• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

ছবি সংগৃহীত

বাণিজ্য

বাংলাদেশে বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে সিঙ্গাপুর : বাণিজ্যমন্ত্রী

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১২ জুলাই ২০১৮

আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশে কয়েক বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের সুবিধা দেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে চট্টগ্রামের মিরসরাইতে নির্মাণাধীন স্পেশাল ইকোনমিক জোনে ৫০০ একর জায়গা বরাদ্দ দেওয়ার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের বিনিয়োগ সন্তোষজনক হলে আগামীতে জমির পরিমাণ আরো বাড়বে।

বাংলাদেশে সফররত সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ীদের সংগঠন ‘সিঙ্গাপুর বিজনেস ফেডারেশন’-এর প্রতিনিধি দলের সঙ্গে গতকাল বুধবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বৈঠক করে। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী। এ সময় সিঙ্গাপুর বিজনেস ফেডারেশনের ডেপুটি মিশন লিডার ও সিঙ্গাপুর ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের ভাইস চেয়ারম্যান প্রসূন মুখার্জী, বাংলাদেশ বিজনেস চেম্বার অব সিঙ্গাপুরের সভাপতি শহীদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

সিঙ্গাপুর বিজনেস ফেডারেশনের ব্যবসায়ীরা এক সপ্তাহের সফরে গত ৭ জুলাই বাংলাদেশ সফরে এসেছেন। আগামীকাল ১৩ জুলাই তাদের সফর শেষ হবে। তাদের সফরসূচির মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল পরিদর্শন, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি ও সরকারের বিভিন্ন বিভাগের সঙ্গে মতবিনিময়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সিঙ্গাপুর আমাদের ঘনিষ্ঠ বন্ধু, স্বাধীনতার পরপরই সিঙ্গাপুর আমাদের স্বীকৃতি দিয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশ সিঙ্গাপুরের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের পরিমাণ ৪ বিলিয়ন ডলার। আমাদের সবচেয়ে বড় দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চীনের সঙ্গে, তারপরই রয়েছে ভারত ও সিঙ্গাপুর। এ ছাড়া বাংলাদেশের ১৫০টি কোম্পানি সিঙ্গাপুরে কাজ করছে। তাদের অফিস সিঙ্গাপুরে রয়েছে।

বাংলাদেশ বিনিয়োগের জন্য আকর্ষণীয় স্থান উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমরা বিনিয়োগকারীদের বিষয়ে যথেষ্ট উদার। বিদেশি বিনিয়োগকারীরা যেকোনো সময় বিনিয়োগকৃত অর্থ লাভসহ ফিরিয়ে নিতে পারবেন। বিনিয়োগকারীদের এ অধিকার আইন পাস করে সংরক্ষণ করা হয়েছে। সিঙ্গাপুরের বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে লাভবান হবেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের রফতানি এখন প্রায় ৩৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। দিন দিন রফতানির পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের বিদ্যুৎ উৎপাদন ১৮ হাজার মেগাওয়াট ছাড়িয়ে গেছে। নতুন নতুন গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কৃত হয়েছে, এলএনজি আমদানি শুরু হয়েছে। পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র গড়ে তোলা হচ্ছে। শিল্প-কলকারখানায় বিদ্যুৎ ও গ্যাসের কোনো সমস্যা হবে না। সরকার সেভাবেই সব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছে। বেশ কয়েকটি ইকোনমিক জোনের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। সিঙ্গাপুরকে একটি স্পেশাল ইকোনমিক জোন বরাদ্দ দেওয়া হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

প্রসূন মুখার্জী বলেন, বর্তমানে সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ রয়েছে চীনে। সেখানে বিনিয়োগের প্রধান কারণ হলো সিঙ্গাপুরের লোকসংখ্যার একটা বড় অংশই চীনা। আর সিঙ্গাপুরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বিনিয়োগ ইন্দোনেশিয়া। কারণ এই দেশটি সিঙ্গাপুরের নিকটতম বড় প্রতিবেশী দেশ। বর্তমানে সিঙ্গাপুরের তৃতীয় বৃহত্তম বিনিয়োগকারী দেশ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads