• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

হাস্যরস

আ ন্ত র্জা লি ক

টেন্ডার

  • স্রোতস্বিনী
  • প্রকাশিত ২৫ আগস্ট ২০১৮

হোয়াইট হাউজের দেয়ালে ফাটল ধরেছে। প্রধান কর্মকর্তার নজরে আসা মাত্র মেরামতের নির্দেশ দিলেন।

তিনজন কন্ট্রাক্টর ডাকা হলো। টেনেসাস থেকে আগত কন্ট্রাক্টর দীর্ঘক্ষণ ধরে দেয়ালের ফাটল পর্যবেক্ষণ করলেন। ঘণ্টাখানেক ধরে মাপজোখ করলেন। আরো ঘণ্টাখানেক ধরে হিসাবনিকাশ করলেন। অবশেষে দেয়াল মেরামতের বাজেট দিলেন।

তিনি বললেন, ‘দেয়ালের ফাটল মেরামত করতে ৯ হাজার ডলার খরচ হবে। চার হাজার ডলার লাগবে মেরামতের জন্য দ্রব্যাদি কিনতে। চার হাজার ডলার শ্রমিকদের বিল। বাকি এক হাজার ডলার আমার লাভ।’

দ্বিতীয় কন্ট্রাক্টর এলেন শিকাগো থেকে। তিনিও দীর্ঘক্ষণ ধরে দেয়ালের ফাটল পর্যবেক্ষণ করলেন। ঘণ্টাখানেক ধরে মাপজোখ করলেন। আরো ঘণ্টাখানেক ধরে হিসাবনিকাশ করলেন। অবশেষে দেয়াল মেরামতের বাজেট দিলেন।

বললেন, ‘আমার লাগবে ৮ হাজার ডলার। সাড়ে তিন হাজার ডলার লাগবে মেরামতের দ্রব্যাদি কিনতে। সাড়ে তিন হাজার শ্রমিকদের বিল। বাকি এক হাজার ডলার আমার লাভ।’

নিউইয়র্কের এক কন্ট্রাক্টর সবার আগেই এসেছিলেন। তিনি কোনো মাপজোখে গেলেন না। হিসাবনিকাশও করলেন না। সরাসরি তার বাজেট দিলেন।

‘আমার লাগবে ২৮ হাজার ডলার।’ সরাসরি হোয়াইট হাউজের তদারক কর্মকর্তার কাছে গিয়ে বললেন।

তদারক কর্মকর্তা তো অবাক। ‘তুমি কোনো মাপজোখ করলে না। হিসাবনিকাশও দেখালে না। কীভাবে এত পয়সা চাচ্ছ?’

নিউইয়র্কের কন্ট্রাক্টর বললেন, ‘হিসাব খুব সহজ। ১০ হাজার ডলার আমার। ১০ হাজার ডলার তোমার। বাকি ৮ হাজার ডলার শিকাগোর কন্ট্রাক্টরকে দিয়ে দেব।’

একগাল হেসে তদারক কর্মকর্তা বললেন, ‘ওকে, ডান। কাজটা তুমিই পাচ্ছ।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads