• বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯
আলোচনায় নওশাবার ‘পাপবাজার’

সংগৃহীত ছবি

শোবিজ

আলোচনায় নওশাবার ‘পাপবাজার’

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০১ আগস্ট ২০২২

মডেল-অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদ। একাধারে নাটক, বিজ্ঞাপন ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। দীর্ঘদিন সিসিমপুরের ইকরি-মিকরি চরিত্রে কণ্ঠদান ও পাপেটটি পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত এই মডেল কন্যা। সম্প্রতি অনিক কান্তি সরকার পরিচালিত ‘পাপবাজার’ ছবিতে অভিনয় করেছেন এই তারকা। এই ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে এই তারকা বলেন, অনেক ছোট গল্প যেমন পাঠকের ভাবনার দুয়ার খুলে দেয়, তেমনি শর্টফিল্মও দর্শক মনোযোগ ধরে রাখতে পারে। কিন্তু সে ক্ষেত্রে তার গল্প ও চরিত্র দর্শকের মনে ছাপ ফেলার মতো হয়। প্রযোজক কাজী রাকিব যখন আমাকে ‘পাপবাজার’ ছবির গল্প শোনান, তখনই মনে হয়েছে এ ধরনের গল্প দর্শককে ভাবাবে। কারণ, এ ছবির গল্পে তুলে ধরা হয় কীভাবে নিষ্পাপ নারীদের ফাঁদে ফেলে তাদের যৌন পেশায় নিয়ে যাওয়া হয়। যা থেকে এই বার্তা পাওয়া যায় যে, আপন মানুষও সব সময় আপন থাকে না।

এমন গল্প শুনে ‘পাপবাজার’ স্বল্পদৈর্ঘ, নাকি ‘পূর্ণদৈর্ঘ ছবি হবে- তা নিয়ে ভাবার প্রয়োজন মনে করিনি। আমার শুধু মনে হয়েছে, এমন একটি গল্পে নিজেকে তুলে ধরতে পারাটাই হবে আনন্দের। আরেকটি বিষয় হলো, এই ছবিতে নারী নির্যাতন, মানব পাচার ও মাদকের নেশায় যুবসমাজের অবক্ষয়ের চিত্রও তুলে ধরা হয়েছে, যা দর্শককে ভাবাবে বলেই আমার ধারণা। ছবিটি নিয়ে নওশাবা আশাবাদী হওয়ার আরেকটি কারণ, স্বল্পদৈর্ঘ ছবিতে দর্শক দিন দিন বেড়ে যাওয়া। নওশাবার কথায়, অনলাইন দুনিয়া স্বল্পদৈর্ঘ ছবির জন্য নতুন সব পথ খুলে দিয়েছে। যে কারণে তরুণ নির্মাতারা এখন স্বল্পদৈর্ঘ ছবি নির্মাণের দিকে ঝুঁকে পড়েছেন। এতে করে পূর্ণদৈর্ঘ ছবি নির্মাণের আগে কাজের অভিজ্ঞতা ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন তারা। নতুন অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও সুযোগ পাচ্ছেন প্রতিভা তুলে ধরার। অন্যদিকে, দর্শকও এখন ছোট কন্টেন্টের ছবি দেখতেই বেশি পছন্দ করছেন। এ সবকিছু মিলিয়ে ‘পাপবাজার’ দর্শক প্রত্যাশা পূরণ করার মতো আয়োজন বলেই আমি মনে করি।

এদিকে, পাপবাজারের পর আরো দুটি স্বল্পদৈর্ঘ ছবির কাজ শুরু করেছেন নওশাবা। এই অভিনেত্রী জানান, তাঁর অভিনীত সরকারি অনুদান পাওয়া ‘ছায়াবৃক্ষ’ ছবির শুটিং এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। বন্ধন বিশ্বাস পরিচালিত এই ছবির এখন শুধু ডাবিং বাকি। এ ছবির পাশাপাশি সাইফ চন্দনের ‘পোস্টার’, হাবিবের ‘জলকিরণ’ ও সৈকত নাসিরের ‘নেটওয়ার্ক’ ছবির কাজ প্রায় শেষ করে ফেলেছেন। এ তিনটি ছবিতেই ভিন্ন সব চরিত্রে দেখা যাবে নওশাবাকে। এ তো গেল ছবির কথা। এর বাইরে নওশাবা আর কী নিয়ে ব্যস্ত? যে প্রশ্নে তিনি বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে পরিচালনায় মনোযোগ দিয়েছি। কাজ করছি পাপেট থিয়েটার নিয়ে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads