• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জৈষ্ঠ ১৪২৯

ফিচার

শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত ক্যাম্পাস

  • সিনথিয়া সুমি
  • প্রকাশিত ২৪ অক্টোবর ২০২১

শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। মূলত একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস বলতেই চোখের সামনে ভেসে উঠে হাজারো তারুণ্যের স্বপ্নময় মুখ। চীনের উহান প্রদেশের শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের আতঙ্ক এবং লকডাউনের কবলে পড়ে ১৬ মার্চ ২০২০ সালে করোনা সতর্কতা হিসেবে বাংলাদেশ সরকার প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে ৩১ মার্চ ২০২০ পর্যন্ত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে। এরপর ধাপে ধাপে ছুটি বাড়ানো হচ্ছিল। প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছেই প্রিয় তার স্কুল, কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। হোক তা টিনের চাল বা ভাঙা দরজা-জানালার, তবুও প্রতিটি ক্যাম্পাস সব শিক্ষার্থীদের দুর্বলতার স্থান। দীর্ঘ মাস পর নতুন সুরের বার্তা জানান দিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। দীর্ঘ ১৯ মাস পর সশরীরে ক্লাস কার্যক্রম শুরু করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আবারো বিভিন্ন বিভাগের ক্লাসরুমগুলো মুখরিত হয়ে উঠেছে শিক্ষার্থীদের পদচারণায়। ২১ অক্টোবর সকাল থেকেই ক্লাসে আসতে শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে ক্লাসে বরণ করে নেয় বিভাগগুলো। দীর্ঘদিন পর শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পদচারণায় আবারো প্রাণ ফিরেছে প্রিয় ক্যাম্পাসে। শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর সেই একাডেমি ভবন, প্রশাসনিক ভবন, লাইব্রেরি এবং বিভিন্ন চত্বর। চারিদিকে কলরবমুখর পরিবেশ।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন জায়গায় শিক্ষার্থীদের ভিড়। অনেকটা লম্বা সময় বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়নি। তাই এতোদিন পর আবারো এক হতে পেরে আনন্দিত তারা। অনেকেই মুহূর্তগুলোকে ক্যামেরাবন্দি করে রাখছেন। কেউবা একে অপরের সাথে কুশল বিনিময় করছেন। দীর্ঘদিন দিন দেখা না হওয়ার কারণে একে-অপরের খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। অনেকে আবার আড্ডা খোশগল্পে মেতে উঠেছেন। দীর্ঘ দেড় বছর পর বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের সশরীরে ক্লাস শুরু হওয়ায় এবং অনেক দিন পরে নতুন করে শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের মিলন মেলায় ক্লাসরুম হয়ে উঠে উৎসবমুখর। আবারো সশরীরে ক্লাসে ফিরতে পেরে শিক্ষার্থীদের অনুভূতির যেন শেষ নেই। ক্লাসে ফিরতে পেরে তারা খুবই আনন্দিত। পুরনো স্মৃতি আর প্রিয় মানুষদের কাছে পেয়ে উচ্ছ্বসিত। করোনার ক্ষতি পুষিয়ে নিয়ে আবারো পড়াশুনা শুরু করতে চায় শিক্ষার্থীরা। তারা জানান, দীর্ঘদিন পর সেই পরিচিত মুখ এবং পরিচিত ক্যাম্পাস দেখে যেন সবাই নতুনত্বের অনুভূতি পাচ্ছে। এতদিন অনলাইনে ক্লাস চললেও এখন থেকে সশরীরে শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত হয়ে ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে জেনে আনন্দিত শিক্ষার্থীরা। বিভিন্ন চত্বরে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের আড্ডা এবং খোশগল্পে জমে থাকতে দেখা যায়। এ ছাড়াও আবাসিক হলগুলোতে নীরবতা শেষে ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য। আবার জুনিয়রদের বরণ করে নিতে কত শত পরিকল্পনা চলছে প্রবীণদের মাঝে। সবমিলিয়ে যেন আনন্দ উচ্ছ্বাসে শিক্ষার্থীরা। মহান স্রষ্টার নিকট হাজার হাজার শুকরিয়া,   সুস্থ দেহে আবারো সবাই  ফিরে এসেছে প্রিয় ক্যাম্পাসে। ক্যাম্পাসে প্রিয় চিরচেনা মুখগুলো আবারো ফিরে পেয়েছে তার আগের রূপ। জয় বাংলা চত্বর ও হতাশার মোড় আবারো মুখরিত হয়ে উঠেছে শিক্ষার্থীদের পদচারণায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের লাল ও সাদা রঙের বাসগুলো ফিরে পেয়েছে তার হারানো কর্মব্যস্ততা। অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আবারো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ সুরের ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads