• রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯
উপকূলে উষ্ণতার ছোঁয়া

সংগৃহীত ছবি

ফিচার

‌হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন-এর উদ্যোগ

উপকূলে উষ্ণতার ছোঁয়া

  • সালেহীন বাবু
  • প্রকাশিত ২৫ জানুয়ারি ২০২২

দক্ষিণাঞ্চলে বর্তমানে কনকনে শীত। ভীষণ কষ্টে দিন অতিবাহিত করছেন নিম্ন আয়ের  নদীর পাড়ের জেলে পরিবারের শিশুরা। তাদের কষ্ট লাঘবে এগিয়ে এসেছে সামাজিক সংগঠন ‌‘হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন’। সন্ধ্যার পর থেকেই ঘন কুয়াশার চাঁদরে ঢাকা পড়ে যায় গোটা নদীর পাড়ের এলাকা। সেই সঙ্গে বয়ে চলা হিমেল হাওয়া আর কনকনে ঠান্ডায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে নদীর পাড়ের গ্রামাঞ্চলের শিশুদের। তাই একটু উষ্ণতার ছোঁয়া ও শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষা পেতে গত শুক্রবার বলেশ্বর নদী তীরবর্তী মঠবাড়িয়া উপজেলার মাছুয়া ইউনিয়নের খেজুরবাড়িয়া জেলেপল্লীর দরিদ্র শিশুদের মাঝে কম্বল বিতরণ করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন। উপজেলা প্রশাসন, মঠবাড়িয়ার সহযোগিতায় জেলে শিশুদের মাঝে কম্বল বিতরণের আয়োজন করে সংগঠনটি। এসময় উপস্থিত ছিলেন হাতে খড়ি ফাউন্ডেশনের  প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান রুবেল মিয়া নাহিদ, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি সুমন মিস্ত্রী সজীব, কেন্দ্রীয় শাখার কোষাধ্যক্ষ জয়া হাওলাদার উপজেলা শাখার সভাপতি পলাশ বৈরাগী, দুর্জয় তালুকদার, আবিদ হাসান সোলায়মান প্রমুখ। নতুন কম্বল পেয়ে কেমন লাগছে এমন প্রশ্নের জবাবে উৎপল বলে, ‘আমি খুপ খুশি অইচি। মোর বন্ধুরাও খুশি অইচে। বাড়ি গেলে মোগো আব্বা-আম্মায় আরু খুশি অইবে।’ কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে অভিজ্ঞতার কথা জানান সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। তিনি বলেন,  জেলে পরিবারের শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য অর্থের থেকে বেশি যেটা প্রয়োজন, সেটা ইচ্ছা। সমাজের বিত্তবানদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে শীতের কষ্ট লাঘবে যতটা সম্ভব এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ করছি।

উল্লেখ্য, দক্ষিণাঞ্চলের (পিরোজপুর) বলেশ্বর নদী তীরবর্তী জেলে জনগোষ্ঠীর শিশুদের জীবনমান উন্নয়ন, তাদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত, নিজস্ব সংস্কৃতি বিকাশ ও তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ করার পাশাপাশি তাদের জন্য বিভিন্ন সুযোগ সৃষ্টি করতে কাজ করে যাচ্ছে হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন। দারিদ্র্য এ জনগোষ্ঠীর শিশুরা শিক্ষাসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত যার ফলে সামাজিক ভাবে তারা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। সমাজের অন্যদের সাথে বৈষম্য দূরীকরণে তাদের জন্য কাজ করছে হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন। পিছিয়ে পড়া এই জেলে জনগোষ্ঠীদের নিয়ে কাজ করার পাশাপাশি সমাজ উন্নয়নে কাজ করার স্বীকৃতিস্বরূপ হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন অর্জন করে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০২০।

২০১৮ সালের ১৭ মার্চ হাতে খড়ি ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু। শুরুর পর থেকে বিভিন্ন প্রজেক্টের মাধ্যমে জেলে জনগোষ্ঠীর শিশুদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন। প্রজেক্টের বাইরেও তারা কাজ করছে সামাজিক ব্যাধি বাল্যবিবাহ এবং ইভটিজিং প্রতিরোধে। সরকারি টোল ফ্রি নম্বর ৯৯৯, ১০৯-এর সুবিধাসমূহের তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন আদর্শকে নতুন ও তরুণ প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে তারা করছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক শিশু চলচ্চিত্র প্রদর্শনী উৎসব। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় রাস্তার ধার জেলেদের বাড়ির আঙিনা ও বিভিন্ন স্থানে তারা করে যাচ্ছেন বৃক্ষরোপণ। যাদের নিরলস পরিশ্রমে এগিয়ে যাচ্ছে হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন।

হাতে খড়ি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সফল তরুণ উদ্যোক্তা তড়িৎ প্রকৌশলী মো. রুবেল মিয়া নাহিদ। তিনি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।

হাতে খড়ি ফাউন্ডেশনের  কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন তরুণ উদ্যোক্তা সুমন চন্দ্র মিস্ত্রী সজিব। তিনি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি। সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন সৌরভ হাওলদার। সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন শান্ত মিত্র । কোষাধ্যক্ষের দায়িত্বে রয়েছেন জয়া হাওলাদার ।

এছাড়াও সক্রিয় ভাবে কাজ করছেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি উজ্জ্বল ঘরামী, তন্ময় হাওলাদার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অভি মন্ডল, প্রচার সম্পাদক বেল্লাল খান রানা, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সৌরভ হাওলাদার। যারা সকলে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাকাল থেকে ফাউন্ডেশনের ব্যানারে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন জেলে জনগোষ্ঠীর শিশুদের জীবনমান উন্নয়ন, সমাজ উন্নয়নের পাশাপাশি দেশ ও দশের কল্যাণে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads