• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
রাস্তার পাশে বস্তা ভর্তি মরা মুরগি, দূর্গন্ধে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

ছবি : বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

রাস্তার পাশে বস্তা ভর্তি মরা মুরগি, দূর্গন্ধে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

  • সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১২ মার্চ ২০২০

ফেনীর সোনাগাজীতে রাস্তার পাশের ডোবায় বস্তায় বস্তায় মরা মুরগি ফেলেছে নুরনবী বাবুল নামের এক খামার মালিক। উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সফরপুর গ্রামের বক্তারমুন্সি-নবাবপুর সড়কের তুলাতুলি নামক স্থানে কয়েকদিন আগে ওই খামার মালিক খামারের অন্তত ৫০বস্তা মরা মুরগি ফেলানোর কারণে তীব্র দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

এতে গ্রামের পরিবেশ বিপর্যয়ের পাশাপাশি ওই সড়কে চলাচলকারী লোকজন দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী প্রশাসনের কাছে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী জানিয়েছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ওই সড়ক দিয়ে আসা-যাওয়ার সময় লোকজনেরা আগে থেকে নাক চেপে ধরে রাস্তা অতিক্রম করছেন। ডোবার পাশে চারপাশে প্লাস্টিকের বস্তা ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। এসব বস্তায় মরা মুরগি ভরে রাখা হয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, এলাকায় অনেক ছোট-বড় মুরগির খামার ও হ্যাচারি গড়ে উঠেছে। বেশির ভাগ খামার ও হ্যাচারির বর্জ্য (মরা মুরগি ও পচা ডিম) ফেলার জায়গা নেই। এসব খামার ও হ্যাচারির মালিকেরা মরা মুরগি ও পচা ডিম প্লাস্টিকের বস্তায় ভরে রাস্তার পাশে খালে ও ডোবায় ফেলছেন। এ ছাড়া রাস্তার আশপাশে মুরগির খামারের বিষ্ঠা বস্তায় ভরে রাখা হচ্ছে। এসব বর্জ্যের কারণে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। ফলে তাঁরা সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

সোনাগাজী উপজেলা প্রানী সম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বলেন, মুরগির খামারি ও হ্যাচারির মালিকরা দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকার খালে, ডোবায় মরা মুরগি, পচা ডিম, মুরগির বৃষ্ঠা ফেলে পরিবেশ দুষিত করছে। তাদের বহুবার নিষেধ করা হলেও তারা কোন তোয়াক্কা করছেনা।

অভিযুক্ত খামার মালিক নুরনবী বাবুলের সাথে কথা বলতে গেলে বলেন, পরিবেশ দুষিত ও মানুষের দুর্ভোগ হলে আমার কিছু আসে যায়না। আমার নিজস্ব কোন জমি না থাকায় আমি রাস্তার পাশে ডোবায় মরা মুরগি ফেলেছি এতে দোষের কিছু দেখতেছিনা।

সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব বলেন, খালে ও ডোবায় মরা মুরগি, পচা ডিম, মুরগির বৃষ্ঠা না ফেলানোর জন্য খামার মালিকদের কয়েকবার সতর্ক করা হয়েছে। যেহেতু তারা আইন মানছেন না তাই তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads