• শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
বাণিজ্য মেলায় কয়েদিদের পণ্যের পসরা

বাণিজ্য মেলায় কয়েদিদের পণ্যের পসরা

সংগৃহীত ছবি

বাণিজ্য

বাণিজ্য মেলায় কয়েদিদের পণ্যের পসরা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৩ জানুয়ারি ২০১৯

বাণিজ্য মেলায় জেলখানার কয়েদিদের বানানো বিভিন্ন পণ্য সমাহার। দেশের বিভিন্ন কারাগারের কয়েদিরা এসব পণ্য তৈরি করেছেন। বাণিজ্য মেলায় প্রবেশ করে একটু বাঁদিকে গেলেই চোখে পড়বে ৩ নম্বর প্যাভিলিয়নের ওপরে লেখা ‘কারাপণ্য’। এই প্যাভিলিয়নের ভেতরে প্রবেশ করতেই দেখা মিলবে বেত ও বাঁশের তৈরি মোড়া, কাঠের তৈরি আসবাবপত্র, কাপড়, সুতা ও উল দিয়ে বানানো শতরঞ্জি, পাপোশ, চাদর, ওড়না, গামছাসহ ঘরে ব্যবহার করার মতো নানা জিনিস। থরে থরে সাজানো রয়েছে ছোটবড় বিভিন্ন ধরনের কারুপণ্যও। প্রতিটি পণ্যের গায়েই মূল্য লেখা রয়েছে। মূল্যের পাশাপাশি কোনোটার গায়ে লেখা রয়েছে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে তৈরি, কোনোটার গায়ে লেখা রাজশাহী কারাগারে তৈরি, কোনোটার গায়ে আবার লেখা রংপুর কারাগার। এ প্যাভিলিয়নের প্রতিটি পণ্যই কারাগারের ভেতরে তৈরি। এসব পণ্য সাজাপ্রাপ্ত কয়েদিরা তৈরি করেছেন। প্রতিটি পণ্যেই কয়েদিদের নিখুঁত হাতের যত্নের ছোঁয়া রয়েছে। এই শোরুমে কারা অধিদফতরের ১৪ থেকে ১৫ কর্মকর্তা-কর্মচারী পালাক্রমে দায়িত্ব পালন করেন। ক্রেতাদের পছন্দের পণ্যগুলোকে বেশ যত্নের সঙ্গেই তারা উপস্থাপন করছেন। পুরান ঢাকা থেকে মেলায় এসেছেন ষাটোর্ধ্ব বয়সের আশিকুল ইসলাম। তিন নম্বর প্যাভিলিয়নের ভেতরে ঢুকে একটু ঘোরাফেরা করে উত্তর-পশ্চিম কোণে সাজিয়ে রাখা সিংহাসন চেয়ারে বসলেন। বেত ও বাঁশের ফালি ব্যবহার করে তৈরি করা বৈচিত্র্যময় এ চেয়ারটি যেন নবাবি আমলের ঐতিহ্যকে প্রকাশ করছে। প্যাভিলিয়নের কর্মীরা যত্নের সঙ্গে চেয়ারটির নানা দিক তার কাছে তুলে ধরলেন। প্যাভিলিয়নের একজন কর্মী বলেন, কারাগারে বিভিন্ন মেয়াদের সশ্রম কারাদণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদিরাই এসব পণ্যের কারিগর। এসব পণ্যের মাধ্যমে তারা তাদের মনের শিল্পসত্তার পরিচয় ফুটিয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করেন। আমাদের সব পণ্যই হাতের তৈরি। দেশীয় কাঁচামাল দিয়ে বানানো। এ কারণেই দাম একটু বেশি। তবে বেচাকেনা অন্যদের তুলনায় একবারে খারাপ নয়। অনেকেই আসেন দেখেন ও কিছু না কিছু একটা কিনে নেন। কোন ধরনের ক্রেতা বেশি আসেন, জানতে চাইলে ওই কর্মী বলেন, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষই আসেন। অনেক ছাত্রছাত্রীও আসেন। তবে ক্রেতাদের কাউকে কখনো বিরক্তি প্রকাশ করতে দেখিনি। আমাদের পণ্যের গুণগত মান ভালো। তাই একবার যারা কিছু নিয়েছেন, তারা পুনরায় আসছেন এখানে। কোনোরকম প্রচার ছাড়াই কারাগারে প্রস্তুত করা পণ্য ক্রেতাদের ভালো লাগছে বলে মেলায় আসাটা সার্থক হয়েছে বলে জানান বিক্রেতারা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads