• শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯
ঈদের দিনের সাজ

সংগৃহীত ছবি

জীবনধারা

ঈদের দিনের সাজ

  • প্রকাশিত ০৮ মে ২০২১

ঈদের দিনে সবাই সাজতে পছন্দ করেন। অনেকেই আবার সাজে একটু ভিন্নতা আনতে চেষ্টা করেন। কেমন হতে পারে ঈদের তিন বেলার সাজ তা এখানে তুলে ধরা হলো

মেকআপ

ঈদের দিন হালকা মেকআপ নেওয়াটাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। পরিষ্কার করে মুখ ধোয়ার পর ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে ১০ মিনিট পর প্রাইমার লাগাতে হবে। প্রাইমারে সাজ দীর্ঘস্থায়ী হবে। দাগ ঢাকতে কনসিলার লাগানো যেতে পারে। মুখে, গলায় ফাউন্ডেশন লাগিতে নিতে হবে ত্বকের (স্কিনটোন) সঙ্গে মিলিয়ে। তারপর পানিতে স্পঞ্জ ভিজিয়ে চেপে চেপে ভালোভাবে বসিয়ে নিতে হবে। ফেস পাউডার লাগিয়ে নিলেই সকালের বেইজ মেকআপ পরিপূর্ণ। দুপুরসহ যেকোনো সময় স্পঞ্জ পানিতে ভিজিয়ে মুখে চেপে চেপে সাজ বসিয়ে নিতে হবে। এতে একই মেকআপে দীর্ঘ সময় সতেজ থাকা সম্ভব হবে। সারা দিনের পুরো সাজ রাতে তেল ও তুলা দিয়ে পরিষ্কার করে তুলে ফেলতে হবে।

চোখের সাজ

হালকা ও ন্যাচারাল লুকই এখনকার ট্রেন্ড। দিনের সাজে আইশ্যাডো ব্যবহার করতে চাইলে বাদামি, তামাটে কিংবা পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে হালকা রং ব্যবহার করা যেতে পারে। ভ্রু ভি আকৃতির হলে সবার মুখের সঙ্গে মানিয়ে যাবে। চোখে আইলাইনার না দিয়ে কাজল আর মাশকারায় সতেজতা ফুটে উঠবে। কাজলে চোখ এঁকে মাশকারা লাগিয়ে নিতে হবে। রাতে চোখের সাজটা একটু ভারী হওয়াই ভালো। কপার, মেরুন বা যেকোনো গাঢ় রঙের শ্যাডো ব্যবহার করলে ভালো দেখাবে। আইপেনসিল ও কাজল দিয়ে চোখে কালো ও নীল রং আঁকলে আভিজাত্য ফুটে উঠবে সাজে। কয়েক দফা মাশকারা দেওয়া যেতে পারে। তবে পাশে কালো বা কালচে রঙের খেলা রাতে মানাবে ভালো। আর যদি কেউ স্মোকি আই করতে চান, তাহলে তো কথাই নেই।

ঠোঁটের সাজ

যেহেতু ঈদ প্রচ্ল গরমের মধ্যে তাই গ্লসি, শিমারিং লিপস্টিক এড়িয়ে ম্যাট বা ক্রিম বেজ লিপকালার ব্যবহার করাই ভালো। মেকআপ ভারি হলে ঠোঁট সাজাতে গোলাপি, কমলা, ব্রাউন, পিচ, কোকোসহ নানা শেডের ন্যুড রঙের লিপস্টিক ব্যবহার করা যেতে পারে। চোখের স্মোকি সাজের সঙ্গে ভালো লাগবে গোলাপ রঙা ঠোঁট। আর সাজ হালকা হলে লাল, মেরুনসহ যেকোনো গাঢ় রং হলেও মানিয়ে যাবে দারুণভাবে। রাতে গাঢ় রং আনতে পারে ভিন্নতা।

চুলের সাজ

সাজসজ্জায় চুলের সাজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চুল বাঁধতে হবে সেভাবে, যেভাবে আপনাকে মানায়। আয়রন কিংবা ব্লোড্রাই করে চুল ছাড়াও রাখা যেতে পারে সকালে। সাজ ও প্রয়োজন বুঝে চুল সাজাতে ক্লিপ, কাঁটা বা যেকোনো অনুষঙ্গ ব্যবহার করা যেতেই পারে। দুপুরে চুল ঝুঁটি বা খোঁপা করে রাখলে গরম কম লাগবে, সময়ের সঙ্গে মানানসইও হবে। টুইস্ট, সাইড বান, ফ্রেঞ্চ বেণি করে বাঁধলে ভালো দেখাবে।

রাতে পাশে সিঁথি করে চুল একটু ফুলিয়ে সামনের দিকে এনে নিচের অংশে হাফকার্ল করে রাখলে মানিয়ে যাবে সব পোশাকের সঙ্গে। তবে পোশাক শাড়ি হলে আঁচলের বিপরীত পাশে চুলগুলো সামনে এনে রাখলে দারুণ দেখাবে। ইচ্ছা হলে লাগিয়ে নেওয়া যেতে পারে বেলি, গোলাপসহ যেকোনো ফুল।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads