয়া সুলতানা পুতুল। গত সোমবার দিনগত রাত ১২টার দিকে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ফুঠফুটে এক কন্যাসন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। বর্তমানে পুতুল ও সদ্যজাত কন্যাশিশু সুস্থ আছেন বলে গায়িকা নিজেই নিশ্চিত করেছেন। মেয়ের জন্য তিনি দোয়াও চেয়েছেন। মেয়ে পৃথিবীতে আসার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সদ্যজাতের নামও ঠিক করে ফেলেছেন গায়িকা পুতুল এবং তার স্বামী সৈয়দ রেজা আলী। সংগীতশিল্পী দম্পতি তাদের মেয়ের নাম রেখেছেন হারমনি সৈয়দা গীতলীনা। তারা দুজনেই গানের মানুষ। তাই সংগীতকে ভালোবেসে মেয়ের এমন নাম রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুতুল। গায়িকা বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে কন‌্যাসন্তানের মা হয়েছি। প্রতিটি নারীর কাছে এটি অন্যরকম এক অনুভূতি। মেয়ের জন্মানোর কথা ছিল আরো অন্তত তিন সপ্তাহ পর। তবে সোমবার রাত থেকে টের পেতে থাকলাম, সে আর অপেক্ষা করতে মোটেই রাজি নয়। পৃথিবীর আলোয় আসতে তার প্রস্তুতি আমার চেয়ে বেশি! তাই সময়ের আগেই জন্ম নিল আমার কন্যা গীতলীনা!’ গত বছরের ১৪ এপ্রিল অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী ব্যাংকার ও গিটারিস্ট রেজা আলীর সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন কণ্ঠশিল্পী পুতুল। সেদিন মাঝরাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিয়ের ছবি প্রকাশ করে সবাই খবরটি জানান। রেজার কম্পোজিশনে কয়েকটি গানে কণ্ঠ দেন পুতুল। পরিচয় সেখান থেকেই। সেই পরিচয়ই পরে পারিবারিকভাবে পরিণয়ে রূপ নেয়।

বিয়ের ১০ মাসের মাথায়ই গত ১৪ ফেব্রুয়ারি সুখবর দেন পুতুল। জানান, তিনি মা হতে চলেছেন। সে সময় তিনি গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, সবকিছু ঠিক থাকলে জুনের শেষ সপ্তাহে অথবা জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে তাদের পরিবারে নতুন সদস্য আসতে চলেছে। তবে নির্ধারিত সময়ের কিছুটা আগেই গায়িকার সংসার আলো করে চলে এলো তাদের নতুন সদস্য। যদিও এটি পুতুলের দ্বিতীয় সংসার। এর আগে ২০১৯ সালের ১৫ মার্চ কানাডাপ্রবাসী ফটোগ্রাফার নুরুল ইসলামের সঙ্গে তার আংটি বদল হয়। ২০ মার্চ হয় বিয়ে। বিয়ের ৮ মাস আগে পুতুলের বাড়িতে পারিবারিকভাবে সেই বিয়ের সম্বন্ধ আসে। কিন্তু টেকেনি সংসার। গত বছরের ২৪ মার্চ বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায় পুতুল ও নুরুলের। ওই বছরই গায়িকা রেজা আলীকে বিয়ে করেন। ‘ক্লোজআপ ওয়ান : তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ গানের প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় আসরে সেরা দশের অন্যতম প্রতিযোগী ছিলেন পুতুল। নিজেকে শুধু গান গাওয়ার মধ্যে নয়, একসময় লেখালেখিতে ব্যস্ত করে তোলেন। গান লেখা, সুর করা ও সংগীত পরিচালক হিসেবেও দেখা গেছে তাকে। গানের অনুষ্ঠানের উপস্থাপক হয়েও দর্শকের সামনে এসেছেন পুতুল।

 

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads