• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads

ফুটবল

পিএফএ বর্ষসেরা সালাহ

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৪ এপ্রিল ২০১৮

বড় স্বপ্ন নিয়েই নাম লিখিয়েছিলেন চেলসিতে। কিন্তু নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিতে পারেননি মোহাম্মদ সালাহ। ফিওরেন্তিনা হয়ে এএস রোমায় এসে নিজের জাত চেনান মিসরীয় এই ফরোয়ার্ড। নজর কাড়েন লিভারপুল কোচ জুর্গেন ক্লপের। অ্যানফিল্ডে পাড়ি জমিয়েই নিজের সেরা পারফরম্যান্স নিগড়ে দেন সালাহ। অভিষেক মৌসুমেই দুরন্ত খেলে পেয়ে যান তারকা খ্যাতি। প্রিমিয়ার লিগের ৩৩ ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়েছেন ৩১ বার। বিদায়ী মৌসুমে চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্সে সব ধরনের টুর্নামেন্ট মিলে ৪৬ ম্যাচে পান ৪১ গোল। সুবাদে ম্যানসিটিকে বিদায় করে লিভারপুল উঠে গেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ চারে। দ্য রেড শিবিরে নিজের প্রথম মৌসুমেই অসাধারণ এই কৃতিত্ব গড়ে পেলেন পুরস্কার। জিতে নিলেন ২০১৭-১৮ মৌসুমে প্রফেশনাল ফুটবলারস অ্যাসোসিয়েশনের (পিএফএ) বর্ষসেরা অ্যাওয়ার্ড।

লিভারপুলের এই তারকা ফরোয়ার্ড বর্ষসেরা হওয়ার দৌড়ে হারিয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটির বেলজিয়ান মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইনে, টটেনহ্যাম হটস্পারের ইংলিশ স্ট্রাইকার হ্যারি কেন, ম্যানসিটির জার্মান উইঙ্গার লেরয় স্যান, ম্যানসিটির স্প্যানিশ আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার ডেভিড সিলভা ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের স্প্যানিশ গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়াকে। পুরস্কার জিতে যারপরনাই খুশি ২৫ বছরের মোহাম্মদ সালাহ। সঙ্গে গর্বিতও, ‘আমার জন্য এটা সম্মান। কারণ এটা এসেছে ফুটবলারদের ভোটে। আমি প্রচণ্ড আনন্দিত এবং একই সঙ্গে গর্বিত।’ চেলসিতে কাটানো খারাপ সময়টা পেছনে ফেলে এসেছেন সালাহ। ব্যক্তি হিসেবে নিজেকে দিয়েছেন নতুন রূপ। তার কণ্ঠ থেকে ঝড়ল সেই স্বীকারোক্তি, ‘চেলসিতে তেমন কোনো সুযোগ পাইনি। বিষয়টা পরিষ্কার, অতীত ভুলে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। সবাইকে আমার ফুটবল পারফরম্যান্স দেখিয়েছি। পুরনো স্মৃতি  পেছনে ফেলে এসেছি। ভিন্ন ব্যক্তি, মানুষ ও খেলোয়াড় হিসেবে ফিরে এসেছি।’

প্রিমিয়ার লিগে এক মৌসুমে ৩১ গোল করার রেকর্ড স্পর্শ করেছেন সালাহ। হাতে আছে আরো তিনটি ম্যাচ। ভাঙতে চান রেকর্ডটা, ‘এখনো তিন ম্যাচ হাতে আছে। রেকর্ডটা ভাঙতে চাই আমি। প্রিমিয়ার লিগ রেকর্ড ভাঙা ইংল্যান্ড ও সারা বিশ্বে বড় এক অর্জন।’ ৩৮ ম্যাচের মৌসুমে সালাহ রেকর্ডটা ভাগাভাগি করেছেন অ্যালান শিয়েরার, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে।

শিষ্য সালাহ বর্ষসেরার পুরস্কার জেতায় উচ্ছ্বসিত লিভারপুল কোচ জুর্গেন ক্লপ। দলের এই তারকা ফুটবলারকে প্রশংসায় ভাসিয়ে দ্য রেড গুরু বলেন, সালাহর ‘কোচ হওয়ার সুযোগ’ পেয়ে তিনি মহা খুশি। সালাহর পুরস্কার জয়কে ‘অবিশ্বাস্য সম্মান’ হিসেবেই দেখছেন ক্লপ। আনন্দে অবশ্য পেশাদারিত্বের কথা ভুলে যাননি কোচ ক্লপ। সামনে রোমার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের গুরুত্বপূর্ণ সেমিফাইনাল ম্যাচ। তাই সালাহকে জানিয়েছেন দলে যোগ দেওয়ার আহ্বান, ‘এটা অবশ্যই চমৎকার একটা অর্জন। কিন্তু আমাদের আরো কয়েকটি ম্যাচ খেলতে হবে। তাই অনুগ্রহ করে ট্রফিটা হাতে নিয়ে ঘরে ফিরে আসো। মঙ্গলবার যে আমাদের মাঠে নামতে হবে।’

লন্ডনের গ্রসভেনর হাউজ হোটেলের জমকালো পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ম্যানচেস্টার সিটির স্যান জিতেছেন বর্ষসেরা তরুণ ফুটবলার অ্যাওয়ার্ড। আর চেলসির ফ্রান কিরবি পেয়েছেন বর্ষসেরা নারী খেলোয়াড়ের পুরস্কার। ব্রিস্টল সিটির লরেন হেম্প হয়েছেন বর্ষসেরা তরুণ নারী খেলোয়াড়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads