• বৃহস্পতিবার, ১ জুন ২০২৩, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

সংগৃহীত ছবি

যোগাযোগ

বাসের ভাড়া কমতে পারে কিলোতে ৫ পয়সা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ৩১ আগস্ট ২০২২

দেশে বাস ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে চার থেকে পাঁচ পয়সা কমতে পারে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিআরটিএর একজন কর্মকর্তা। ডিজেলের দাম লিটারে পাঁচ টাকা কমানোর কারণে ওই ভাড়া সমন্বয় করা হবে তিনি জানান। তবে স্বল্প দূরত্বে এই ভাড়া কমানো কোনো প্রভাবই পড়বে না জানা গেছে।

এই হিসাবে প্রতি এক শ কিলোমিটরের জন্য চার থেকে পাঁচ টাকা ভাড়া কমতে পারে। তেলের দাম কমানোর পর বাস ভাড়া কমবে কি না, এ নিয়ে জনমনে প্রশ্ন বড় হয়ে উঠেছে।

২০১৬ সালের ২৪ এপ্রিল সরকার ডিজেলের দর কমায়। এরপর বিআরটিএ থেকে বাস ভাড়া কিলোমিটারে ৩ পয়সার মতো কমানোর সিদ্ধান্ত আসে, যেটি আসলে প্রভাব পড়ার মতোও নয়। প্রতি ১০০ কিলোমিটারে ৩ টাকা কমানোর কথা ছিল।

সে সময় আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দর ক্রমেই কমছিল। দেশে দাম কমানোর পর প্রভাব দেখে সরকার পরে আরো দর কমানোর বিষয়ে ঘোষণা দেয়। কিন্তু সে সময় তেলের দর কমার প্রভাব বাজারে না পড়ার পর সরকার তেলের দাম আর কমায়নি।

গত ৫ আগস্ট ডিজেলের দর লিটারে ৩৪ টাকা বাড়ানোর পর মহানগরে কিলোমিটারে ৩৫ পয়সা আর দূরপাল্লায় ভাড়া বাড়ে ৪০ পয়সা হিসেবে। ঠিক ২৫ দিন পর ডিজেলে দর ৫ টাকা কমার পর বিআরটিএ কী সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে জানতে চাইলে বিআরটিএর পরিচালক (প্রকৌশল) শীতাংশু শেখর বিশ্বাস বলেন, ডিজেলের দাম কমায় আজকের মধ্যেই বাসের ভাড়া সমন্বয় করা হবে। সেক্ষেত্রে ভাড়া আগের থেকে ৪ থেকে ৫ পয়সা কমতে পারে।

তেলের দাম বাড়ানোর পর ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত জেলায় জেলায় বাস বন্ধ করে দেওয়ার যে ঘটনা ঘটেছিল, দাম কমার পর বাস মালিকদের পক্ষ থেকে আর কিছু বলা হচ্ছে না।

তবে দাম ৩৪ টাকা বাড়ানোর পর কেবল পাঁচ টাকা কমা নিয়ে মানুষের মধ্যে অসন্তোষ স্পষ্ট। বাস যাত্রীরা ভাবছেন, এই দাম কমার সুফল যাত্রীরা পাবে না, পাবে বাস মালিকরা।

বেসরকারি চাকরিজীবী ইসমাইল আলী এই যাত্রীদের একজন। অফিস করতে বাড্ডা থেকে নিয়মিত যেতে হয় তাকে গুলিস্তানে।

তিনি বলেন, সরকার তো একবারে অনেক টাকা বাড়িয়েছে, এখন এত কম কমাল কেন। এতে বাসের ভাড়ায় কতটা প্রভাব পড়বে? এটা সাধারণ মানুষের সঙ্গে মশকরা করা ছাড়া আর কিছুই নয়।

বাসের ভাড়া যা কমবে তা আদায় করা হবে না। দেখা যাবে সেই আগের বাড়তি ভাড়াই নেওয়া হবে। আমাদের যে পকেট কাটা যাচ্ছে, তা চলতেই থাকবে। এসব দেখার কেউ নেই।

সুমাইয়া আফরিন নামের এক নারী যাত্রী বলেন, আমরা এখন বুঝি তেলের দাম ৫ টাকা কমলে বাসের ভাড়া কত কমতে পারে। তেলের দাম বাড়ার কারণে বাজারে প্রতিটা জিনিসের দাম বেড়েছে। ৫ টাকা কমায় কোনো কিছুর দাম কমবে না। তাহলে এই অল্প টাকা কমিয়ে লাভ কী?

যাত্রী অধিকার নিয়ে সোচ্চার সংগঠন বাংলাদেশের যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, তেলের দাম ৫ টাকা কমানোর মধ্যে দিয়ে গণপরিবহন এবং পণ্য পরিবহনের মালিকদের বিশেষ সুবিধা দেওয়া হলো। আমরা অতীতে দেখেছি, কমানোর পরে সেই ভাড়া কোথাও কার্যকর হয় না।

বর্তমানে ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে বাস ভাড়া কিলোমিটারপ্রতি আড়াই টাকা। আর দূরপাল্লায় ২ টাকা ২০ পয়সা।

দুই ক্ষেত্রেই নির্ধারিত হারের চেয়ে বেশি আদায়ের প্রমাণ মিললেও বিআরটিএ কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি। চাপের মুখে বাসমালিকরা ওয়েবিল তুলে দিয়ে কিলোমিটার হিসাব করে ভাড়া আদায়ের ঘোষণা দিয়েও তা বাস্তবায়ন করেনি। ফলে যাত্রীদের ঠকানো থামছে না।

তবে দূরপাল্লায় ভাড়া বেশি আদায়ে দূরত্ব বাড়িয়ে দেখানোর অভিযোগ আছে। তবে সেখানে একটি বিভ্রান্তি তৈরি হয় অন্য কারণে। যে ভাড়া ঠিক করে দেওয়া হয়েছে, সেটি ৫২ আসনের। যাত্রীর আরামের জন্য আসন কমালে আনুপাতিক হারে ভাড়াও বাড়বে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads