• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ৩ জৈষ্ঠ ১৪২৯

ফিচার

জীবন ইয়ুথ ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে নারীবিষয়ক ক্যাম্পেইন

  • প্রকাশিত ০৭ নভেম্বর ২০২১

তাবাস্সুম তৈয়বা

জনস্থানে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে পার্বত্য রাঙামাটিতে আশার আলো স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ‘জীবন ইয়ুথ ফাউন্ডেশন।’

বাংলাদেশের ১০ জেলার ‘জনস্থানে নারীর নিরাপত্তা’ ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে ২১ ও ২২ অক্টোবর  জীবন ইয়ুথ ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে দুই দিনব্যাপী দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালার প্রথম দিনের কার্যক্রম  আঞ্চলিক জনসংখ্যা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট-এর সম্মেলন কক্ষে কর্মশালার আয়োজিত হয়।  দেশজুড়ে দশটি জেলার অয়োজনের অংশ হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী। এই কর্মশালায়, জনস্থানে নারীর নিরাপত্তা বিষয়ক দক্ষতা উন্নয়নে নানা বিষয় তুলে ধরার পাশাপাশি নারীবান্ধব জনস্থান বিনির্মাণের দিকে গুরুত্বারোপ করা হয়। সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাজিদ-বিন-জাহিদ-জাহিদ (মিকি), রাঙামাটি সদর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন ইসলাম ও ভার্চুয়াল মাধ্যমে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের উপ-পরিচালক সুষ্মিতা পাইক কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও সিআরআইর এসিস্ট্যান্ট কোওর্ডিনেটর ইসরাত ফারজানা তন্নী অংশগ্রহণকারী তরুণদের সাথে ভার্চুয়াল মাধ্যমে সংযুক্ত হয়ে মতবিনিময় করেন। কর্মশালায় সেশন পরিচালনা করেন সিআরআইর অ্যাসোসিয়েট কোওর্ডিনেটর হাবিবুর রহমান ও প্রকৌশলী সাইদা জান্নাত ও যুব বাংলার প্রতিনিধি জওয়াং রাখাইন। কর্মশালার সমাপনী দিনে, রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মামুন, আঞ্চলিক জনসংখ্যা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট-এর অধ্যক্ষ ওবায়দুর রহমান সরদার, সাবেক প্রেস ক্লাব সভাপতি ও বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী সুনীল কান্তি দে উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালায় দ্বিতীয় দিনে অনলাইনে যুক্ত থেকে সেশন পরিচালনা করেন ইউএনডিপি-এর হিউম্যান রাইটস প্রোগ্রামের জেন্ডার এক্সপার্ট বিথিকা হাসান।

দুই দিনব্যাপী কর্মশালায় ২২ জন স্বেচ্ছাসেবী প্রশিক্ষণার্থী অংশ নেন যারা পরবর্তীতে ক্যাম্পেইনটি স্ব স্ব অবস্থান থেকে পরিচালনা করবেন। ইতোপূর্বে, মাঠ পর্যায়ে পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও অংশগ্রহণমূলক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফল ও অভিজ্ঞতা উপস্থাপন করেন সংগঠনের বক্তারা।

উল্লেখ্য, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, সিআরআই-এর বাস্তবায়নে ও ইউএনডিপির সহযোগিতায় ১০টি জেলায় Women's Safety in Public Places ক্যাম্পেইন নিয়ে বাংলাদেশে ১০টি সংগঠন কাজ করছে মাঠ পর্যায়ে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads